ঢাকারবিবার, ২৫শে সেপ্টেম্বর, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ
আজকের সর্বশেষ সবখবর

সিএমপির সন্ত্রাসী তালিকায় আবুল হাসেম বক্কর ও হাসান মুরাদ; যুবদলের নিন্দা ও প্রতিবাদ

পরম বাংলাদেশ ডেস্ক
মে ১১, ২০২১ ৩:৫৪ অপরাহ্ণ
Link Copied!

চট্টগ্রাম: চট্টগ্রাম মেট্রোপলিটন পুলিশের (সিএমপি) সদ্য প্রকাশিত সন্ত্রাসী তালিকায় চট্টগ্রাম মহানগর বিএনপির সদস্য সচিব আবুল হাসেম বক্কর ও নগর যুবদলের সহ-সভাপতি হাসান মুরাদের নাম দেওয়ার তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়েছে জাতীয়তাবাদী যুবদল চট্টগ্রাম মহানগর।

মঙ্গলবার (১১ মে) গণ মাধ্যমে পাঠানো যৌথ বিবৃতিতে চট্টগ্রাম মহানগর যুবদলের সভাপতি মোশাররফ হোসেন দীপ্তি এবং সাধারণ সম্পাদক মুহাম্মদ শাহেদ বলেন, ‘সারা দেশ যখন বৈশ্বিক মহামারী করোনার ভয়াল থাবায় বির্পযস্ত, ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগ তখন ক্ষমতা চিরস্থায়ী করার ফন্দি-ফিকিরে ব্যস্ত। মহানগর বিএনপির আবুল হাশেম বক্কর রাতা-রাতি বিএনপি নেতা হননি। বীর চট্টলার রাজপথই তার জ্বলন্ত উদাহরণ। যুবদলের রাজনীতি দিয়ে শুরু করে ওয়ার্ড, থানায় নেতৃত্ব দিয়ে একজন দক্ষ সংগঠক হিসাবে নগর যুবদলের সাধারণ সম্পাদক, পরবর্তী নগর যুবদলের সভাপতির দায়িত্ব পালন করেন সফলতার সাথে। যুবনেতা থেকে নিজের সাংগঠনিক রাজনীতির পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হয়েই নগর বিএনপির সাধারণ সম্পাদকের দায়িত্ব পালন করেন। কেন্দ্রীয় বিএনপির চট্টগ্রাম বিভাগীয় সহ-সাংগঠনিক সম্পাদকের দায়িত্ব ও পালন করেন বক্কর। সাবেক কেন্দ্রীয় বিভাগীয় সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক আবুল হাসেম বক্কর রাজপথ থেকে উঠে আসা জাতীয়তাবাদী আদর্শের উজ্জ্বল নক্ষত্র।’

তারা আরো বলেন, ‘নগর যুবদলের সহ-সভাপতি হাসান মুরাদ ৪০ নম্বর ওয়ার্ডের কৃতী সন্তান। ইউনিট যুবদলের রাজনীতি থেকে হাঁটি-হাঁটি পায়ে রাজপথের অগ্নি পরীক্ষায় যোগ্যতার প্রমাণ দিয়েই আজ মহানগর যুবদলের সহ-সভাপতির দায়িত্ব পালন করছেন। সিএমপি সন্ত্রাসী তালিকা প্রণয়নের নামে কৌশলে চট্টগ্রাম বিএনপির সাংগঠনিক কার্যক্রম দূর্বল করার ষড়যন্ত্রে লিপ্ত। আবুল হাসেম বক্কর একজন রাজনীতিবিদ, হাসান মুরাদ যুবনেতা। গায়েবী মামলার জালে নগর বিএনপি ও অঙ্গ সংগঠনের নেতা-কর্মীদের নামে অসংখ্য রাজনৈতিক মামলা। রাজনৈতিক মামলার আসামী আর সন্ত্রাসী এক নয়। সন্ত্রাসী কারা অতীত লিস্ট ঘাটলেই বের হয়ে আসবে। আওয়ামী লীগের শীর্ষ সন্ত্রাসীদের আড়াল করতেই বিএনপি দমনের নামে আজ এক মরনখেলায় মেতে উঠেছে পুলিশ প্রশাসনের একদল সুবিধা ভোগী।’

বিবৃতিতে বলা হয়েছে, রাজপথে মোকাবেলায় অক্ষম আওয়ামী লীগ গায়েবী মামলা, গায়ের জোরে ক্ষমতা দখল, মানুষের ভোটাধিকার হরণ করেও আজ তাদের কপালে চিন্তার ভাজ। বিদেশী প্রভুর দয়ায় দেশের স্বার্থ বিকিয়ে দিয়ে আওয়ামী লীগ দেউলিয়া হয়ে গেছে। বিএনপি একটি গণতান্ত্রিক রাজনৈতিক দল। সাবেক প্রেসিডেন্ট জিয়াউর রহমানের বাংলাদেশী জাতীয়তাবাদী আদর্শের এ দলে কোন সন্ত্রাসীর জায়গা নেই। বিএনপি ও অঙ্গ সংগঠনে আছে এক ঝাক জাতীয়তাবাদী আদর্শের বীর পুরুষ, দেশ প্রেমিক জিয়ার সৈনিক। সন্ত্রাসী কারা লালন করে, কারা সাজা প্রাপ্ত সন্ত্রাসীদের সাজা মওকুফ করে দেশবাসী অবগত আছেন। ক্ষমতালোভী আওয়ামী লীগ আজ দিশেহারা। করোনা মোকাবেলার ব্যর্থতা ঢাকতে নানা রকম নাটক মঞ্চায়নে ব্যস্ত। মানুষের দৃষ্টি সরানোই মূল লক্ষ্য।’

নগর যুবদল নেতৃবৃন্দ এ সময় নগর বিএনপির সদস্য সচিব আবুল হাশেম বক্কর ও নগর যুবদলের সহ-সভাপতি হাসান মুরাদসহ বিএনপি ও অঙ্গ সংগঠনের নেতা-কর্মীদের বাদ দিয়ে প্রকৃত সন্ত্রাসীদের তালিকা প্রকাশ করার আহ্বান জানান। দেশ ও জাতীর বৃহত্তর স্বার্থে পুলিশ প্রশাসনকে নিরপেক্ষভাবে রাষ্ট্রীয় দায়িত্বপালনের অনুরোধ জানান। পুলিশ একটি দলের হয়ে কাজ করতে পারে না। বাংলাদেশ পুলিশ বাহিনীর গৌরবোজ্জ্বল সোনালী ইতিহাস রয়েছে।

প্রেস বার্তা

Facebook Comments Box