ঢাকামঙ্গলবার, ৭ই ফেব্রুয়ারি, ২০২৩ খ্রিস্টাব্দ
আজকের সর্বশেষ সবখবর

প্রবৃদ্ধির দ্বিতীয় ধাপে প্রবেশ করেছে রিয়েলমি; জানালেন সিইও স্কাই লি

বেইজিং, চীন
আগস্ট ২১, ২০২২ ৯:১০ অপরাহ্ণ
Link Copied!

বেইজিং, চীন: আগামী রোববার (২৮ আগস্ট) অনুষ্ঠিত হতে যাওয়া স্মার্টফোন ব্র্যান্ড রিয়েলমির চতুর্থ ‘৮২৮ ফ্যান ফেস্টিভ্যাল’ উপলক্ষে ব্র্যান্ডটির প্রতিষ্ঠাতা ও প্রধান নির্বাহী স্কাই লি স্বাক্ষরিত ‘রিয়েলমি’স সেকেন্ড স্টেজ অব গ্রোথ: আ রিফাইন্ড ফোকাস অন লং-টার্ম গ্রোথ’ শীর্ষক একটি খোলা চিঠি প্রকাশিত হয়েছে। খোলা চিঠিতে স্কাই লি বলেছিন, ‘একটি স্টার্ট আপ প্রতিষ্ঠান হিসেবে আমরা প্রবৃদ্ধির দ্বিতীয় স্টেজে (ধাপে) প্রবেশ করেছি এবং এ ধাপে আমরা আমাদের দীর্ঘ মেয়াদী প্রবৃদ্ধি অর্জনের প্রতি মনোযোগী হব। পণ্যের গুণগতমান ও বাজার সম্প্রসারিত করার বিষয়েও আমরা গুরুত্বারোপ করব।’

ডেয়ার টু লিপ প্রতিপাদ্যে উদ্বুদ্ধ হয়ে রিয়েলমি বিশ্বজুড়ে তরুণদের জন্য দুর্দান্ত দামে উন্নত পারফরমেন্স ও ট্রেন্ডসেটিং ডিজাইনের ডিভাইস বাজারে নিয়ে আসছে। ফাইভ জি প্রযুক্তির সুবিধা গ্রহণের মধ্য দিয়ে রিয়েলমি ২০২১ সালের চতুর্থ প্রান্তিকে বছর প্রতি ১৬৫ শতাংশ প্রবৃদ্ধি অর্জনের মাধ্যমে বিশ্বব্যাপী দ্রুততম বর্ধনশীল ফাইভজি স্মার্টফোন ব্র্যান্ডে পরিণত হয়েছে। রিয়েলমি প্রথম বারের মত এর ফাইভ জি ট্যাবলেট ‘রিয়েলমি প্যাড এক্স’ বাজারে উন্মোচনের মাধ্যমে এর এআইওটি পণ্যগুলোতে ফাইভজির প্রযুক্তির সংযোজন করেছে। ব্র্যান্ডটির লক্ষ্য হল- ফাইভ জি প্রযুক্তি ভিত্তিক গবেষণা ও ডেভেলপমেন্ট রিসোর্সে ৯০ শতাংশ বিনিয়োগের মাধ্যমে ফাইভ জি প্রযুক্তির ব্যবহারকে আরো সহজ করে তোলা।

রিয়েলমি এর উন্নত ‘১+৫+টি’ কৌশলের সহায়তায় দ্রুত বর্ধনশীল কনজ্যুমার টেক (প্রযুক্তি) ব্র্যান্ডে পরিণত হওয়ার মাধ্যমে বিভিন্ন ধরনের এআইওটি পণ্য ও পূর্ণাঙ্গ এআইওটি ইকোসিস্টেম তৈরিতে সচেষ্ট রয়েছে। ব্র্যান্ডটি এর টেকলাইফ ইকোসিস্টেমের অধীনে স্মার্ট টিভি, ল্যাপটপ, ট্যাবলেট, স্মার্ট ওয়াচ, হেয়ারেবল ও বিপুল সংখ্যক স্মার্ট গেজেট নিয়ে আসার লক্ষ্যে কাজ করছে। চলতি বছরের প্রথম প্রান্তিকে রিয়েলমি এক কোটি পণ্য রপ্তানির মাইলফলক অর্জন করে, যা প্রতিষ্ঠানটিকে এআইওটি সেগমেন্টে শক্তিশালী ব্র্যান্ড হিসেবে প্রতিষ্ঠিত করেছে।

শুরু থেকেই ডিজাইনে উদ্ভাবন নিয়ে আসার ওপর গুরুত্বারোপ করছে রিয়েলমি। অ্যান্ড্রয়েড মোবাইল ফোন ইন্ডাস্ট্রিতে রিয়েলমিই প্রথম বারের মত ডিজাইন স্টুডিও তৈরি করেছে। এ স্টুডিয়োর নাম হলে রিয়েলমি ডিজাইন স্টুডিও। এ স্টুডিওতে বিশ্বের সেরা ডিজাইনার ও ব্র্যান্ডটির ইন-হাউজ ডিজাইনাররা বিভিন্ন ট্রেন্ডসেটিং পণ্য তৈরির লক্ষ্যে কাজ করছেন।

