রবিবার, ২৪ অক্টোবর ২০২১, ০২:০৭ পূর্বাহ্ন

বাংলাদেশে ‘মটো জি ৯ প্লাস’ উদ্বোধন, এক মাসে নতুন তিন স্মার্ট ফোন আনলো মটোরোলা

পরম বাংলাদেশ ডেস্ক
  • প্রকাশ : বুধবার, ৯ ডিসেম্বর, ২০২০
  • ৩৬৩ Time View

ঢাকা: বাংলাদেশের বাজারে পর পর দুটি স্মার্টফোন সফলভাবে উন্মোচন করে একই মাসে তৃতীয় স্মার্ট ফোন ‘মটো জি ৯ প্লাস’ আনার ঘোষণা দিয়েছে মোবাইল ফোন নির্মাতা প্রতিষ্ঠান মোটোরোলা। সম্প্রতি বিশ্ব বাজারে আসা মটোরোলার এই স্মার্টফোনটি সর্বাধুনিক এবং এটাতে ইন্ডাস্ট্রির সর্বোচ্চ ফিচারগুলো ব্যবহার করা হয়েছে।

গত মাসে ই-কমার্স প্ল্যাটফর্ম দারাজের ফ্ল্যাগশিপ ১১.১১ সেল ও ফাটাফাটি ফ্রাইডে ক্যাম্পেইনে সাফল্যের পর ভারতীয় উপমহাদেশের মধ্যে বাংলাদেশেই প্রথম মটো জি ৯ প্লাস উদ্বোধন করা হলো।

বুধবার (৯ ডিসেম্বর) রাজধানীর লেকশোর হোটেলে আয়োজিত এক অনুষ্ঠানে মটো জি ৯ প্লাস স্মার্টফোনটির উদ্বোধন এবং দারাজের সাথে অংশীদারিত্ব ঘোষণা করে মটোরোলা।

এ সময় উপস্থিত ছিলেন মটোরোলার ন্যাশনাল পার্টনার সেলেক্সট্রা লিমিটেডের ডিরেক্টর প্যানেলের সদস্য ইউনুস আল মামুন, মাহফুজুর রহমান ও চৌধুরী ফাহরিয়ার (সিওও) এবং দারাজের ঊর্ধতন কর্মকর্তা নাবিল নেওয়াজ, শাফিন ইনজাম ও সাদনান শিহাব।

মটো জি ৯ প্লাস:
ফোনটিতে ৬৪ মেগাপিক্সেল কোয়াড ক্যামেরা, ৬ জিবি র‌্যাম ও ১২৮ জিবি রমের সাথে সর্বাধুনিক ও আল্ট্রা-ফাস্ট স্ন্যাপড্রাগন ৭৩০ জি প্রসেসর, ৩০ ওয়াটের টার্বো পাওয়ার চার্জিং সুবিধাসহ ৫০০০ মিলিঅ্যাম্পিয়ার ব্যাটারি এবং ৬.৮ ইঞ্চি এইচডিআর ১০ ডিসপ্লে ব্যবহার করা হয়েছে। মটোরোলার ফ্যানরা দারাজ থেকে ফোনটি কিনলে ভালো ডিসকাউন্ট এবং কুপন পাবেন। এমনকি শুন্য শতাংশ সুদে ইএমআই বা কিস্তিতেও ফোনটি কিনতে পারবেন। দারাজের আসন্ন ফ্ল্যাগশিপ ১২.১২ ক্যাম্পেইন উপলক্ষে স্মার্টফোন প্রেমীরা ফোনটি কিনতে পারবেন ২৫ হাজার ৯৯৯ টাকায়। ফোনটির অরিজিনাল মূল্য ২৭ হাজার ৯৯৯ টাকা।

মটো জি ৯ প্লে:
ফোনটিতে ৪৮ মেগা পিক্সেল ট্রিপল ক্যামেরা, ৪ জিবি র‌্যাম ও ১২৮ জিবি রম, ২০ ওয়াটের টার্বো পাওয়ার চার্জিং সুবিধাসহ ৫০০০ মিলি অ্যাম্পিয়ার ব্যাটারি এবং মটোরোলার সিগনেচার নিয়ার-স্টক অ্যানড্রয়েড এক্সপেরিয়েন্স থাকবে। দারাজে ফোনটি ১৭ হাজার ৯৯৯ টাকায় পাওয়া গেলেও আসন্ন ১২.১২ ক্যাম্পেইন চলাকালে ফোনটি পাওয়া যাবে ১৬ হাজার ৯৯৯ টাকায়। স্মার্টফোন প্রেমীরা যদি দারাজের প্রি-পেমেন্ট আপশনটি ব্যবহার করেন তাহলে ইএমআই সুবিধা ও আরো বেশি ডিসকাউন্টের জন্য কুপন পাবেন।

