মঙ্গলবার, ২১ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০৫:৫৪ পূর্বাহ্ন

পোশাক শিল্পের আকাশে ঘনীভূত হচ্ছে মেঘ, সরকারের আরো সহায়তা চায় বিজিএমইএ

নিজস্ব প্রতিবেদক
  • প্রকাশ : সোমবার, ৭ ডিসেম্বর, ২০২০
  • ১৭৫ Time View

ঢাকা: পোশাক শিল্পের আকাশে মেঘ ঘনীভূত হচ্ছে উল্লেখ করে এ খাতে সরকারের আরো সহায়তা চেয়েছেন বিজিএমইএ এর সভাপতি ড. রুবানা হক

এর জন্য এখনই প্রস্তুতি নেয়া প্রয়োজন বলে মনে করেন তিনি।

রুবানা হক বলেন, ‘এ পরিস্থিতি মোকাবেলা করা আমাদের একা উদ্যোক্তাদের পক্ষে সম্ভব নয়। যদিও এর আগে ঘটে যাওয়া ঘটনার পুনরাবৃত্তি রোধে আমরা আন্তর্জাতিক পরিমন্ডলে আমাদের সম্পৃক্ততা ও চাপ অব্যাহত রেখে কাজ করছি, তারপরও এ শিল্পের সুরক্ষার জন্য এ মূহুর্তে নীতি সহায়তা অব্যাহত রাখা প্রয়োজন। বিশেষ করে, সরকার প্রদত্ত প্রণোদনা প্যাকেজটির মেয়াদ বৃদ্ধি এবং প্রয়োজনে নতুন সহায়তা প্রদান এ শিল্পের জন্য অত্যন্ত জরুরি।’

সোমবার (৭ ডিসেম্বর) বিকাল পাঁচটায় জুম মিটিংয়ে সংবাদ সম্মেলন করে এভাবেই অসহায়ত্ব প্রকাশ করেন পোশাক শিল্প মালিকদের এ শীর্ষ নেত্রী।

সংবাদ সম্মেলনে বিজিএমইএ সভাপতি বলেন, ‘বিশ্ব বাজারে আমরা পোশাক রপ্তানিতে দ্বিতীয় স্থানে থাকলেও বিশ্ব বাজারে আমাদের শেয়ার মাত্র ছয় দশমিক আট শতাংশ। এ বাজারে আরও অংশ দখল করার সুযোগ আমাদের রয়েছে। যদিও ভিয়েতনামকে আমাদের মূল প্রতিযোগী হিসেবে দেখা হয়, বাস্তবতা হলো, রাতারাতি তাদের পক্ষে সামর্থ্য বৃদ্ধি সম্ভব নয়। তাছাড়া, পোশাক পণ্য ভিয়েতনামের প্রধান রপ্তানি পণ্যও নয়। আবার, কম্বোডিয়া ইউরোপীয় ইউনিয়নে জিএসপি সুবিধা হারিয়েছে।’

‘অন্যদিকে, ইথিওপিয়ায় সংঘটিত অস্থিতিশীলতা তাদের শিল্প ও অর্থনীতিকে হুমকির মুখে ফেলেছে। এগুলোর বিপরীতে প্রধানমন্ত্রীর দূরদর্শী নেতৃত্বে বাংলাদেশ যেভাবে বিভিন্ন সূচকে এগিয়ে যাচ্ছে, তাতে বলা যায় সবাই মিলে এই দুর্যোগপূূণ সময়টি মোকাবেলা করতে পারলেই আগামীতে আমাদের পোশাক শিল্পের রয়েছে অপার সম্ভাবনা।’- বলেন রুবানা হক।

তিনি মনে করেন, কোভিডের দ্বিতীয় ঢেউ আগামী জুনের পর আর দীর্ঘায়িত হবে না। ‘

‘অতএব এটুকু সময়ে আমাদেরও অর্জনগুলো ধরে রাখতে সবাই মিলে সর্বোচ্চ প্রচেষ্টা অব্যাহত রাখা প্রয়োজন।’

সংবাদ সম্মেলনের মাধ্যমে সরকারের প্রতি বিনীত অনুরোধ জানিয়ে বিজিএমইএর কর্তা বলেন, ‘অনুগ্রহ করে এ শিল্পের জন্য যে প্রনোদনা প্যাকেজটি দিয়েছেন, তার মেয়াদ বৃদ্ধি করে দিন। একই সাথে প্রয়োজনে নতুন সহায়তা দেয়া যায় কিনা তা সহানুভূতির সাথে বিবেচনার অনুরোধও করছি।’

অর্থনীতির প্রধান চালিকাশক্তি ও লাখো লাখো শ্রমিকের কর্মসংস্থানকারী এ খাতটি যেন কোনভাবে বিপর্যয় কবলিত না হয়, সে জন্য সকলে মিলে এক সাথে কাজ করে এ শিল্পকে এগিয়ে নেওয়ার আহ্বান জানান ড. রুবানা হক।

Share This Post

আরও পড়ুন