শিরোনাম
প্রধানমন্ত্রীর সহায়তা তহবিলে এক কোটি টাকা অনুদান দিল চট্টগ্রাম চেম্বার প্রাথমিক বিদ্যালয় ও কিন্ডারগার্টেনের ছুটি বাড়ল ৩০ জুন পর্যন্ত নিষিদ্ধ জঙ্গি সংগঠন আনসার আল ইসলাম’র আইটি বিশেষজ্ঞ গ্রেফতার চট্টগ্রামে সাদার্ন ইউনিভার্সিটিতে দুই মাসব্যাপী আন্তঃবিভাগ বির্তক প্রতিযোগিতা শুরু নাভানাসহ সীতাকুণ্ডের সব কারখানায় ঈদুল আজহার আগে শ্রমিকদের বেতন-বোনাস দাবি পরিবেশ বিষয়ক গল্প : মন পড়ে রয় । নাজিম হোসেন শেখ পিএইচপি অটো মোবাইলসের তৈরি অ্যাম্বুলেন্স উপহার পেল চট্টগ্রাম জেনারেল হাসপাতাল সোতোকান কারাতে স্কুল চট্টগ্রামের কারাতে বেল্ট প্রতিযোগিতা সম্পন্ন চট্টগ্রামের পাহাড় অপরাজনীতি, অপেশাদার আমলাগিরির শিকার হাটহাজারী নাজিরহাট কলেজে বৃক্ষ রোপণ কর্মসূচির উদ্বোধন
রবিবার, ১৩ জুন ২০২১, ০৮:২৬ পূর্বাহ্ন

বাজেটে কর্মংস্থান সৃষ্টি ও দারিদ্র মোকাবেলার পদক্ষেপ অনেকাংশে অস্পষ্ট থেকে গেছে

পরম বাংলাদেশ ডেস্ক / ১৬১ বার এই সংবাদটি পড়া হয়েছে
প্রকাশের সময় : শুক্রবার, ৪ জুন, ২০২১

চট্টগ্রাম: ২০২১-২০২২ অর্থ বছরের প্রস্তাবিত বাজেটকে কল্যাণমুখী কিন্তু বাস্তবায়নে বড় চ্যালেঞ্জ বলে উল্লেখ করেছেন ব্যবসায়িক গবেষণামুলক সংগঠন বাংলাদেশ বিজনেস রিসার্স এন্ড ডেভেলাপমেন্ট কাউন্সিল (বিবিআরডিস)।

বিবিআরডিসির প্রতিষ্ঠাতা সদস্য প্রিয় দে এবং শাহাদাৎ হোসেন চৌধুরী স্বাক্ষরিত বাজেট প্রতিক্রিয়ায় উল্লেখ করা হয়, দেশের বর্তমান সংকটময় পরিস্থিতি মোকাবেলায় ২০২১-২০২২ প্রস্তাবিত বাজেট সময়োপযোগী। কিন্তু রাজস্ব লক্ষ্যমাত্রা অর্জন, বাজেট ঘাটতি পূরণ তথা ব্যয় নির্বাহ বড় চ্যালেঞ্জ হতে পারে।

বাজেট প্রতিক্রিয়ায় বিবিআরডিসির পক্ষ থেকে আরো বলা হয়েছে, ‘বাজেটে কর্পোরেট কর হার কিছুটা হ্রাস করায় করোনা মহামারিতে ব্যবসায়-বাণিজ্য টিকিয়ে রাখতে এবং দেশী-বিদেশী বিনিয়োগ আকর্ষণ তথা কর্মসংস্থান সৃষ্টিতে বিশেষ ভূমিকা রাখবে। দেশের মেগা শিল্পের বিকাশ ও আমদানি বিকল্প শিল্পোৎপাদন বৃদ্ধি করত: দেশীয় ব্র্যান্ড প্রতিষ্ঠার লক্ষ্যে বাজেটে কর অব্যাহতি প্রস্তাব প্রসংশনীয়।’

বাজেটে স্বাস্থ্য খাতে বিনিয়োগ বৃদ্ধির লক্ষ্যে এ খাতে বিনিয়োগের উপর কর অবকাশ এবং কর অব্যাহতি সুবিধাকে সময়োপযোগী সিদ্ধান্ত বলে উল্লেখ করা হয়েছে।

বাজেট প্রতিক্রিয়ায় আরো উল্লেখ করা হয়েছে, তৃতীয় লিঙ্গের জনগোষ্ঠীকে কর্মসংস্থানের ক্ষেত্রে নিয়োগকারী প্রতিষ্ঠানকে কর সুবিধা প্রদানের প্রস্তাব কল্যাণমুখী। তবে এ জনগোষ্ঠীকে কর্ম উপযোগী করতে যথাযথ শিক্ষা ও প্রশিক্ষণের জন্য বিশেষ বরাদ্দ রাখার উপর গুরুত্বারোপ করা হয়েছে।

কাজেট প্রতিক্রিয়ায় আরো বলা হয়েছে, ‘বাংলাদেশে এমনি বেকারত্বের হার অনেক বেশি। তার উপর করোনা মহামারিতে এ হার আরো বৃদ্ধি পেয়েছে। এ ক্ষেত্রে প্রস্তাবিত বাজেটে কর্মংস্থান সৃষ্টি এবং দারিদ্র মোকাবেলার পদক্ষেপ অনেকাংশে অস্পষ্ট থেকে গেছে। তাছাড়া ব্যাংক খাত থেকে ঋণ কমিয়ে সঞ্চয়পত্র ক্রয়ের মাধ্যমে বাজেট ঘাটতি পুরণের মনোভাব সাধারণ ব্যাংকিং খাতে নেতিবাচক প্রভাব ফেলতে পারে।’

সর্বোপরি, রাজস্ব আহরণে এবং ব্যয় খাতে স্বচ্ছতা, জবাবদীহিতা ও সুপরিকল্পনা প্রতিষ্ঠা করতে না পারলে এ দু:সময়ের বাজেট বাস্তবায়ন কঠিন চ্যালেঞ্জ হবে উল্লেখ করা হয়।

প্রেস বার্তা

add

আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই ক্যাটাগরির আরো সংবাদ