মটো জি ৮ পাওয়ার লাইট:
ফোনটিতে ১৬ মেগা পিক্সেল ট্রিপল ক্যামেরা, ৪ জিবি র‌্যাম ও ৬৪ জিবি রম, ৫০০০ মিলি অ্যাম্পিয়ার ব্যাটারি এবং মটোরোলার সিগনেচার নিয়ার-স্টক অ্যানড্রয়েড এক্সপেরিয়েন্স থাকবে। দারাজে ফোনটি ১৪ হাজার ৯৯৯ টাকায় পাওয়া গেলেও ১২.১২ ক্যাম্পেইন চলাকালে ফোনটি পাওয়া যাবে ১৩ হাজার ৪৯৯ টাকায়। দারাজের প্রি-পেমেন্ট অপশনটি ব্যবহার করলে শূন্য শতাংশ সুদে ইএমআই সুবিধা ও ডিসকাউন্ট পাবেন।

মটোরোলা মোবিলিটির সার্কভুক্ত দেশের ব্যবস্থাপনা পরিচালক প্রশান্ত মানি ভিডিও বার্তায় বলেন, ‘সম্প্রতি বাজারে আসা মটোরোলা স্মার্টফোনের সফলতায় আমরা খুবই আনন্দিত এবং বাংলাদেশে আমাদের ব্র্যান্ড ও পণ্যের প্রতি ক্রেতাদের ভালোবাসায় আমরা সিক্ত। মটো জি ৯ প্লাসের মাধ্য দিয়ে ‘জি’ পরিবারের সবচেয়ে সফল গ্লোবাল স্মার্টফোনটি আমরা উদ্বোধন করলাম এবং বাংলাদেশের বাজারে এই ফোনের সফলতার বিষয়ে আমরা নিশ্চিত। দারাজের ১২.১২ ক্যাম্পেইন নিয়ে আমরা খুবই এক্সসাইটেড এবং এই ক্যাম্পেইন চলাকালে আমাদের পণ্যের সফলতার জন্য অপেক্ষা করছি।’

সেলেক্সট্রার চেয়ারম্যান মাহামুদ হোসেন বলেন, ‘আমাদের যাত্রায় গুরুত্বপূর্ণ অনলাইন অংশীদার হিসেবে দারাজকে পেয়েছি, যা আমাদের যাত্রার প্রয়োজনীয় সফলতা অর্জনে সহায়তা করেছে।’

প্রশান্ত মানির সাথে এক মত পোষণ করে তিনি আরো বলেন, ‘আমরা বাংলাদেশে মটোরোলার ম্যানুফ্যাকচারিং প্লান্ট চালু করা যায় কিনা সেটা বিবেচনা করতে চাই, যা শুধু ব্র্যান্ডটাকে প্রতিযোগিতায় এগিয়ে থাকতেই সহায়তা করবে না, বরং বাংলাদেশের অর্থনীতিকে এগিয়ে নিতে সহায়তা করবে।’

দারাজ বাংলাদেশের হেড অব মার্কেটিং আবরার হাসনাইন বলেন, ‘সেলেক্সট্রার মাধ্যমে বাংলাদেশে মটোরোলা ব্র্যান্ডের নতুন যাত্রায় অংশীদার হতে পেরে সর্ববৃহৎ ই-কমার্স প্ল্যাটফর্ম দারাজ খুবই আনন্দিত। আমরা ইতোমধ্যে ‘জি’ সিরিজের মটো জি ৮ পাওয়ার লাইট ও মটো জি ৯ প্লে উদ্বোধন করেছি এবং কাস্টমারদের পক্ষ থেকে ইতিবাচক সাড়া পেয়েছি। কাস্টমারদের সাড়া ও রিভিউই ‘জি’ সিরিজের আরেকটি পণ্য উদ্বোধনের অনুপ্রেরণা জুগিয়েছে। গত বছর বিশ্ব বাজারে এই সিরিজের ১০০ মিলিয়ন ইউনিট বিক্রি হয়েছে। দারাজের লক্ষ্যই হলো বাংলাদেশে গ্লোবাল স্ট্যান্ডার্ড পণ্য পরিচিত করানো।’

মটোরোলার ন্যাশনাল পার্টনার সেলেক্সট্রার ব্যবস্থাপনা পরিচালক সাকিব আরাফাত বলেন, ‘সারাদেশের মটোরোলার ফ্যানদের কাছ থেকে আমরা অত্যন্ত ইতিবাচক সাড়া পাচ্ছি। বাংলাদেশের বাজারে মটোরোলার অত্যাধুনিক প্রযুক্তির ও বিশ্ব বাজারে সফল পণ্যগুলো আনার পরিকল্পনা করছি। এমনকি ৫৭ শতাংশ আমদানি কর দিয়েও আমরা চেষ্টা করছি ফোনের দাম কাস্টমারদের নাগালের মধ্যে রাখার, যাতে তারা ভালো পণ্যগুলো ব্যবহার করতে পারেন।’

সংবাদ বিজ্ঞপ্তি

Share This Post

আরও পড়ুন