শিরোনাম
মীরসরাই বঙ্গবন্ধু শিল্প নগরে বেপজার প্লট পেল দেশি বিদেশি দশ প্রতিষ্ঠান ভারতীয় ভেরিয়েন্ট দেশে ব্যাপক হারে ছড়িয়ে পড়ার আশঙ্কা দেখা দিয়েছে পশ্চিম বাকলিয়া ওয়ার্ডে উন্নয়ন কাজ পরিদর্শনে কাউন্সিলর শহিদুল আলম টেকনাফে কোস্ট গার্ডের অভিযানে ৮০০ পিস আন্দামান গোল্ড বিয়ার জব্দ প্রধানমন্ত্রীর সহায়তা তহবিলে এক কোটি টাকা অনুদান দিল চট্টগ্রাম চেম্বার প্রাথমিক বিদ্যালয় ও কিন্ডারগার্টেনের ছুটি বাড়ল ৩০ জুন পর্যন্ত নিষিদ্ধ জঙ্গি সংগঠন আনসার আল ইসলাম’র আইটি বিশেষজ্ঞ গ্রেফতার চট্টগ্রামে সাদার্ন ইউনিভার্সিটিতে দুই মাসব্যাপী আন্তঃবিভাগ বির্তক প্রতিযোগিতা শুরু নাভানাসহ সীতাকুণ্ডের সব কারখানায় ঈদুল আজহার আগে শ্রমিকদের বেতন-বোনাস দাবি পরিবেশ বিষয়ক গল্প : মন পড়ে রয় । নাজিম হোসেন শেখ
রবিবার, ১৩ জুন ২০২১, ০৫:৫৯ অপরাহ্ন

প্রভাবশালী কেবল অপারেটর ও দুটি ডিস্ট্রিবিউশন সংস্থা বিশৃঙ্খল পরিবেশ সৃষ্টি করছে : জাদু ভিশন

রিপোর্টারের নাম / ৮৫০ বার এই সংবাদটি পড়া হয়েছে
প্রকাশের সময় : বৃহস্পতিবার, ৫ নভেম্বর, ২০২০

মোহাম্মদ আলী, চট্টগ্রাম:

দীর্ঘদিন ধরে প্রভাবশালী ক্যাবল অপারেটর এবং অন্য দুটি ডিস্ট্রিবিউশন সংস্থা এক হয়ে আমাদের বিরুদ্ধ্বে মিথ্যা অভিযোগ ও অন্যায় দাবি নিয়ে একটি বিশৃঙ্খল পরিবেশ সৃষ্টি করছে। যা এ করোনাকালীন আমাদের এবং দেশের অন্য সাধারণ ক্যাবল অপারেটরদের জন্য ব্যবসায়িক হুমকির স্বরুপ।

বৃহস্পতিবার (৫ নভেম্বর) রাতে গণমাধ্যমে পাঠানো এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এমন দাবি করেছে জাদু ভিশন কর্তৃপক্ষ।

জাদু ভিশনের চীফ এক্সিকিউটিভ অফিসার কুনাল দেশমূখ্য ও জেনারেল ম্যানেজার (হিসাব ও অর্থ) আব্দুর শুকুর আলী লিটনের নামে আসা ওই বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে, ‘জাদু ভিশন সব সময় সুস্থ ব্যাবসায়িক চর্চা করে আসছে। আমাদের ব্যবসায়ের স্বচ্ছতা এবং জবাবদিহীতা বজায় রাখতে ক্যাবল অপারেটরদের সাথে সাবস্ক্রিপশন চুক্তির মাধ্যমে কাজ করতে চাইছি। যাতে এক দিক দিয়ে দু-পক্ষের মধ্যে একটি সুস্থ ব্যবসায়িক সম্পর্ক থাকে এবং সরকারও যেন এই খাত থেকে রাজস্ব বঞ্চিত না হয়।’

জাদু ভিশনের দাবি, এ বিষয়টিই তাদের সমস্যা এবং এই আন্দোলনের মূল কারণ হয়ে উঠেছে। এই জন্যই তারা অন্য ক্যাবল অপারেটরদের নিরোৎসাহিত করছে, আমাদের সাথে কোনও প্রকার সাবস্ক্রিপশন চুক্তি না করতে।

প্রতিষ্ঠানটি বলছে, জাদু ভিশন কোনও প্রকার সাবস্ক্রিপশন চার্জ বৃদ্ধি করেনি, তা সত্ত্বেও তারা বিভিন্নভাবে এ বিষয়ে গুজব ছড়িয়ে দেশের সাধারন ক্যাবল অপারেটরদের বিভ্রান্ত করে তাদের দলে ভেড়াতে চাইছে। শুধু তাই নয়, তারা চাইছে ক্যাবল অপারেটরদের থেকে তারা আমাদের জন্য টাকা সংগ্রহ করবে এবং সেটি আমাদের দিবে। এটি কখনও সুস্থ ব্যবসায়িক চর্চা হতে পারে না। জাদু ভিশন বরাবরই এর বিরোধিতা করে এসেছে। ক্যাবল অপারেটর এবং ডিস্ট্রিবিউটরদের মাঝে মধ্যপক্ষ তৈরি করে জাদু ভিশনের ব্যবসায় নিয়ন্ত্রণ করার চেষ্টাই তাদের লক্ষ।

জাদু ভিশন কর্তৃপক্ষ দাবি করেছে, ‘কোয়াব ঐক্য পরিষদ’ সংস্থাটি দেশের সব ক্যাবল অপারেটরদের প্রতিনিধিত্ব করে না। কোয়াবের আরও দুটি ভিন্ন সংস্থা আছে, যাদের সাথে দেশের অধিকাংশ ক্যাবল অপারেটর সম্পৃক্ত এবং তারা এ অবাস্তব এবং কাল্পনিক দাবির আন্দোলনের সাথে যুক্ত নয়। শুধু তা-ই নয়, তাদের বেশ কয়েকটি ক্যাবল অপারেটর থেকে জাদু ভিশন বিপুল পরিমাণে বকেয়া বিল পাবে এবং তারা তা পরিশোধ না করতেই, এই আন্দোলনের ডাক দিয়েছে।

তথ্য মন্ত্রীর দৃষ্টি আকর্ষণ করে জাদু ভিশন বলছে, ‘দেশের ক্যাবল অপারেটর এবং ডিস্ট্রিবিউটরদের মধ্যে সরকার অনুমোদিত একটি সার্বজনীন সাবস্ক্রিপশন চুক্তি থাকা বাধ্যতামূলক হোক। এতে করে ক্যাবল অপারেটররা সুস্পষ্ট চুক্তির মাধ্যমে ঝামেলা ছাড়াই ব্যবসায় করতে পারবেন। সরকারও রাজস্ব থেকে বঞ্চিত হবে না।’

add

আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই ক্যাটাগরির আরো সংবাদ