শিরোনাম
দুঃস্থ নারীদের নগদ টাকা উপহার দিল হিউম্যান সাপোর্ট ফাউন্ডেশন খালেদা জিয়ার রোগমুক্তি কামনায় বায়েজিদ থানা ছাত্রদলের মিলাদ ও ইফতার বিতরণ স্বেচ্ছাসেবকলীগ নেতা হেলাল উদ্দিনের অর্থায়নে ফ্রি সবজি বাজার আন্দরকিল্লায় রমজানে ডায়াবেটিস রোগীর সমস্যা, সমাধানে করণীয় ও হোমিওপ্রতিবিধান ইঞ্জিনিয়ার্স ইনস্টিটিউশন বাংলাদেশের ৭৩তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উদযাপন চট্টগ্রামে আজ মাহে রমজানের শেষ জুমা; জেনে নিন জুমাতুল বিদার মহত্ত্ব আলোচিত ‘নয়া দামান’ গানের মূল শিল্পী তোসিবা বেগম উপেক্ষিত নিষেধাজ্ঞা সত্ত্বেও ভারত থেকে প্রবেশ বাড়ছে আখাউড়া স্থল বন্দর দিয়ে বিয়ের আগে রক্ত পরীক্ষা কেন করবেন? সরকারিভাবে অন্তত ৯০০ টন অক্সিজেন মজুত আছে
শনিবার, ০৮ মে ২০২১, ০৭:৫৪ পূর্বাহ্ন

সিকিউরিটি গার্ডই চুরি করল চিটাগাং গ্রামার স্কুলে, ধরা পড়ল সিসিটিভি ক্যামেরায়

নিজস্ব প্রতিবেদক / ৬৭ বার এই সংবাদটি পড়া হয়েছে
প্রকাশের সময় : শুক্রবার, ১২ ফেব্রুয়ারী, ২০২১

চট্টগ্রাম: চট্টগ্রাম সিটির কোতোয়ালীর সার্সন রোডস্থ চিটাগাং গ্রামার স্কুলের সিকিউরিটি অফিসার মোশারফ হোসেন সুমন (৪৮) প্রতিদিনের মত গত ৯ ফেব্রুয়ারি সকাল দশটার দিকে স্কুলের তৃতীয় তলায় অধ্যক্ষ মাহিন খানের রুমের ভিতর চেক করলে দেখতে পান, রুমের ভিতরে একটি সিপিইউ এবং একটি মনিটর নাই। এ সময় অন্যান্য রুমে সব মালামাল ঠিক ঠাক আছে কিনা চেক করতে গিয়ে দেখেন, স্কুলের চতুর্থ তলায় কাউন্সিলর ফাতেমার রুমে একটি সিপিইউ, একটি মনিটর, কাউন্সিলর আরফানা রুমে একটি সিপিইউ, একটি মনিটর, কাউন্সিলর রুবাইনা রুমে একটি সিপিইউ নাই।

পরবর্তী মোশারফ হোসেন বিষয়টি স্কুল কর্তৃপক্ষকে জানালে চারিদিকে খোঁজাখুঁজি করে জানানোর জন্য বলেন। তিনি স্কুলে থাকা সিসিটিভি ক্যামেরার ফুটেজ চেক করে দেখেন, স্কুলের সিকিউরিটি গার্ড মো. নাহিদ আরমান জিসান (৩১) গত ৭ ফেব্রুয়ারি বিকাল আনুমানিক সাড়ে চারটার হতে সাড়ে পাঁচটা পর্যন্ত স্কুলের তৃতীয় তলায় অধ্যক্ষ এবং চতুর্থ তলায় কাউন্সিলরদের রুমের ভিতর হতে চারটি সিপিইউ, তিনটি মনিটর চুরি করে নিয়ে গিয়েছে।

মোশারফ হোসেন ও স্কুল কর্তৃপক্ষ বিষয়টি বুঝতে পেরে ১০ ফেব্রুয়ারি সকাল সাড়ে দশটার সময় স্কুলে ডিউটিরত অবস্থায় মো. নাহিদ আরমান জিসানকে আটক করে। তারা মালামাল চুরির বিষয়ে জিজ্ঞাসাবাদ করলে অসংলগ্ন কথা বলে আটক জিসান।

এ বিষয়ে মোশারফ হোসেন সুমন বাদী হয়ে কোতোয়ালি থানায় এজাহার দায়ের করলে মো. নাহিদ আরমান জিসানের বিরুদ্ধে একটি মামলা হয়।

তদন্তকারী অফিসার কোতোয়ালী থানার এসআই মোমিনুল হাসানের জিজ্ঞাসাবাদের চুরির কথা স্বীকার করে নাহিদ আরমান। চোরাই সিপিইউ এবং মনিটর কম দামে বাকলিয়ার কালামিয়া বাজার এলাকায় যুব উন্নয়ন কারিগরি কম্পিউটার প্রশিক্ষণ কেন্দ্রে মো. সেলিম উল্লাহর (৩৫) কাছে বিক্রি করেছে বলে জানায়। তার দেওয়া তথ্য মতে এসআই মোমিনুল হাসান বাকলিয়ার কালামিয়া বাজার এলাকায় অভিযান চালিয়ে যুব উন্নয়ন কারিগরি কম্পিউটার প্রশিক্ষণ কেন্দ্র থেকে মো. সেলিম উল্লাহকে তিনটি মনিটর এবং চারটি সিপিইউসহ গ্রেফতার করেন।

গ্রেফতারকৃত মো. নাহিদ আরমান জিসান চট্টগ্রাম নগরীর চাঁন্দগাও থানার ছয় নাম্বার ওয়ার্ডের ইলিয়াছ ব্রাদার্সের বাড়ীর জাহাঙ্গীর আলমের পুত্র ও মো. সেলিম উল্লাহ চট্টগ্রাম জেলার বাঁশখালী থানার পশ্চিম পুইদন্ডীর মৃত কবির আহম্মদের পুত্র।

add

আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই ক্যাটাগরির আরো সংবাদ