গত চার বছরে রিয়েলমির দ্রুত গতিতে প্রবৃদ্ধি হয়েছে, যা প্রতিষ্ঠানটিকে মাত্র তিন বছরে বিশ্বের ষষ্ঠ বৃহত্তম স্মার্টফোন ভেন্ডর (বিক্রেতা) হিসেবে প্রতিষ্ঠিত করেছে। বর্তমান বাজারের অনিশ্চয়তা সত্বেও রিয়েলমি বিভিন্ন প্রতিকূলতা মোকাবিলায় বেশ আত্মবিশ্বাসী।

স্কাই লি বলেন, ‘স্মার্টফোন আগের সময়ের তুলনায় আমাদের জীবনকে আরো সহজ করে তুলেছে এবং এআইওটির যুগে ব্যবহারকারীদের প্রাযুক্তিক সক্ষমতা আরো বৃদ্ধি পাবে। বিভিন্ন প্রতিকূলতা সত্বেও সামনের দিনগুলোতে আমাদের পথ চলা আরো মসৃণ হবে।’

প্রবৃদ্ধির দ্বিতীয় ধাপে প্রবেশের সাথে সাথে রিয়েলমি ‘সিম্পলি বেটার’ পণ্য কৌশল ও ‘মার্কেট কাল্টিভেশন’ এর সাথে নিজেদের সম্পৃক্ততা ধরে রাখতে চায়। যা স্কাই লির উল্লিখিত পণ্যের গুণগতমান ও বাজার সম্প্রসারণের আলোকপাতের বহিঃপ্রকাশ।

প্রযুক্তিগত উদ্ভাবনের ওপর আলোকপাত করার মাধ্যমে রিয়েলমির রিসার্চ এন্ড ডেভেলপমেন্ট সংক্রান্ত বিনিয়োগ বছরে ৫৮ শতাংশ বৃদ্ধি পাবে। রিয়েলমির নাম্বার সিরিজ অপরিহার্য প্রোডাক্ট লাইনে পরিণত হবে, যা সাশ্রয়ী দামের মধ্যে প্রয়োজনীয় প্রযুক্তি পণ্যগুলোকে স্টাইলিশ পণ্যে পরিণত করবে।

‘মার্কেট কাল্টিভেশন’ কৌশলের ওপর ভিত্তি করে রিয়েলমি আগামী তিন বছরে দেড় কোটি পণ্যের বাজার তৈরি ও দুই বার এক কোটি পণ্য রপ্তানির লক্ষ্য অর্জনে কাজ করে যাবে। এটি ব্র্যান্ডটির টিম, কর্মী, দক্ষ লোকবল ও জ্ঞান বিকশিত করার প্রতিশ্রুতিরই বহিঃপ্রকাশ। রিয়েলমি স্থানীয় বাজারকে বোঝার মাধ্যমে সেখানকার মানুষের অভ্যাস অনুযায়ী বিভিন্ন ধরনের পণ্য ডিজাইন করবে।

এর লাইট অ্যাসেট, শর্ট চ্যানেল মোড এবং ই-কমার্স অগ্রাধিকার কৌশলের মাধ্যমে রিয়েলমি বিভিন্ন চ্যানেল একীভূত করতে এবং বিশ্বব্যাপী এর ব্যবহারকারীদের সুবিধা দিতে একটি আন্তর্জাতিক ই-কমার্স টিমও প্রতিষ্ঠা করেছে। নতুন প্রতিষ্ঠিত দলের মাধ্যেমে রিয়েলমি ই-কমার্স চ্যানেল পরিচালনা করার ক্ষমতা উন্নত করছে ও প্রতিষ্ঠিত মার্কেটের ই-কমার্স অভিজ্ঞতা উন্নয়নশীল বাজারে প্রয়োগ করবে। এর অর্থ হল রিয়েলমি বিশ্বব্যাপী ই-কমার্স অংশীদারদের সাথে ঘনিষ্ঠভাবে কাজ করার মাধ্যমে আরো সুগঠিত ই-কমার্স মডেল উদ্ভাবন করবে। রিয়েলমি ব্যবহারকারীদের আরো সুবিধাজনকভাবে কেনাকাটার অভিজ্ঞতা প্রদান ও পণ্য ব্যবহারের সুযোগ তৈরি করবে।

রিয়েলমি দৃঢ়ভাবে বিশ্বাস করে, সব প্রতিকূলতা সাময়িক ও অচিরেই এর উত্তরণ ঘটবে। ‘ডেয়ার টু লিপ’ প্রতিপাদ্যে অনুপ্রাণিত হয়ে ব্র্যান্ডটি এর পণ্য বিকাশের প্রক্রিয়ার ধারাবাহিকতা বজায় রাখবে। রিয়েলমি এর মূল নীতির ওপর সব সময় অবিচল থাকবে। এ ছাড়া তরুণদের চাহিদা পূরণে ও তাদেরকে নিয়ে এক সাথে বিশ্বকে বদলে দিতে সচেষ্ট থাকবে।

Facebook Comments Box