শিরোনাম
এস আলম গ্রুপের বিদ্যুৎ কেন্দ্রে পুলিশের গুলিতে শ্রমিক হত্যার প্রতিবাদে বিক্ষোভ সমাবেশ গ্যালাক্সি এম০২ হ্যান্ডসেটে ১০০ দিনের রিপ্লেসমেন্ট ওয়্যারেন্টি দিচ্ছে স্যামসাং বাঁশখালীতে গুলি করে শ্রমিক হত্যা; সমাজতান্ত্রিক ছাত্র ফ্রন্ট চট্টগ্রামের তীব্র নিন্দা আন্তর্জাতিক ফ্লাইট স্থগিতকরণ প্রভাব ফেলছে পদ্মা সেতু রেল সংযোগ ও অন্য মেগা প্রকল্পে বাঁশখালীতে এস আলম গ্রুপের কয়লা বিদ্যুৎ কেন্দ্রে শ্রমিক নিহতে খেলাফত মজলিসের নিন্দা বীমা খাতে প্রথম ‘তিন ঘন্টায় কোভিড ক্লেইম ডিসিশন’ সার্ভিস চালু মেটলাইফের মুজিবনগর সরকারের ৪০০ টাকার চাকুরে জিয়ার বিএনপি ইতিহাসকে অস্বীকার করতে চায় ধারাবাহিক ছোট গল্প: পতিতার আলাপচারিতা । পর্ব পাঁচ এস আলম গ্রুপের কয়লা বিদ্যুৎকেন্দ্রে পুলিশের গুলিতে শ্রমিক হত্যার নিন্দা ও বিচার দাবি সাতকানিয়ায় সোয়া কোটি টাকার ৩৮ হাজার ইয়াবাসহ ট্রাক চালক ও হেলপার গ্রেফতার
রবিবার, ১৮ এপ্রিল ২০২১, ০৮:২০ পূর্বাহ্ন

মনের মিলই হচ্ছে আসল সম্পর্ক

নুরুন্নবী নুর / ২৪ বার এই সংবাদটি পড়া হয়েছে
প্রকাশের সময় : সোমবার, ২৯ মার্চ, ২০২১
নুরুন্নবী নুর

নুরুন্নবী নুর: এখনো সমাজে সভ্যতার বিকাশ ঘটেনি। ছেলের (পাত্র) জন্য মেয়ে (পাত্রী) দেখতে গেলে সব খুঁটিয়ে খুঁটিয়ে দেখা হয়। দেখা হয়, মেয়ের চুল লম্বা কিনা, পিছনে চুলটা কতটুকু নামল, হাঁটা কিরূপ, মেয়ের পায়ের অংশ দেখে নেয়; কোন প্রকার খুঁত আছে কিনা, চোখের নিচে কোন কালি পড়ল কিনা, মুখে দাগ আছে কিনা, বেটে কিনা, বাবা-মা আছে কিনা, ভাই আছে কিনা, পর্যাপ্ত পরিমাণে সম্পদ আছে কিনা, বোন বেশি (অবিবাহিত) থাকলে সমস্যা, সম্বন্ধটা ছেলের বাড়ীর কাছে কিনা দূরে হলে হবে না, পড়াশোনা কতটুকু করল। তাছাড়া বয়সের বিষয়তো আছেই ইত্যাদ ইত্যাদি।

উপর্যুক্ত বিষয়গুলো ছেলের অনুকূলে থাকলে একটা সম্পর্ক গড়া হয়। এরূপ চিন্তা-ভাবনা করে সম্পর্ক গড়ে তোলা হয় দুইজন ছেলে-মেয়ের মধ্যে। আমি ঠিক বলতে পারি না, সম্পর্কগুলো কতটুকু দীর্ঘ স্হায়ী হয়, যেখানে দুইজনের মতের কোন বালাই নেই। যেখানে দাস প্রথার মত মেয়ে নির্বাচন করে ছেলের জন্য নিয়ে আসা হয়, সেটা সম্পর্ক হিসেবে অন্তত আমি মেনে নিব না। সেটা সবার মতে সম্পর্ক হলেও আমি মনে করি, এটা গরুর হাট থেকে গরু কিনে জবাই দেয়ার মত বিষয়।

অভূতপূর্ব সমাজ সভ্যতার বিকাশ, বিজ্ঞানের অগ্রগতি এবং প্রযুক্তির উৎকর্ষের যুগে বর্তমানেও যদি মেয়েদের এরূপ পরীক্ষা দিয়ে ছেলেদের ঘরে পাঠানো হয়, তাহলে আমি মনে করি, এখনও পৃথিবীটা অন্ধকার যুগেই আছে। কোন পরিবর্তন-বিবর্তন হয়নি। সব বানোয়াট, লোক দেখানো। যত দিন ছেলেদের দৃষ্টিভঙ্গি পরিবর্তন হবে না, তত দিন অন্ধকার যুগ চলমান থাকবে।

মানুষের বাইরে দেখে চরিত্র নির্বাচন করা আর অন্ধকারে ঢিল মেরে শত্রু নিধন করা একই কথা। মানুষের ভেতরটা চিনতে হবে। মনের মিলই হচ্ছে আসল সম্পর্ক। সে মিলই পবিত্র। সেই মিলে বয়স থেকে শুরু করে যত বিশ্রী মেয়েছেলে হোক কিংবা যত ধরনের খুঁতই থাকুক না কেন, সম্পর্ক হবেই। দুইটি আত্মার মিলনে প্রকৃত সম্পর্ক বেরিয়ে আসে।

লেখক: চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের নাট্যকলা বিভাগের প্রাক্তন শিক্ষার্থী

add

আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই ক্যাটাগরির আরো সংবাদ