ঢাকাবৃহস্পতিবার, ৮ই ডিসেম্বর, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ
আজকের সর্বশেষ সবখবর

মশা নিধনে ঢাকার মত বরাদ্দ চান চসিকের মেয়র রেজাউল

চট্টগ্রাম
অক্টোবর ২৭, ২০২২ ১০:১৫ অপরাহ্ণ
Link Copied!

চট্টগ্রাম: ২০২৩ সাল হবে চট্টগ্রাম নগর উন্নয়নের বছর উল্লেখ করে চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশনের মেয়র মো. রেজাউল করিম চৌধুরী বলেছেন, ‘শেখ হাসিনা চট্টগ্রাম সিটির উন্নয়নে আড়াই হাজার কোটি টাকা বরাদ্দ দিয়েছেন। সেই বরাদ্দকৃত অর্থ দিয়ে সিটির উন্নয়ন দৃশ্যমান করতে হবে। আগামী ডিসেম্বরে কর্ণফুলী নদীর তলদেশে বঙ্গবন্ধু ট্যানেল চালু হলে সিটির সড়কগুলোর উপর চাপ পড়বে। সেই বিষয়টিকে গুরুত্ব দিয়ে সঠিকভাবে উন্নয়ন কাজ করতে হবে।’

বৃহস্পতিবার (২৭ অক্টোবর) সকালে চসিকের পুরাতন নগর ভনের কেবি আবদুস সত্তার মিলনায়তনে ষষ্ঠ নির্বাচিত পরিষদের ২১তম সাধারণ সভায় তিনি এ কথা বলেন। চসিকের সচিব খালেদ মাহমুদের সঞ্চালনায় এতে বক্তব্য দেন প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা মোহাম্মদ শহীদুল আলম, প্যানেল মেয়র, কাউন্সিলর, বিভাগীয় ও শাখা প্রধানরা।

সভায় সভাপতির বক্তৃতায় ডিসেম্বরের মধ্যে অন্তত: এক হাজার ২০০ কোটি টাকার টেন্ডার আহবান করে শুষ্ক মৌসুমের মধ্যে কাজগুলোর গুনগতমান বজায় রেখে দ্রুত সম্পন্ন করার জন্য প্রকল্প পরিচালক ও প্রধান প্রকৌশলীকে নিদের্শনা দেন রেজাউল করিম।

মেয়র আরো বলেন, ‘সম্প্রতি ঘূর্নিঝড় সিত্রাংয়ের আঘাতে সিটির উপকূলীয় এলাকা ও বাংলাদেশের বৃহত্তম ভোগ্য পণ্যের পাইকারী বাজার খাতুনগঞ্জ, চাক্তাইয়ে যে পরিমাণ ক্ষতি হয়েছে, তা অবর্ণনীয়। ৩৭ নম্বর ওয়ার্ডে স্লুইস গেইটের কারণে জলোচ্ছাসে কৃষি জমির ফসলের ব্যাপক ক্ষতি হয়েছে।’

সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ ববরাবরে ক্ষতিগ্রস্থ ফসলি জমির ক্ষতিপূরণ দিয়ে সর্বাত্মক সহযোগিতার আহবান জনান তিনি।

রেজাউল করিম আরো বলেন, ‘চসিকের সাবেক মেয়র এবিএম মহিউদ্দিন চৌধুরী আয় বর্ধক প্রকল্পের মাধ্যমে চসিককে একটি স্বয়ং সম্পূর্ণ প্রতিষ্ঠান হিসেবে গড়ে তুলেছিলেন। পরবর্তী সেসব আয়বর্ধক প্রকল্পগুলো মুখ থুবড়ে পড়েছে। সিটির কোথায়-কোথায় সিটি করপোরেশনের স্থাবর ও অস্থাবর সম্পদ রয়েছে, তার একটি প্রতিবেদন তৈরি করে জানানোর জন্য বলা হলেও আজ পর্যন্ত সেই প্রতিবেদন পাওয়া যায় নি। এছাড়া চসিকের যেসব মার্কেট রয়েছে, সেগুলোর কি অবস্থা, আয়ের পরিমাণসহ প্রকৃত হিসাব পাওয়া যায় নি। এমনকি চসিকের যে ভূ-সম্পত্তিগুলোর নামজারি পর্যন্ত সম্পন্ন হয় নি।’

তিনি এস্টেট শাখাকে তিন ভাবে বিভক্ত করে ভূ-সম্পত্তি শাখাকে গতিশীল করা পদক্ষেপ নেয়ার জন্য সংশ্লিষ্টদের নিদের্শনা দেন। সেই সাথে সভায় ভূ-সম্পত্তি শাখার জন্য আলাদা একটি স্থায়ী কমিটি গঠনেরও সিদ্ধান্ত গৃহীত হয়।

