মঙ্গলবার, ১৭ মে ২০২২, ১২:৪২ পূর্বাহ্ন

শ্রমিকদের জন্য ‘বেপজা হেল্পলাইন’ সেবার উদ্বোধন

পরম বাংলাদেশ ডেস্ক
  • প্রকাশ : রবিবার, ২৮ মার্চ, ২০২১
  • ১২৪ Time View

ঢাকা: ‘বাংলাদেশ রপ্তানী প্রক্রিয়াকরণ এলাকা কর্তৃপক্ষ (বেপজা) সব সময় শ্রমিকদের সুরক্ষা ও নিরাপত্তাকে সর্বোচ্চ প্রাধান্য দেয়। ইপিজেডগুলোতে বিদ্যমান শ্রমিক-মালিক-ব্যবস্থাপনার ঐকতানেই এর প্রতিফলন ঘটে।’

রোববার (২৮ মার্চ) দুপুরে বেপজা নির্বাহী দপ্তরে ইপিজেডের শ্রমিকদের জন্য ‘বেপজা হেল্পলাইন’ সেবার উদ্বোধনকালে আইন, বিচার ও সংসদ বিষয়ক মন্ত্রী আনিসুল হক এ মন্তব্য করেন।

আইন, বিচার ও সংসদ বিষয়ক মন্ত্রী ইপিজেডে ফোন কলের মাধ্যমে প্রধান অতিথি হিসেবে বেপজা হেল্পলাইনের আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করেন।

আইন মন্ত্রী আরো বলেন, ‘শ্রমিকদের সুযোগ-সুবিধা নিশ্চিত করার লক্ষ্যে সরকার বিভিন্ন পদক্ষেপ নিয়েছে। প্রধানমন্ত্রীর নেতৃত্বে বিগত দশকে বাংলাদেশ অর্থনৈতিক প্রবৃদ্ধিতে ব্যাপক সাফল্য লাভ করেছে। ভৌগোলিক অবস্থান, সহজে প্রশিক্ষণযোগ্য ও সহজলভ্য শ্রমশক্তির প্রাচুর্যতা এবং পরিমিত উৎপাদন ব্যায়ে এশিয়া এমনকি বিশ্বে বাংলাদেশ বিনিয়োগের প্রধান আকর্ষণক্ষেত্রে পরিণত হয়েছে ‘

প্রধানমন্ত্রীর মুখ্য সচিব ড. আহমদ কায়কাউস বিশেষ অতিথি হিসেবে অনুষ্ঠানে উপস্থিত থেকে বলেন, ‘বেপজা শ্রমিকদেও স্বার্থ রক্ষায় একটি অনন্য সংস্থা।’

ইপিজেডের শ্রমিকদের জন্য হেল্পলাইন চালুর উদ্যোগের প্রশংসা করে তিনি বলেন, ‘অন্য শিল্প প্রতিষ্ঠান ও সংস্থায়ও শ্রমিকদের কল্যাণে এ ধরনের উদ্যোগ গ্রহণে উৎসাহিত হবে।’ ঢাকা ইপিজেড স্থাপনের আগে ও পরে সাভার ও আশুলিয়া অঞ্চলের চিত্র উল্লেখ করে তিনি বলেন, ‘ঢাকা ইপিজেডের এলাকাকে একটি শিল্পাঞ্চলে পরিণত করেছে।’

তিনি বেপজার কার্যক্রমের প্রশংসা করেন এবং প্রতিষ্ঠানের আরো সাফল্য কামনা করেন।

বেপজার নির্বাহী চেয়ারম্যান মেজর জেনারেল মো. নজরুল ইসলাম স্বাগত বক্তব্যে হেল্পলাইনের (১৬১২৮) পটভূমি ও উদ্দেশ্য বর্ণনা করেন। হেল্প লাইনটিকে মুজিব জন্মশতবর্ষকে উৎসর্গ করে তিনি বলেন, ‘ডিজিটাল বাংলাদেশে এটি একটি মাইলফলক এবং কর্মক্ষেত্রে নিরাপত্তা এবং শ্রমিকদের অধিকার নিশ্চিত করতে সরকারের যে প্রতিশ্রুতি; তা পূরণ করবে।’

এটি শ্রমিকদের অভিযোগ নিষ্পত্তি এবং কার্যপরিবেশের যথার্থ উন্নয়নে সহায়তা করবে বলেও উল্লেখ করেন তিনি।

বাংলাদেশে ইউরোপীয় ইউনিয়নের রাষ্ট্রদূত ও ডেলিগেশন প্রধান রেন্সজে তেরিংক বলেন, ‘বেপজা তথা বাংলাদেশ বৈচিত্রময় পণ্য উৎপাদনের পথে এগিয়ে চলেছে।’ তিনি ইপিজেডের বিদ্যমান কর্মপরিবেশে সন্তোস প্রকাশ করে বলেন, ‘ইউরোপীয় ইউনিয়ন শ্রমিক কল্যাণে গৃহীত যেকোন পদক্ষেপে সহায়তা করতে প্রস্তুত।’

আর্ন্তজাতিক শ্রম সংস্থার (আইএলও) বাংলাদেশের কান্ট্রি ডিরেক্টর তোমো পাউটিনেন বলেন, ‘বেপজা শ্রমিকদেও অধিকার রক্ষা, কর্মস্থলে নিরাপত্তা এবং সামাজিক নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে অগ্রণী ভূমিকা পালন করছে।’ তিনি ইপিজেডের শ্রমিকদেও জন্য হেল্পলাইন চালুর উদ্যোগকে সাধুবাদ জানান।

অনুষ্ঠানে অন্যদের মধ্যে আইন, বিচার ও সংসদ বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের লেজিসলেটিভ ও সংসদ বিভাগের সচিব মো. মইনুল কবির, শ্রম ও কর্মসংস্থান মন্ত্রণালয়ের সচিব কেএম আব্দুস সালাম, বেজার নির্বাহী চেয়ারম্যান পবন চৌধুরীউপস্থিত ছিলেন।

উল্লেখ্য, বেপজায় ২০২১ সালের ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত বেপজাধীন ইপিজেডসমূহের বিভিন্ন কোম্পানিতে চার লাখ ২৩ হাজার বাংলাদেশি নাগরিক কর্মরত রয়েছেন। বেপজা শুরু থেকে এ পর্যন্ত বিনিয়োগ লাভ করেছে ৫ হাজার ৫১৬ মিলিয়ন মার্কিন ডলার এবং রপ্তানি করেছে ৮৪ হাজার ৭৮১ মিলিয়ন মার্কিন ডলার সমমূল্যের পণ্যসামগ্রী।

প্রেস বার্তা

Share This Post

আরও পড়ুন