শিরোনাম
প্রধানমন্ত্রীর সহায়তা তহবিলে এক কোটি টাকা অনুদান দিল চট্টগ্রাম চেম্বার প্রাথমিক বিদ্যালয় ও কিন্ডারগার্টেনের ছুটি বাড়ল ৩০ জুন পর্যন্ত নিষিদ্ধ জঙ্গি সংগঠন আনসার আল ইসলাম’র আইটি বিশেষজ্ঞ গ্রেফতার চট্টগ্রামে সাদার্ন ইউনিভার্সিটিতে দুই মাসব্যাপী আন্তঃবিভাগ বির্তক প্রতিযোগিতা শুরু নাভানাসহ সীতাকুণ্ডের সব কারখানায় ঈদুল আজহার আগে শ্রমিকদের বেতন-বোনাস দাবি পরিবেশ বিষয়ক গল্প : মন পড়ে রয় । নাজিম হোসেন শেখ পিএইচপি অটো মোবাইলসের তৈরি অ্যাম্বুলেন্স উপহার পেল চট্টগ্রাম জেনারেল হাসপাতাল সোতোকান কারাতে স্কুল চট্টগ্রামের কারাতে বেল্ট প্রতিযোগিতা সম্পন্ন চট্টগ্রামের পাহাড় অপরাজনীতি, অপেশাদার আমলাগিরির শিকার হাটহাজারী নাজিরহাট কলেজে বৃক্ষ রোপণ কর্মসূচির উদ্বোধন
রবিবার, ১৩ জুন ২০২১, ০৭:৫৮ পূর্বাহ্ন

পার্বত্য চট্টগ্রাম উন্নয়ন বোর্ডের প্রতি জনমানুষের চাহিদা ও প্রত্যাশা আরো বেড়েছে

পরম বাংলাদেশ ডেস্ক / ১৯ বার এই সংবাদটি পড়া হয়েছে
প্রকাশের সময় : সোমবার, ৭ জুন, ২০২১

রাঙ্গামাটি: সেবা গ্রহীতাদের সর্বোচ্চ সুবিধা প্রাপ্তি, সেবা প্রদান সহজীকরণ প্রভৃতি উদ্দেশ্য বাস্তবায়নে পার্বত্য চট্টগ্রাম উন্নয়ন বোর্ডের উদ্যোগে গণশুনানি অনুষ্ঠিত হয়েছে। রাঙ্গামাটিস্থ প্রধান কার্যালয়ে স্বাস্থ্যবিধি মেনে সীমিত পরিসরে সোমবার (৭ জুন) এ গণশুনানি অনুষ্ঠিত হয়। উন্নয়ন বোর্ডের ভাইস চেয়ারম্যান আশীষ কুমার বড়ুয়া গণশুনানিতে সভাপতিত্ব করেন।

গণশুনানিতে রাঙ্গামাটি ও খাগড়াছড়ি পার্বত্য জেলার বিভিন্ন উপজেলার দুর্গম ও প্রত্যন্ত এলাকা হতে আগত সেবা প্রত্যাশী সমাজের জনপ্রতিনিধি ও স্থানীয় গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গ অংশগ্রহণ করেন।

সভায় ভাইস চেয়ারম্যান উন্নয়ন বোর্ডের বিভিন্ন উন্নয়নমূলক কর্মকান্ডের বিস্তারিত বিবরণ তুলে ধরেন।

এসময় উপস্থিত জনপ্রতিনিধি ও গণ্যমান্য ব্যক্তিগণ বোর্ডের উন্নয়নমূলক কার্যক্রম বিষয়ে তাদের মতামত ও পরামর্শ প্রদান করেন।