মেয়র আরো বলেন, ‘মশা নিধন কার্যক্রম সিটির সব ওয়ার্ডে সঠিকভাবে পরিচালনার জন্য ক্র্যাশ প্রোগ্রাম চলমান আছে। তা অব্যাহত এবং ডেঙ্গু ও চিকুনগুনিয়া রোগ প্রতিরোধে জনগনকে সচেতন করার জন্য মোবাইল কোর্ট অব্যাহত রাখা ও প্রচার-প্রচারণা আরো জোরদার করতে হবে।’

তিনি ঢাকায় প্রতিটি সিটি করপোরেশনের মশা নিধনের জন্য দুই কোটি টাকার যে বরাদ্দ দেয়া হয়, চসিকের আয়তন বিবেচনায় সে পরিমাণ বরাদ্দ দেয়ার জন্য আবেদন করা হবে বলে উল্লেখ করেন।

রাজস্ব আদায়ের ক্ষেত্রে গতিশীলতা আনয়নে গুরুত্বারোপ করে মেয়র বলেন, ‘প্রধান রাজস্ব কর্মকর্তা কর আদায়ে কঠোরতা অবলম্বন না করলে রাজস্ব আয় হ্রাস পাবে। ফলে চসিকের বিশাল জনবলের বেতন ভাতা ও সিটির চলমান উন্নয়ন কাজ থমকে যাবে।’ তিনি রাজস্ব বিভাগকে নতুনভাবে ঢেলে সাজানোর জন্য প্রধান রাজস্ব কর্মকর্তাকে নির্দেশনা দেন। এছাড়া নালার উপর অনুমোদনহীন যে স্ল্যব স্থাপিত হয়েছে, যেসব স্ল্যাবের সুনিদিষ্ট পরিমাণ নির্ণয় করে যথাযথ ফি আদায়ে নির্দেশনা দেন। এ ছাড়া রাজস্ব আদায়ে ক্ষেত্রে কোন কর্মকর্তা-কর্মচারীর দুর্নীতির অভিযোগ পাওয়া গেলে সাথে সাথে তাদের বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা এমনকী চাকুরীচ্যূত করা হবে বলে হুঁশিয়ারী উচ্চারণ করেন।

বিদ্যুৎ বিভাগের উদ্দেশ্য মেয়র বলেন, ‘চসিক এলাকায় কোন সড়ক বাতি না জ্বললে, সেই এলাকার সুপারভাইজারসহ সংশ্লিষ্টদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হবে। শহরে আলোকায়নে বাল্ব ও টিউব লাইটসহ প্রয়োজনীয় সব মালামাল অন্তত ছয় মাসের জন্য মজুদ রাখার ব্যবস্থা নিতে হবে। চসিকের বর্তমানে যে দুইটি টেন্সিং গ্রাউন্ড আছে, তাতে আগামী কয়েক মাসের পর আবর্জনা রাখা অসম্ভব হয়ে পড়বে বিধায় হাটহাজারী এলাকায় নতুন টেন্সিং গ্রাউন্ড স্থাপনের জন্য ভূমি জোগাড়ের প্রচেষ্টা করা হচ্ছে। অন্য দিকে, মাদার বাড়িস্থ চসিকের জায়গাটি সংস্কার করে সেখানে যান্ত্রিক বিভাগের যানবাহন গুলো রক্ষনাবেক্ষণ ও মেরামতের ব্যবস্থা নেয়া হবে।’

তিনি চট্টগ্রাম ওয়াসা কর্তৃক অনুমতিবিহীন রাস্তা কাটা থেকে বিরত থাকারসহ যে সড়ক কর্তন ফি জমা দেবে, তার বাহিরে সড়ক কর্তন করলে চট্টগ্রাম ওয়াসা কর্তৃপক্ষ, ঠিকাদার ও চসিকে দায়িত্বরত প্রকৌশলীকে জবাব দিহিতার আওতায় আনার ঘোষণা দেন। তিনি ওয়াসার কর্তৃক সড়ক কাটার ব্যাপারে কোন কোন সড়ক কাটার পরিকল্পনা আছে, তা চসিককে ছয় মাস আগে অবহিত করার আহাবন জানান।

সভায় মোহরা ছাফা মোতালেব কলেজের প্রতিষ্ঠাতার আবেদনের প্রেক্ষিতে প্রতিষ্ঠানটিকে চসিকের অধিভূক্ত করার জন্য প্রস্তাব সবার সম্মতিক্রমে গৃহিত হয়।

সভার শুরুতে চট্টগ্রাম উন্নয়ন কর্তৃপক্ষের মাধ্যমে বাস্তবায়নকৃত এলিভেটর এক্সপ্রেস ওয়ের উপর একটি প্রতিবেদন উপস্থাপন করা হয়। প্রতিবেদন উপস্থাপনকালে কাউন্সিলররা কোন কোন স্থানে কী সমস্যা আছে, তা প্রকল্প পরিচালককে অবগত করেন। প্রকল্প পরিচালক এ ব্যাপারে উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষেকে অবগত করবেন ও উভয় সংস্থার সমন্বয়ে একটি কমিটি গঠনের প্রস্তাব করেন।

Facebook Comments Box