বুধবার, ২২ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০৮:২৭ পূর্বাহ্ন

সিআরবি ইস্যুতে মন্ত্রী ও সাংসদদের ভূমিকা প্রশ্নবিদ্ধ

  • প্রকাশ : সোমবার, ৩০ আগস্ট, ২০২১
  • ১১৭ Time View

চট্টগ্রাম: চট্টগ্রামের প্রাকৃতিক সৌন্দর্যমণ্ডিত এবং বৃটিশ বিরোধী আন্দোলন ও মুক্তিযুদ্ধের স্মৃতি বিজড়িত সিআরবির প্রাণ-প্রকৃতি ধ্বংস করে বেসরকারি হাসপাতাল নির্মাণের প্রক্রিয়ার বিরুদ্ধে বিক্ষোভ সমাবেশ ও মিছিল করেছে বাংলাদেশের কমিউনিস্ট পার্টি চট্টগ্রাম জেলা কমিটি। সমাবেশ থেকে সিআরবিতে হাসপাতাল প্রকল্প দ্রুত বাতিলের দাবি জানানো হয়েছে। সিআরবির বাইরে চট্টগ্রামের অন্যত্র সরকারি মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল নির্মাণের দাবি জানানো হয়েছে।

শনিবার (২৮ আগস্ট) বিকালে সিআরবির সাত রাস্তার মোড়ে অনুষ্ঠিত সমাবেশে সভাপতিত্ব করেন সিপিবি চট্টগ্রাম জেলার ভারপ্রাপ্ত সভাপতি আবদুল নবী। সম্পাদক মন্ডলীর সদস্য নুরুচ্ছাফা ভূঁইয়ার সঞ্চালনায় বক্তব্য রাখেন কেন্দ্রীয় কমিটির সাধারণ সম্পাদক কমরেড মো. শাহ আলম, কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য মৃণাল চৌধুরী, চট্টগ্রাম জেলার সাধারণ সম্পাদক অধ্যাপক অশোক সাহা, সম্পাদক মন্ডলীর সদস্য মছিউদদৌলা, মো. জাহাঙ্গীর, অমৃত বড়ুয়া, প্রমোদ বরণ বড়ুয়া, নারী সেলের আহ্বায়ক রেখা চৌধুরী, বোয়ালখালী থানার সাধারণ সম্পাদক সেহাব উদ্দিন সাইফু, সীতাকুণ্ডের সহ-সম্পাদক জামাল উদ্দিন, যুব ইউনিয়ন চট্টগ্রাম জেলার সাংগঠনিক সম্পাদক রাশিদুল সামির, ছাত্র ইউনিয়ন চট্টগ্রাম জেলার সাধারণ সম্পাদক ইমরান চৌধুরী প্রমুখ।

সমাবেশে সিপিবি নেতারা বলেন, ‘সিআরবিতে হাসপাতাল প্রকল্প বাতিলের দাবি আজ চট্টগ্রামের আপামর মানুষের দাবিই শুধু নয়; এ দাবি সারা দেশের সব বিবেকবান মানুষের দাবি। বিভিন্ন দেশে অবস্থানরত বাঙালিরাও এ দাবিতে সোচ্চার হয়েছে। বাংলাদেশের কমিউনিস্ট পার্টি দায়িত্বশীল রাজনৈতিক দল হিসেবে জনগণের দাবির সঙ্গে একাত্মতা পোষণ করে এ দাবি আদায়ে রাজপথে অবস্থান নিয়েছে। আমাদের দাবি একেবারেই সুনির্দিষ্ট- সিআরবিতে কোন হাসপাতাল করা যাবে না। সিআরবির বাইরে চট্টগ্রামের অন্য যে কোন স্থানে আধুনিক মানসম্মত একটি সরকারি মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল নির্মাণ করতে হবে এবং চট্টগ্রামের অন্যান্য সরকারি হাসপাতাল গুলোকে আধুনিকায়ন করতে হবে। সিপিবি চট্টগ্রামে আর বিত্তবানদের প্রাইভেট হাসপাতাল চায় না। সিপিবি চায় গরীব-শ্রমজীবী মানুষের জন্য সরকারি উদ্যোগে আধুনিক চিকিৎসা সুবিধা। কারণ গরীব শ্রমজীবী সাধারণ মানুষের লাখ লাখ টাকা বিল দিয়ে প্রাইভেট হাসপাতালে চিকিৎসা করানোর সামর্থ্য নেই।’

সিপিবি নেতারা আরো বলেন, ‘সিআরবিতে হাসপাতালের বিরুদ্ধে সিপিবিসহ বিভিন্ন সংগঠন এবং আপামর মানুষ প্রায় দুইমাস ধরে আন্দোলন করে আসছে। চট্টগ্রামে এত মন্ত্রী, এমপি, মেয়র, এত জনপ্রতিনিধি- কেউ এ দাবির পক্ষে জোরালো কোনো অবস্থান নেননি। সিআরবি ইস্যুতে মন্ত্রী-এমপিদের ভূমিকা প্রশ্নবিদ্ধ। সরকারি দলের নেতারা শুধু একটাই কথা বলে- প্রধানমন্ত্রী জানতে পারলে প্রকল্প বাতিল করবেন। দুই মাস ধরে আন্দোলনের খবর কি প্রধানমন্ত্রীর কানে পৌঁছায়নি? আর কী করলে প্রধানমন্ত্রীর কাছে এ দাবি পৌঁছাবে?’

তারা বলেন, ‘আমরা সরকারের উদ্দেশে বলতে চাই- দেশে আজ হাজার হাজার লুটেরা দস্যু তৈরি হয়েছে। বাইশ পরিবারের স্থান দখল করেছে বাইশ হাজার লুটেরা দস্যু। এ লুটেরারা এখন সিআরবি ধ্বংস করতে চায়। চট্টগ্রামের প্রাকৃতিক সৌন্দর্যমণ্ডিত সব স্থান তারা ধ্বংস করেছে। উন্নয়নের নামে একের পর এক ধ্বংস করা হয়েছে চট্টগ্রামের প্রাণ-প্রকৃতি। এ শহরে এখন আর নিঃশ্বাস নেওয়ার জায়গা নেই। এ লুটেরা দস্যুদের লাগাম টানুন। ইউনাইটেড গ্রুপকে বলব- আপনারা সিআরবি থেকে হাত গুটান। চট্টগ্রামের জনগণ তাদের ফুসফুস ব্যবহার করে আপনাদের ব্যবসায় করতে দেবে না। এখনও সময় আছে।’

বক্তারা আরো বলেন, ‘সরকারকে বলব, কর্তৃত্ববাদী একগুঁয়ে আচরণের ফল ভাল হবে না। দ্রুত সিআরবিতে হাসপাতাল প্রকল্প বাতিল করে সিআরবির বাইরে একটি সরকারি মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল নির্মাণের ঘোষণা দিন। না হলে সিপিবি চট্টগ্রামের জনগণকে নিয়ে ঘেরাও-অবরোধসহ কঠোর কর্মসূচি দিতে বাধ্য হবে। জনতার দাবি আমরা আদায় করেই ছাড়ব।’

সমাবেশ শেষে লাল পতাকা সহকারে একটি বিক্ষোভ মিছিল সিআরবিসহ আশপাশের এলাকা প্রদক্ষিণ করে আবারো সাত রাস্তার মোড়ে এসে শেষ হয়।

প্রেস বার্তা

Share This Post

আরও পড়ুন