মঙ্গলবার, ০৫ জুলাই ২০২২, ০৩:০৩ অপরাহ্ন

শেঠ প্রপার্টিজের সহযোগিতায় জামাল খানে ‘বই বিনিময় উৎসব’ অনুষ্ঠিত

পরম বাংলাদেশ
  • প্রকাশ : শুক্রবার, ১২ মার্চ, ২০২১
  • ৩৪২ Time View

চট্টগ্রাম: ফেইল্ড ক্যামেরা স্টোরিজের উদ্যোগে এবং শেঠ প্রপার্টিজ লিমিটেডের সহযোগিতায় ভিন্নধর্মী অনুষ্ঠান ‘বই বিনিময় উৎসব’ চট্টগ্রাম নগরীর জামালখান মোড়ে (১১ মার্চ) বৃহস্পতিবার দিনব্যাপী অনুষ্ঠিত হয়।

সকাল ১১টায় উৎসবের উদ্বোধন করেন জাতীয় পার্টি চট্টগ্রাম মহানগরের সভাপতি এবং শেঠ প্রপার্টিজ লিমিটেডের ব্যবস্থাপনা পরিচালক মোহাম্মদ সোলায়মান আলম শেঠ।

ফেইল্ড ক্যামেরা স্টোরিজে পরিচালক সাইদ খান সাগরের সভাপতিত্বে উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি ছিলেন ২১ মম্বর জামালখান ওয়ার্ডের কাউন্সিলর শৈবাল দাশ সুমন এবং শেঠ গ্রুপের হেড অব এইচআর বাসুদেব রুদ্র।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে সোলায়মান আলম শেঠ বলেন, ‘আমরা সব সময় চাই, মানুষ জ্ঞান বিজ্ঞানে এগিয়ে যাক, দেশের হাল ধরুক তরুণ প্রজন্ম। তরুণরাই আমাদের আগামী দিনের ভবিষ্যৎ। বই মানুষকে জ্ঞানী ও মননশীল হতে সাহায্য করে, বইয়ের কোন বিকল্প নেই।’

তিনি আরো বলেন, ‘ফেইসবুক আসার কারণে তরুণদের মধ্যে বইপড়ার প্রবণতা কমেছে। তরুণ প্রজন্মকে প্রাতিষ্ঠানিক শিক্ষার বই পড়ার পাশাপাশি বিভিন্ন ধরণের বই পড়ার জন্য উৎসাহ দিতে হবে।’

সোলায়মান আলম শেঠ বলেন, ‘আমরা সব সময় ভিন্নধর্মী অনুষ্ঠানের সাথে থাকতে চাই। শেঠ প্রপার্টিজ এবং আমি ব্যক্তিগতভাবে অতীতে ও বিভিন্ন অনুষ্ঠান আর্থিক সহযোগিতা করেছি। তরুণরা যাতে মাদকের কবল থেকে দূরে থাকে, নেশাকে যাতে না বলে সে বিষয়ে সবাইকে সচেতন থাকতে হবে।’

৪১টি ওয়ার্ড ‘বই বিনিময় উৎসব ও মাদককে না বলুন’ শীর্ষক অনুষ্ঠান আয়োজন করলে তিনি পাশে থাকার প্রত্যয় ব্যক্ত করেন।

শৈবাল দাশ সুমন বলেন, ‘তরুণদের মননশীলতা বৃদ্ধি করার জন্য বই পড়ার বিকল্প নেই। তাই সবাইকে বই পড়ার জন্য উৎসাহিত করুন।’

এ ধরনের অনুষ্ঠানে আর্থিক সহযোগিতা করার জন্য শেঠ প্রপার্টিজের প্রতি ধন্যবাদ ও কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেন তিনি।

বাসুদেব রুদ্র বলেন, ‘বই বিনিময় উৎসবে সহযোগিতা করতে পেরে আমরা আনন্দিত ও গর্বিত। তরুণরা বই পড়ে মননশীল জাতি হিসেবে গড়ে উঠবে বলে আমার দৃঢ় বিশ্বাস।’

সাইদ খান সাগর বলেন, ‘আমরা বিশ্বাস করি, বই মানুষকে মননশীল জাতি গড়তে সহায়তা করবে। করোনার কারণে এ বছর একুশে বই মেলা করতে দেরি হচ্ছে। তবে বই মেলায় মানুষ টাকা দিয়ে বই কিনে, আমাদের এ ভিন্নধর্মী বই বিনিময় উৎসবে একজন ব্যক্তির তার আগের পড়া বই রেখে একই ক্যাটাগরীর বই তিনি আমাদের কাছ থেকে নিয়ে যেতে পারছেন। যেমন- কেউ যদি গল্পের বই নিয়ে আসেন তিনি তার গল্পের বই রেখে দিয়ে আমাদের সংগ্রহকৃত বই থেকে অন্য একটি গল্পের বই বিনামূল্যে নিয়ে যেতে পারবেন। যার কারণে আমরা বলছি, বই নয়, জ্ঞানের বিনিময় ঘটাচ্ছি আমরা।’

বই বিনিময় উৎসবটি (১১ মার্চ) বৃহস্পতিবার সকাল ১১টায় শুরু হয়ে রাত আটটায় শেষ হয়।

উৎসবটির আয়োজনে সহযোগিতায় ছিল চট্টগ্রামের অন্যতম আবাসন শিল্প প্রতিষ্ঠান শেঠ প্রপার্টিজ লিমিটেড।

প্রেস বার্তা

Share This Post

আরও পড়ুন