মঙ্গলবার, ২১ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০৬:০৮ পূর্বাহ্ন

সিডিএ মাস্টার প্ল্যানের ‘স্ট্রেটেজিক ওপেন স্পেস’ হিসেবে সিআরবি সংরক্ষণের দাবি

পরম বাংলাদেশ ডেস্ক
  • প্রকাশ : বুধবার, ১৪ জুলাই, ২০২১
  • ১২০ Time View

চট্টগ্রাম: চট্টগ্রাম নগরীর সিআরবি এলাকায় প্রাণ প্রকৃতি ধ্বংস করে হাসপাতাল ও বাণিজ্যিক স্থাপনা নির্মাণ বন্ধ করার দাবি জানিয়েছে গণসংহতি আন্দোলন চট্টগ্রাম জেলা শাখা।

বুধবার (১৪ জুলাই) সকালে সিআরবি সাত রাস্তার মোড়ে মানব বন্ধন করে এ দাবি জানানো হয়।

সংগঠনের চট্টগ্রাম জেলা সমন্বয়ক হাসান মারুফ রুমীর সভাপত্বিতে ও সদস্য সচিব ফরহাদ জামান জনির পরিচালনায় মানব বন্ধনে বক্তব্য রাখেন গণসংহতি আন্দোলন চট্টগ্রাম জেলার নেতা এডভোকেট ফাহিম শরীফ খান, শ্রমিক নেতা মির্জা আবুল বশরসহ সংগঠনের নেতৃবৃন্দরা ।

মানববন্ধনে বক্তারা বলেন, ‘চট্টগ্রাম নগরে দিন দিন খেলার মাঠ, উন্মক্ত পার্ক, সাংস্কৃতিক চর্চার স্থান সংকুচিত হয়ে যাচ্ছে। উন্নয়নের নামে গত ১০-১৫ বছরে শহরের অনেক খোলা মাঠ ও পার্ক দখল করে বাণিজ্যিক ভবনসহ নানা স্থাপনা নির্মাণ করা হয়েছে। শহরের নাগরিকদের জন্য যে অল্প কয়েকটা পার্ক , মাঠ ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান করার জায়গা রয়েছে, তার মধ্যে সিআরবি অন্যতম। এ সিআরবি কেবল বিনোদনের জায়গা নয়, নগরের প্রাকৃতিক ভারসাম্য বজায় রাখার জন্য এ এলাকা গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করছে। সে সাথে তার শত বছরের ঐতিহ্যও চট্টগ্রামের সাথে জড়িত। এ এলাকার গুরুত্ব বিবেচনা করে চট্টগ্রাম উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ (সিডিএ) তার মাস্টার প্ল্যানে এ সিআরবিকে ‘নির্ধারিত স্ট্র্যাটেজিক ওপেন স্পেস’ ঘোষণা করে। আজ নগরের গুরুত্বপূর্ণ এ এলাকাটাও হুমকির মুখে। বর্তমান শাসক গোষ্টি রেলওয়ে অধিদপ্তরের এ এলাকার প্রায় ছয় একর জায়গা পিপিপি চুক্তির অধীনে একটা বেসরকারী প্রতিষ্ঠানকে দিয়েছে। এ বেসরকারী প্রতিষ্ঠান এ এলাকায় একটা বাণিজ্যিক হাসপাতালসহ নানা ধরণের স্থাপনা নির্মাণ করার তৎপরতা শুরু করেছে। এ এলাকায় হাসপাতাল ও বাণিজ্যিক স্থাপনা নির্মাণ করা হলে, পরিবেশের খুব ক্ষতিকর প্রভাব পড়বে। সে সাথে এ এলাকার জীববৈচিত্র ও শত বছরের ঐতিহ্যও পড়বে হুমকির মুখে।

বক্তার আরো বলেন, ‘হাসপাতাল শহরের নাগরিকদের জন্য খুব গুরুত্বপূর্ণ। কিন্তু বিদ্যমান যে সব হাসপাতাল রয়েছে, সেগুলো আধুনিকায়ন না করে , সাধারণ জনগণের সর্বোচ্চ চিকিৎসা পাওয়ার আয়োজন নিশ্চিত না করে আরো বাণিজ্যিক হাসপাতাল নির্মাণের করার মাধ্যমে সরকার ও সংশ্লিষ্ট মন্ত্রনালয় নির্দিষ্ট কিছু মুনাফা ভোগী ব্যবসায়ীর পক্ষ নিচ্ছে।’

নেতারা আরো বলেন, ‘দ্রুত সরকার ও রেলওয়ে মন্ত্রনালয়কে এ প্রাণ-প্রকৃতি বিধ্বংসী ও ঐতিহাসিকভাবে গুরুত্বপূর্ণ এলাকা ধ্বংসের তৎপরতা বন্ধ করতে হবে।’ সে সাথে সিডিএ ঘোষণা অনুযায়ী ‘স্ট্রেটেজিক ওপেন স্পেস’ হিসেবে এ এলাকায় কোন ধরণের স্থাপনা নির্মাণ না করার আহ্বান জানান ।

সরকার চট্টগ্রামের জনগণের দাবি দ্রুত মেনে না নিলে গণসংহতি আন্দোলন জনগনকে সাথে নিয়ে সিআরবিসহ শহরের প্রাণ-প্রকৃতি রক্ষার জন্য আন্দোলন গড়ে তুলবে।

প্রেস বার্তা

Share This Post

আরও পড়ুন