মঙ্গলবার, ২৮ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০১:৪৪ পূর্বাহ্ন

বর্জ্য অপসারণে চসিককে ভোগাতে পারে কনটেইনার মোভার ও টমটমের স্বল্পতা

পরম বাংলাদেশ প্রতিবেদন
  • প্রকাশ : রবিবার, ৪ জুলাই, ২০২১
  • ৬০ Time View

চট্টগ্রাম: কনটেইনার মোভার ও টমটম গাড়ির স্বল্পতা আসন্ন কোরবানীতে পশুর বর্জ্য অপসারণে চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশনকে (চসিক) ভোগাতে পারে বলে আশংকা করা হচ্ছে। এ আশংকায় পর্যাপ্ত পরিমাণে কনটেইনার মুভার ও টমটম গাড়ির সরবার চেয়েছে চসিকের পরিচ্ছন্ন বিভাগ।

জানা যায়, বর্তমানে চসিকের প্রায় ১০৫টি কনটেইনার মুভার রয়েছে। আট থেকে দশ ঘণ্টার মধ্যে কোরবানীর বর্জ্য অপসারণ করতে আরো ৫০টি কইটেইনার মুভার প্রয়োজন পড়বে চসিকের। অন্য দিকে, টমটম গাড়ি রয়েছে ৬০টির মত। এর মধ্যে ৮-১০টি টমটম গাড়ি নষ্ট।

আসন্ন ঈদুল আযহা উপলক্ষে রোববার (৪ জুলাই) সকালে অনুষ্ঠিত পশুর বর্জ্য অপসারণে প্রস্তুতি সভায় উপ প্রধান পরিচ্ছন্ন কর্মকর্তা মোর্শেদুল আলম চৌধুরী ওয়ার্ড পর্যায়ে কনটেইনার মোভার ও পর্যাপ্ত টমটম গাড়ি সরবরাহের অনুরোধ জানান। না হয় আবর্জনা পরিস্কারে সমস্যা হবে বলে আশংকা করেন।

এ দিকে, চসিকের প্রকৌশল বিভাগ বলছে, ‘গত বছরের মত যদি পরিচ্ছন্ন বিভাগের চাহিদাপত্র থাকে, তাহলে আবর্জনা পরিস্কারের ক্ষেত্রে গাড়ি সরবরাহে কোন সংকট হবে না।’

সভায় চসিকের মেয়র মো. রেজাউল করিম চৌধুরী কোরবানীর ঈদে আট থেকে দশ ঘন্টার মধ্যে নগরীতে জবাইকৃত পশুর বর্জ্য অপসারণ করা হবে জানিয়েছেন। এ লক্ষ্যে নগরীরকে উত্তর, দক্ষিণ, পূর্ব, পশ্চিম চারটি জোনে ভাগ করা হয়েছে। চার জোনের দায়িত্ব প্রাপ্ত কাউন্সিলরা হলেন উত্তরে মো. এসারুল হক, দক্ষিণে আবদুল বারেক, পূর্বে শৈবাল দাশ সুমন ও পশ্চিমে মো. ইসমাইল। উত্তর জোনের অধীনে ওয়ার্ডগুলো হল- ১,২,৩,৪,৫,৬,৭,৮,১৫ ও ১৬ নম্বর ওয়ার্ড। দক্ষিণ জোনে ২৩,২৭,২৮,২৯,৩০,৩৬,৩৭,৩৮,৩৯,৪০ ও ৪১ নম্বর ওয়ার্ড। পূর্ব জোনে ১৭,১৮,১৯,২০,২১,২২,৩১,৩২,৩৩,৩৪ ও ৩৫ নম্বর ওয়ার্ড। পশ্চিম জোনে ৯,১০,১১,১২, ১৩,১৪, ২৪,২৫ ও ২৬ নং ওয়ার্ড। বর্জ্য স্ট্যান্ডিং কমিটির সভাপতি কাউন্সিলর মো. মোবারক আলী সার্বিক কাজের তত্ত্বাবধানে থাকবেন।

সভায় মেয়র রেজাউল করিম পরিচ্ছন্ন বিভাগের কর্মকর্তা-কর্মচারীদের কোরবানীর পশুর বর্জ্য অপসারণে তাদের প্রস্তুতি, সাজ সরঞ্জাম পর্যাপ্ত লোকবল ও গাড়ি সংগ্রহে আছে কিনা জানতে চান।

তিনি বলেন, ‘অতীতেও কোরবানীর পশুর বর্জ্য অপসারণে চসিকের সুনাম রয়েছে। কাজেই এ সুনাম রক্ষা করতে হবে।’

মেয়র পরিচ্ছন্ন বিভাগের কর্মকর্তাদের নগরীকে টাইম লাইনের মাধ্যে পরিচ্ছন্ন করতে যত ধরনের সহায়তা লাগে, তা করা হবে জানিয়ে বলেন, ‘আবর্জনা পরিস্কারে কোন গাফেলতি বা অযুহাত মানা হবে না।’

সভায় চসিকের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা মোহাম্মদ শহীদুল আলম কোন সমস্যা থাকলে, তা দ্রুত সমাধান করার নির্দেশ দিয়ে বলেন, ‘কোনভাবেই নির্দিষ্ট সময় সীমার বাইরে বর্জ্য অপসারণ করা যাবে না। এ ব্যাপারে পরিচ্ছন্ন ও প্রকৌশলসহ সংশ্লিষ্ট বিভাগকে দায়িত্ব নিয়ে কাজ করতে হবে।’

Share This Post

আরও পড়ুন