শিরোনাম
দুঃস্থ নারীদের নগদ টাকা উপহার দিল হিউম্যান সাপোর্ট ফাউন্ডেশন খালেদা জিয়ার রোগমুক্তি কামনায় বায়েজিদ থানা ছাত্রদলের মিলাদ ও ইফতার বিতরণ স্বেচ্ছাসেবকলীগ নেতা হেলাল উদ্দিনের অর্থায়নে ফ্রি সবজি বাজার আন্দরকিল্লায় রমজানে ডায়াবেটিস রোগীর সমস্যা, সমাধানে করণীয় ও হোমিওপ্রতিবিধান ইঞ্জিনিয়ার্স ইনস্টিটিউশন বাংলাদেশের ৭৩তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উদযাপন চট্টগ্রামে আজ মাহে রমজানের শেষ জুমা; জেনে নিন জুমাতুল বিদার মহত্ত্ব আলোচিত ‘নয়া দামান’ গানের মূল শিল্পী তোসিবা বেগম উপেক্ষিত নিষেধাজ্ঞা সত্ত্বেও ভারত থেকে প্রবেশ বাড়ছে আখাউড়া স্থল বন্দর দিয়ে বিয়ের আগে রক্ত পরীক্ষা কেন করবেন? সরকারিভাবে অন্তত ৯০০ টন অক্সিজেন মজুত আছে
শনিবার, ০৮ মে ২০২১, ০৬:৩১ পূর্বাহ্ন

পবিত্র শবে মেরাজের শিক্ষা

মো. আবদুর রহিম / ৬৩ বার এই সংবাদটি পড়া হয়েছে
প্রকাশের সময় : বৃহস্পতিবার, ১১ মার্চ, ২০২১

মো. আবদুর রহিম: পবিত্র শবে মেরাজ। মহিমান্বিত এ রজনীতে মহানবী হযরত মুহাম্মদ (সা.) আল্লাহর একান্ত নৈকট্য লাভ করেছিলেন। ইসলামের ইতিহাসে শবে মেরাজ অত্যন্ত তাৎপর্যপূর্ণ। যখন সব দিক থেকে রাসূলুল্লাহ (সা.) মারাত্মক সংকট ও শোকের সম্মুখ হয়েছিলেন, সেই দুঃসময়ে আল্লাহ পাক তাঁর প্রিয় হাবিবকে তাঁর সান্নিধ্য লাভের সুযোগ দিয়েছিলেন।

নবীজীর পার্থিব জীবনের অভিভাবক চাচা আবু তালেবের মৃত্যু, প্রাণপ্রিয় সহধর্মিনী উম্মুল মুমিনিন খাদিজার (রা.) ইন্তেকাল, তায়েফের হৃদয় বিদারক ঘটনা, মক্কার কাফিরদের অমানবিক আচরণ, নির্যাতনসহ বিভিন্ন অনাকাঙ্খিত ঘটনায় রাসূলুল্লাহর (সা.) জীবন বিপন্ন ও বিপর্যস্ত হয়ে পড়েছিল। সে সময় রাসুলুল্লাহকে (সা.) আল্লাহর সান্নিধ্য লাভের সুযোগ করে দিয়ে তাঁকে সান্তনা দেওয়া হয়। মিরাজে মহান আল্লাহ তাঁর সবচেয়ে প্রিয় হাবিব মুহাম্মদকে (সা.) পুরস্কার স্বরূপ কয়েকটি নির্দেশনা প্রদান করেন। যথা- পাঁচ ওয়াক্ত নামাজ (এ পাঁচ ওয়াক্ত নামাজ ফজিলতের দিক দিয়ে ৫০ ওয়াক্ত নামাজের সমান); সুরা বাকারার শেষের দুটি আয়াত মেরাজেই অবতীর্ণ হয়; উম্মতে মুহাম্মদীর মধ্যে যারা কখনো শিরক করেনি, তাদের ক্ষমা করার সুসংবাদ দেওয়া হয়েছে; নামাজে পঠিত ‘আত্তাহিয়্যাতু’।

