বৃহস্পতিবার, ০৬ মে ২০২১, ১০:০৭ অপরাহ্ন

ব্যবসায়ে গবেষণা না থাকার কারণে অনেক পরিকল্পনা মুখ থুবড়ে পড়ে

পরম বাংলাদেশ / ৫৯ বার এই সংবাদটি পড়া হয়েছে
প্রকাশের সময় : সোমবার, ১৫ মার্চ, ২০২১

চট্টগ্রাম: বাংলাদেশ বিজনেস রিসার্স এন্ড ডেভেলাপমেন্ট কাউন্সিলের (বিবিআরডিসি) উদ্যোগে ২০২১-২০২২ অর্থ বছরের প্রাক বাজেট আলোচনা অনুষ্ঠিত হয়েছে।

শনিবার (১৩ মার্চ) সন্ধ্যায় নগরীর এমএ আজিজ আউটার স্টেডিয়ামস্থ একটি রেস্টুরেন্টে এ সভা অনুষ্ঠিত হয়।

এতে প্রধান অতিথি ছিলেন কেডিএস গ্রুপের চিফ ফিনানসিয়াল অফিসার (সিএফও) ও আইসিএবি চট্টগ্রাম রিজিওনের সাবেক চেয়ারম্যান মো. কামরুল হাসান। বিশেষ অতিথি ছিলেন ইংরেজি দৈনিক দ্য বিজনেস স্ট্যান্ডার্ড’র চট্টগ্রাম ব্যুরো চিফ শামছুদ্দিন ইলিয়াছ এবং জমজম সুইটস এন্ড বেকস’র ব্যবস্থাপনা পরিচালক মো. আশরাফ উদ্দিন।

প্রাক বাজেট আলোচনায় বক্তারা ২০২১-২০২২ অর্থ বছরের বাজেটে কর জাল সম্প্রসারণ, রাজস্ব খাতে প্রযুক্তির ব্যবহার বৃদ্ধি, কর বিভাগে স্বচ্ছতা ও জবাবদিহিতা আনয়ন এবং কর ভীতি রোধ করে করদাতাবান্ধব পরিবেশ সৃষ্টিতে নানা প্রস্তাবনা তুলে ধরেন ।

দ্য বিজনেস স্ট্যান্ডার্ড’র স্টাফ রিপোর্টার ও বিবিআরডিসির প্রতিষ্ঠাতা সদস্য শাহাদাৎ হোসেন চৌধুরী সভা সঞ্চালনা করেন। এতে সভাপতিত্ব এবং মুল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন বিবিআরডিসির প্রতিষ্ঠাতা সদস্য কেপিআই সর্ভিস বিডির সিইও প্রিয় দে।

মো; কামরুল হাসান বলেন, ‘দেশে দূর্নীতির পাশাপাশি আরেকটি বড় সমস্যা দক্ষ জনবল। বাজেটে দক্ষ জনবল তৈরি করতে বরাদ্দ রাখতে হবে। দেশের রপ্তানি শিল্প শুধুমাত্র তৈরি পোশাক কেন্দ্রিক। রপ্তানি শিল্পে বহুমুখী পণ্যের প্রসার ঘটাতে হবে। ব্যবসায়ে গবেষণা না থাকার কারণে অনেক পরিকল্পনা মুখ থুবড়ে পড়ে। ফলে গবেষণা খাতেও বরাদ্দ রাখতে হবে। এক্ষেত্রে বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়গুলোকে গবেষণা খাতে বরাদ্দ বাড়ানো খুবই জরুরী।’

শামছুদ্দিন ইলিয়াছ করোনার এ দু:সময়ে ক্ষুদ্র ব্যবসায়ীদের খন্ডকালীন ট্রেড লাইসেন্স নবায়ন ফি মওকুফ করার প্রস্তাব করে বলেন, ‘করোনায় অনলাইন এবং অফলাইন ব্যবসায়ে ভারসাম্য বজায় রাখার জন্য অনলাইন ব্যবসায় করারোপ জোরদার করতে হবে।’

তিনি আরো বলেন, ‘তথ্য প্রযুক্তির এ যুগে এখনো ম্যানুয়েল পদ্ধতিতে আয়কর রিটার্ন দাখিল দুর্ভাগ্যের বিষয়। তাই রিটার্ন দাখিলসহ সব কার্যক্রম অনলাইন ভিত্তিক করা অত্যন্ত জরুরী।’

আশরাফ উদ্দিন টিআইএন এবং এর হালনাগাদের তথ্য যাচাইয়ের জন্য জাতীয় রাজস্ব বোর্ডকে বিশেষ প্রযুক্তি ব্যবহার এবং করজাল সম্প্রসারণে মাস্টারপ্ল্যান করার প্রস্তাব করেন।

প্রিয় দে বলেন, ‘বাংলাদেশ ব্যাংক কর্তৃক পরিচালিত সঞ্চয়পত্রের সুদের হার এবং তালিকাভুক্ত ব্যাংকে আমানতের সুদের হারের মধ্যে ব্যবধান থাকার ফলে তালিকাভুক্ত ব্যাংকগুলোতে আমানত সংগ্রহে নেতিবাচক প্রভাব পড়ছে।’

এক্ষেত্রে তিনি সঞ্চয়পত্রের সুদের হার এবং সঞ্চয়পত্র ক্রয়ের সীমা কমিয়ে আনার প্রস্তাব করেন।

সভায় বক্তারা বলেন, ‘একটি অংশগ্রহণমূলক, গণমুখী, ব্যবসা ও করদাতাবান্ধব এবং রাজস্ব সম্ভাবনাময় সুষম বাজেট প্রণয়নের লক্ষ্যে আমাদের এ বাজেট প্রস্তাবনাসমূহ আগামী ২০২১- ২০২২ অর্থ বছরের রাজস্ব আহরণ কার্যক্রমকে অধিকতর অর্থবহ ও প্রতিনিধিত্বশীল করবে।’

সভায় আরো বক্তব্য রাখেন বিজিসি ট্রাস্ট ইউনিভার্সিটির বিজনেস এডমিনিষ্ট্রেশন বিভাগের অধ্যাপক এরশাদ খান, সুপ্রিম কোর্টের এডভোকেট শাহাদাত হোসেন, ইমপেরিয়াল হাসপাতালের এসিসট্যান্ট ম্যানেজার সবুজ দাস, অগ্রণী ব্যাংকের সিনিয়র অডিটর বিজয় পাল, সোনালী ব্যাংকের সিনিয়র অফিসার খায়রুল আমিন, বিএসআরএমের সাপ্লাইচেইন অফিসার মনজুর হোসাইন, চট্টগ্রাম ওয়াসার একাউন্টস অফিসার রক্তিম দেব, বাংলাদেশ চা বোর্ডের একাউন্টস অফিসার সাগর নন্দী।

সংবাদ বিজ্ঞপ্তি

add

আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই ক্যাটাগরির আরো সংবাদ