মঙ্গলবার, ২১ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০৪:২১ পূর্বাহ্ন

প্রজাতন্ত্রের কর্মচারীরাইতো মানুষের ভোটাধিকার হরণে জড়িত

পরম বাংলাদেশ ডেস্ক
  • প্রকাশ : সোমবার, ১৪ ডিসেম্বর, ২০২০
  • ১৬৩ Time View

চট্টগ্রাম: চট্টগ্রাম নগর বিএনপির সভাপতি ডাক্তার শাহাদাত হোসেন বলেছেন, ‘বর্তমান ক্ষমতাসীনরা গণতন্ত্রকে রাষ্ট্র ও সমাজ থেকে উচ্ছেদ করেছে। প্রজাতন্ত্রের কর্মচারীরা আজকে রাস্তায় মিছিল করছে। তারা যদি ভাস্কর্য ইস্যুতে মিছিল করতে পারে, তাহলে মানুষের ভোটাধিকার রক্ষার জন্যও রাস্তায় নামতে পারেন। কিন্তু তারা সেটাতো করবেন না, কারণ তারাইতো মানুষের ভোটাধিকার হরণে জড়িত। ভোট ডাকাতির সাথে
রাষ্ট্রযন্ত্রের অতি উৎসাহী কিছু অফিসার জড়িয়ে গেছে। এ অতি উৎসাহী অফিসারদের কারণে দেশের গণতন্ত্র ও ভোটাধিকার আজ হুমকীর মুখে।’

সোমবার (১৪ ডিসেম্বর) বিকালে নাসিমন ভবনস্থ দলীয় কার্যালয় মাঠে চট্টগ্রাম মহানগর বিএনপির উদ্যোগে শহীদ বুদ্ধিজীবী দিবসের আলোচনা সভায় তিনি এ কথা বলেন।

সভাপতির বক্তব্যে শাহাদাত আরো বলেন, ‘আওয়ামী লীগ মুক্তিযুদ্ধের চেতনার কথা বলে। অথচ বিএনপির শাসনামলে চট্টগ্রামের সাগরিকা স্টেডিয়ামের নাম বীরশ্রেষ্ঠ রুহুল আমীনের নামে নামকরণ করা হয়েছিল। আওয়ামী লীগ সেই নাম পরিবর্তন করে আওয়ামীলীগ নেতা জহুর আহমদ চৌধুরীর নামে করেছে। বিএনপির শাসনামলে সারাদেশে স্টেডিয়ামগুলো বীর মুক্তিযোদ্ধাদের নামে করেছিলেন। অর্থাৎ বিএনপি মুক্তিযোদ্ধাদের সম্মান দেয় আর আওয়ামী লীগ মুক্তিযুদ্ধের চেতনার নামে ব্যবসায় করে। তারা জনগণের ভোটাধিকার কেড়ে নিয়ে গণতন্ত্রকে নির্বাসনে পাঠিয়ে জগদ্দল পাথরের মত মানুষের ঘাড়ে বসে আছে।’

চট্টগ্রাম নগর বিএনপির সাধারণ সম্পাদক আবুল হাশেম বক্কর, সিনিয়র সহ-সভাপতি আবু সুফিয়ান, চট্টগ্রাম জেলা আইনজীবি সমিতির সাবেক সভাপতি এডভোকেট এএসএম বদরুল আনোয়ার, চট্টগ্রাম মেট্রোপলিটন সাংবাদিক ইউনিয়নের সাধারণ সম্পাদক মো. শাহনওয়াজ সভায় বক্তব্য রাখেন।

চট্টগ্রাম নগর বিএনপির যুগ্ম সম্পাদক ইয়াছিন চৌধুরী লিটনের সঞ্চালনায় সভায় অন্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন চট্টগ্রাম নগর বিএনপির সহ-সভাপতি এমএ আজিজ, মোহাম্মদ মিয়া ভোলা, আবদুস সাত্তার, হারুন জামান, শফিকুর রহমান স্বপন, মফিজুল হক ভূঁইয়া, অধ্যাপক নুরুল আলম রাজু, ইকবাল চৌধুরী, এসএম আবুল ফয়েজ, ইফতেখার হোসেন চৌধুরী মহসিন, সাংবাদিক জাহিদুল করিম কচি, তারিক আহমেদ, হাসান আলী,
সিনিয়র যুগ্ম সম্পাদক এসএম সাইফুল আলম, যুগ্ম সম্পাদক কাজি বেলাল উদ্দিন, শাহ আলম, জাহাঙ্গির আলম দুলাল, আবুল হাসেম, আনোয়ার হোসেন লিপু, সাংগঠনিক
সম্পাদক মনজুর আলম চৌধুরী মনজু, মো: কামরুল ইসলাম, সম্পদকবৃন্দ আবদুল নবী
প্রিন্স, ইয়াকুব চৌধুরী, অধ্যাপক ঝন্টু বড়ুয়া, হালিশহর থানা বিএনপির সভাপতি মোশারফ হোসেন ডিপটি, সহ সম্পাদকবৃন্দ, এ কে এম পেয়ারু, আবদুল হালিম স্বপন, রফিকুল ইসলাম, মো. ইদ্রিস আলী, মো. শাহজাহান, খোরশেদ আলম কুতুবী, জেলী চৌধুরী, আবদুল হাই, রঞ্জিত বড়ুয়া, আবদুল মতিন, আলী আজম, সদস্য আলী ইউসুফ, মালেক ফারুকী, ওয়ার্ড বিএনপির সভাপতি নবাব খান, মোশারফ জামান, ফারুক আহমদ, সাইফুল আলম, সাধারণ সম্পাদক হাজী জাহেদ, শফিউল্লাহ, হাসান ওসমান, জসিম মিয়া, সিরাজুল ইসলাম মুন্সি, মোঃ হাসান, অঙ্গ সংগঠনের নেতৃবৃন্দ আলি মর্তুজা খান, মনিরুজ্জমান টিটু, শাহ নেওয়াজ চৌধুরী মিনু, গুলজার বেগম প্রমুখ।

সংবাদ বিজ্ঞপ্তি

Share This Post

আরও পড়ুন