পরামর্শ গ্রহণ শেষে ভাইস চেয়ারম্যান বলেন, ‘পার্বত্য চট্টগ্রাম উন্নয়ন বোর্ড একটি উন্নয়নধর্মী প্রতিষ্ঠান। উন্নয়ন বোর্ড কৃষি, সড়ক যোগাযোগ, শিক্ষা, সমাজকল্যাণ ও ভৌত অবকাঠামো উন্নয়ন, ক্রীড়া ও সংস্কৃতি উন্নয়নে নিরলসভাবে কাজ করে যাচ্ছে। সরকারের নীতিমালা ও নির্দেশনা মোতাবেক পার্বত্যাঞ্চলের যেখানে উন্নয়ন কম হয়েছে, সেখানে সুষম উন্নয়নের পদক্ষেপ গ্রহণ করা হয়েছে।’

সেবা প্রত্যাশী জনপ্রতিনিধি ও গণ্যমান্য ব্যক্তিগণ এধরনের গণশুনানি আয়োজন করার জন্য উন্নয়ন বোর্ডকে ধন্যবাদ জানান। তারা বলেন, ‘বোর্ডের উন্নয়নমূলক প্রতিটি কাজের গুণগত সঠিক মান দৃশ্যমান হওয়ায় উন্নয়ন বোর্ড ও এর কাজগুলো জনগণের কাছে গ্রহণযোগ্যতা পেয়েছে। তাই উন্নয়ন বোর্ডের প্রতি জনমানুষের চাহিদা ও প্রত্যাশা আরো বেড়েছে।’

এ সময় অংশগ্রহণকারীরা বোর্ডের নিকট রাস্তা, ব্রীজ, কালভাট, সমিতি অফিস, অনাথালয়ের ছাত্রাবাস ভবন, কৃষি কাজে সেচের জন্য বাঁধ নির্মাণ, সোলার বিদ্যুৎ সরবরাহসহ বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠান সংস্কারের জন্য আবেদন জানান।

সভায় বোর্ড সদস্য (পরিকল্পনা) ড. প্রকাশ কান্তি চৌধুরী ও সদস্য (বাস্তবায়ন) মোহাম্মদ হারুন অর রশীদ অংশগ্রহণকারীদের বিভিন্ন প্রস্তাব ও প্রশ্নের জবাব দেন। এক প্রশ্নের জবাবে তারা জানান, তিন পার্বত্য জেলার যেখানে জাতীয় গ্রীড হতে বিদ্যুৎ সুবিধা পৌঁছানো সম্ভব নয়, উন্নয়ন বোর্ড সেখানে সীমান্তবর্তী এলাকা থেকে শুরু করে পাড়াকেন্দ্রের মাধ্যমে ৪০ হাজার পরিবার এবং ২ হাজার ৫০০ কমিউনিটি সেন্টারকে বিনামূল্যে সৌর বিদ্যুৎ সুবিধা দেবে।

গণশুনানিতে পার্বত্য চট্টগ্রাম উন্নয়ন বোর্ডের সদস্য (পরিকল্পনা) ড. প্রকাশ কান্তি চৌধুরী, সদস্য (বাস্তবায়ন) মোহাম্মদ হারুন-অর-রশীদ, কাউখালী উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান অংপ্রু মার্মা, চাঁন কুমার তনচংগ্যা, ইন্দ্রবংশ ভিক্ষু, সহকারী পরিচালক সুজাতা অনাথালয় আশ্রম, সাক্রাছড়ি উচ্চ বিদ্যালয় কাপ্তাইয়ের প্রধান শিক্ষক আশুতোষ তনচংগ্যা, তপন তালুকদার সাধারণ সম্পাদক বহুমুখী সমবায় সমিতি কাউখালী, ললিত সি চাকমা সাধারন সম্পাদক দুপ্রক রাঙ্গামাটি, তুষিত চাকমা নির্বাহী প্রকৗশলী (চ.দা.) রাঙ্গামাটি, এসএসএস সিএইচটি প্রকল্প পরিচালক, এসএসএস-সিএইচটি খাগড়ছড়ি জেলা প্রকল্প ব্যবস্থাপক, গবেষণা কর্মকর্তা কাইংওয়াই ম্রো, মিজ ডজী ত্রিপুরাসহ বোর্ডের বিভিন্ন পর্যায়ের কর্মকর্তাণ উপস্থিত ছিলেন।

খবর পিআইডির

add

আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই ক্যাটাগরির আরো সংবাদ