মহানবী (সা.) মিরাজ থেকে ফিরে আসার পর সূরা বণি ইসরাইলের মাধ্যমে ১৪টি নির্দেশনা মানুষের সামনে পেশ করেন। যথা- আল্লাহর সঙ্গে কাউকে শরিক করা যাবে না; মা-বাবার সঙ্গে সদ্ব্যবহার করতে হবে। আল্লাহ বলেন, ‘মা-বাবার সঙ্গে ভালো ব্যবহার কর। তাঁদের একজন বা উভয়ে বৃদ্ধ অবস্থায় যদি তোমাদের সামনে উপনীত হয় তাহলে তাঁদের সঙ্গে উহ শব্দটি পর্যন্ত কর না। তাঁদের ধমকের সুরে জবাব দিয়ো না, বরং তাঁদের সঙ্গে মর্যাদাসূচক কথা বল। তাদের সামনে বিনয়ূ থেক আর দোয়া করতে থাকে ‘হে আমার প্রতিপালক, তাঁদের প্রতি তেমনি দয়া কর, যেমনি তাঁরা শৈশবে আমাদের লালন-পালন করেছেন।’ (সূরা : বনি ইসরাইল, আয়াত : ২৩-২৪) ৩) নিজ কৃতকর্মের জন্য আল্লাহর কাছে তাওবা করতে হবে; আত্মীয় স্বজনকে তাদের অধিকার দিয়ে দিতে হবে। আল্লাহ বলেন, ‘আত্মীয় স্বজনকে তাদের অধিকার দাও। আর মুসাফিরদের হক আদায় করো।’ (সূরা : বনি ইসরাইল, আয়াত: ২৬); অপব্যয় করা যাবে না; মানুষের অধিকার আদায়ে ব্যর্থ হলে বিনয়ের সঙ্গে তা প্রকাশ করতে হবে। ছলচাতুরি ও প্রতারণার আশ্রয় নেওয়া যাবে না; ব্যয়ের ক্ষেত্রে বেহিসাবি হওয়া যাবে না। আবার কৃপণতার প্রদর্শন করো না।; সন্তানদের হত্যা করা যাবে না। এটি মহাপাপ; জেনা-ব্যাভিচারের কাছেও যাওয়া যাবে না। কেননা এটি নিকৃষ্ট ও গর্হিত কাজ।; কোনো পাপীকে অন্যায়ভাবে হত্যা করা যাবে না। কাউকে অন্যায়ভাবে হত্যা করা হলে তার উত্তরাধিকারীকে ওই অধিকার দেওয়া হয়েছে যে, সে চাইলে রক্তের বিনিময় চাইতে পারে। তবে প্রতিশোধের ব্যাপারে বাড়াবাড়ি করা যাবে না।; এতিমের সম্পদের ধারে কাছেও যাবে না।; ওজনে কম দিয়ে মানুষকে ক্ষতিগ্রস্থ করা যাবে না। দাঁড়িপাল্লা সোজা করে ধরতে হবে।; যে বিষয়ে জ্ঞান নেই, সে বিষয়ে মতামত দেওয়া অন্যায়। চোখ, কান, অন্তর সবকিছুই কিন্তু একদিন জিজ্ঞাসিত হবে ও জমিনে দম্ভ সহকারে চলা যাবে না।

এগুলো পবিত্র মেরাজের নির্দেশনা। প্রতিটি মুসলিম নর-নারী এগুলো মেনে জীবন-জীবিকা পরিচালনা করবে। শবে মিরাজের শিক্ষা আমাদের বাস্তব জীবনে অক্ষরে অক্ষরে প্রতিফলিত হক। আল্লাহ আমাদের এ তৌফিক দান করুন। আমিন।

লেখক: সাধারণ সম্পাদক, বঙ্গবন্ধু ও জাতীয় চার নেতা স্মৃতি পরিষদ

add

আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই ক্যাটাগরির আরো সংবাদ