ঢাকাসোমবার, ১৫ই আগস্ট, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ
আজকের সর্বশেষ সবখবর

বাংলাদেশ দূর্যোগের দিক থেকে ঝুঁকিপূর্ণ অবস্থানে রয়েছে

নিজস্ব প্রতিবেদক
মার্চ ২২, ২০২১ ১২:৪১ অপরাহ্ণ
Link Copied!

চট্টগ্রাম: দি চিটাগাং চেম্বার অব কমার্স এন্ড ইন্ডাস্ট্রির সভাপতি মাহবুবুল আলম বলেছেন, ‘বাংলাদেশ দূর্যোগের দিক থেকে সপ্তম এবং ঝুঁকিপূর্ণ অবস্থানে রয়েছে। যে কোন ধরনের প্রাকৃতিক দূর্যোগ হলে সাপ্লাই চেইনে ব্যাঘাত আসতে পারে। ফলে উৎপাদন কার্যক্রম ব্যাপকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হয়ে অর্থনীতির উন্নয়ন গতিধারা মন্থর হতে পারে। গত বছর করোনা মহামারীতে সাপ্লাই রেসিলিয়েন্স সম্পর্কে সঠিক ধারণা না থাকার কারণে চট্টগ্রামের অনেক ব্যবসা প্রতিষ্ঠান ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে।’

রোবার (২১ মার্চ) বিকালে ওয়ার্ল্ড ট্রেড সেন্টারে অনুষ্ঠিত চার দিনব্যাপী ‘সাপ্লাই চেইন রেসিলিয়েন্স’ শীর্ষক ট্রেনিং প্রোগ্রামের সমাপনী ও সনদ প্রদান অনুষ্ঠানে তিনি এসব কথা বলেন।

বাংলাদেশ সেন্টার অব এক্সিলেন্স, দি চিটাগাং চেম্বার অব কমার্স এন্ড ইন্ডাস্ট্রি, পরিকল্পনা মন্ত্রণালয়ের ন্যাশনাল রেসিলিয়েন্স প্রোগ্রাম (এনআরপি) এবং ইউএনডিপির যৌথভাবে এ ট্রেনিংয়ের আয়োজন করে।

এথে প্রধান অতিথির বক্তব্যে পরিকল্পনা কমিশনের কার্যক্রম বিভাগের প্রধান খন্দকার আহসান হোসেন বলেন, ‘বেসরকারি বিনিয়োগকে দূর্যোগ সহনীয় করার জন্য গবেষণা ও কারিগরি সহযোগিতা বৃদ্ধি করতে হবে। ২০২৪ সালের মধ্যে বাংলাদেশকে উন্নয়নশীল দেশ থেকে মধ্যম আয়ের দেশে পরিণত করার জন্য দরকার দক্ষ জনশক্তি। প্রশিক্ষণই হচ্ছে এ জনশক্তি অর্জনের একটি গুরুত্বপূর্ণ মাধ্যম। তাই বেসরকারি খাতে সাপ্লাই চেইন সংশ্লিষ্ট দক্ষতা বৃদ্ধিতে প্রশিক্ষণের মাধ্যমে আমরা কাঙ্খিত লক্ষ্য বাস্তবায়নে সক্ষম হব।’

তিনি আরো বলেন, ‘বাংলাদেশ সেন্টার অব এক্সিলেন্সের মাধ্যমে এ জাতীয় ট্রেনিং আরো বেশী আয়োজন করা দরকার; যাতে প্রশিক্ষণের মাধ্যমে কর্মীদের দক্ষতা বৃদ্ধি করা সম্ভব হয়।’

তিনি অষ্টম পঞ্চ বার্ষিক পরিকল্পনায় সাপ্লাই চেইনকে অন্তর্ভূক্ত করার কথা উল্লেখ করে বলেন, ‘জাপানের মত আমাদেরকেও সাপ্লাই চেইন রেসিলিয়েন্স বৃদ্ধির মাধ্যমে সক্ষমতা তৈরি করতে হবে এবং প্রশিক্ষণ কার্যক্রম চলমান রাখতে হবে; যাতে বিনিয়োগ দূর্যোগ সহনীয় হয়।’

সভাপতির বক্তব্যে মাহবুবুল আলম আরো বলেন, ‘দূর্যোগকালীন বেসরকারি খাতে সাপ্লাই চেইনে কোন বিপর্যয় দেখা দিলে তা প্রতিষ্ঠানকে ক্ষতিগ্রস্ত করে। কিন্তু সরকারের কোন একটি প্রতিষ্ঠান যেমন-পোর্ট, কাস্টমসের সাপ্লাই চেইন কার্যক্রম যদি দূর্যোগকালীন ব্যাঘাত ঘটে তাহলে; তা পুরো বাংলাদেশের অর্থনীতির গতি পথকে রুদ্ধ করে দিতে পারে।

এ বিষয়ের আলোকে তিনি বেসরকারি খাতের পাশাপাশি সরকারের গুরুত্বপূর্ণ সংস্থাগুলোর সাপ্লাই চেইন রেসিলিয়েন্স আরো শক্তিশালী করার উপর গুরুত্বারোপ করেন।

এনআরপির প্রকল্প পরিচালক ড. নুরুন নাহার বলেন, ‘ব্যবসায়িক খাতে সাপ্লাই চেইনের গুরুত্ব অপরিসীম। এ মহামারীর মধ্যেও ন্যাশনাল রেসিলিয়েন্স প্রোগ্রামের পক্ষ থেকে আমাদের প্রয়াস ছিল ট্রেনিং প্রোগ্রাম আয়োজনের মাধ্যমে সাপ্লাই চেইন ব্যবস্থাপনাকে শক্তিশালী করা।’

সমাপনী অনুষ্ঠান শেষে অংশগ্রহণকারী ২৬টি বেসরকারি প্রতিষ্ঠানের কর্মকর্তাদের সনদপত্র দেওয়া হয়।

প্রেস নিউজ

Facebook Comments Box