শিরোনাম
এস আলম গ্রুপের বিদ্যুৎ কেন্দ্রে পুলিশের গুলিতে শ্রমিক হত্যার প্রতিবাদে বিক্ষোভ সমাবেশ গ্যালাক্সি এম০২ হ্যান্ডসেটে ১০০ দিনের রিপ্লেসমেন্ট ওয়্যারেন্টি দিচ্ছে স্যামসাং বাঁশখালীতে গুলি করে শ্রমিক হত্যা; সমাজতান্ত্রিক ছাত্র ফ্রন্ট চট্টগ্রামের তীব্র নিন্দা আন্তর্জাতিক ফ্লাইট স্থগিতকরণ প্রভাব ফেলছে পদ্মা সেতু রেল সংযোগ ও অন্য মেগা প্রকল্পে বাঁশখালীতে এস আলম গ্রুপের কয়লা বিদ্যুৎ কেন্দ্রে শ্রমিক নিহতে খেলাফত মজলিসের নিন্দা বীমা খাতে প্রথম ‘তিন ঘন্টায় কোভিড ক্লেইম ডিসিশন’ সার্ভিস চালু মেটলাইফের মুজিবনগর সরকারের ৪০০ টাকার চাকুরে জিয়ার বিএনপি ইতিহাসকে অস্বীকার করতে চায় ধারাবাহিক ছোট গল্প: পতিতার আলাপচারিতা । পর্ব পাঁচ এস আলম গ্রুপের কয়লা বিদ্যুৎকেন্দ্রে পুলিশের গুলিতে শ্রমিক হত্যার নিন্দা ও বিচার দাবি সাতকানিয়ায় সোয়া কোটি টাকার ৩৮ হাজার ইয়াবাসহ ট্রাক চালক ও হেলপার গ্রেফতার
রবিবার, ১৮ এপ্রিল ২০২১, ০৮:২৫ পূর্বাহ্ন

নির্বাচনী আচরণ বিধি অপবিত্র করছেন প্রার্থীরা; পাপমুক্তের ভার পড়ছে ম্যাজিস্ট্রেটদের ওপর

নিজস্ব প্রতিবেদক / ১০১ বার এই সংবাদটি পড়া হয়েছে
প্রকাশের সময় : রবিবার, ১৭ জানুয়ারী, ২০২১

চট্টগ্রাম: আসন্ন চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশনের (চসিক) নির্বাচন উপলক্ষে প্রচার-প্রচারণায় আচরণ বিধি লঙ্ঘন করেই চলেছেন প্রার্থীরা। আর প্রার্থীদের এ সব অনিয়মের বেড়াজাল ভাঙ্গার ভার পড়ছে চট্টগ্রাম জেলা প্রশাসনের ম্যাজিস্ট্রেটদের ওপর।

নির্বাচনী আচরণ বিধি প্রতিপালনে ও আইন শৃঙ্খলা রক্ষার্থে চট্টগ্রাম সিটিতে রোববার (১৭ জানুয়ারি) ১৩ জন নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট অভিযান চালিয়েছেন।

২৭, ৩৭ ও ৩৭ নম্বর ওয়ার্ডে ম্যাজিস্ট্রেট আব্দুস সামাদ শিকদার কাউন্সিলর প্রার্থীদের দলীয় পরিচয় সম্বলিত ব্যানার, পোস্টার, অবৈধ ব্যানার ইত্যাদি জব্দ করেন। কাউন্সিলর প্রার্থীদের দলীয় পরিচয় সম্বলিত অবশিষ্ট পোস্টার ও ব্যানারসমূহ নিজ দায়িত্বে অপসারণ করার জন্য নির্দেশনা দেন। আগ্রাবাদ সিডিএ আবাসিক এলাকায় অনুমোদন ব্যতীত কাছাকাছি দুটি নির্বাচনী ক্যাম্প স্থাপন করায় সেগুলো ভেঙ্গে দেয়া হয়।

১২ নম্বর সরাইপাড়া ওয়ার্ডের হালিশহর রোডের পানির কল, বউবাজার এলাকায় কাউন্সিলর প্রার্থী মো. সাইফুল আলমের (টিফিন ক্যারিয়ার প্রতীক) পক্ষে মোটর যানবাহনে পোস্টার লাগিয়ে মাইক যোগে নির্বাচনী প্রচার কার্যক্রম করছিলেন। মোটর‍ যানবাহনে পোস্টার লাগানোর দায়ে সিটি কর্পোরেশন (নির্বাচন আচরণ) বিধিমালা, ২০১৬ এর ৮ (৮) ধারা ভঙ্গ করায় কাউন্সিলর প্রার্থীর কর্মী জালালউদ্দিন আকবরকে আর্থিক সামর্থ্য বিবেচনায় পাঁচশ টাকা জরিমানা করেন ম্যাজিস্ট্রেট তৌহিদুল ইসলাম। অনুমোদন বিহীন সাইজের পিভিসি ব্যানার দিয়ে আলোকসজ্জা করার সময় একজন কাউন্সিলর পদপ্রার্থীর কর্মীদের নিকট থেকে ব্যানার ও আলোকসজ্জার বাতি জব্দ করা হয়। পাশাপাশি সব ওয়ার্ডের কাউন্সিলর প্রার্থীদের পোস্টারে দলীয় মনোনীত শব্দ যাতে না থাকে, সে জন্য সতর্ক করা হয় এবং যেগুলো টাঙ্গানো আছে, সেগুলো সরানোর নির্দেশনা দেয়া হয়।

ম্যাজিস্ট্রেট এসএম আলমগীর ১৪, ১৫ ও ২১ নম্বর সাধারণ ওয়ার্ডে (সংরক্ষিত মহিলা ওয়ার্ড ৫) কাউন্সিলর প্রার্থীদের দলীয় পরিচয় সম্বলিত ব্যানার, ফেস্টুন ও পোস্টার অপসারণ করেন।

ম্যাজিস্ট্রেট উমর ফারুকের নেতৃত্বে ৩৩, ৩৪ ও ৩৫ নম্বর ওয়ার্ডে ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনাকালে দেখা যায়, বেশির ভাগ কাউন্সিলরদের পোস্টার, ব্যানার ও লিফলেটে নিজেদের দলীয় প্রার্থী হিসেবে পরিচয় দিয়ে প্রচারণা চালাচ্ছেন। এটি কাউন্সিলরদের জন্য নির্বাচন আচরণ বিধি লঙ্ঘন। যেহেতু কাউন্সিলর দলীয় ভাবে মনোনীত নয়, তাই তাদের এ ধরনের পোস্টার, ব্যানার, লিফলেট সরানোর নির্দেশনা দেয়া হয়েছে।

ম্যাজিস্ট্রেট মাসুদ রানা ৭, ৮ ও সংরক্ষিত (মহিলা) ৩ নম্বর ওয়ার্ডে নির্বাচনী আচরণ বিধিমালা ভঙ্গ করে ব্যানার ও পোস্টার লাগানোয় একজনকে এক হাজার টাকা জরিমানা করেন।

আচরণ বিধি লঙ্ঘন করে পোস্টারে কাউন্সিলর পদপ্রার্থীর ছবির পাশাপাশি এক মেয়র প্রার্থীর ছবি ব্যবহারের দায়ে ২৯ নম্বর ওয়ার্ডের কাউন্সিলর পদপ্রার্থী মো. সাজ্জাদ হোসেনের এক সমর্থককে পাঁচ হাজার টাকা জরিমানা করেন ম্যাজিস্ট্রেট গালিব চৌধুরী।

ম্যাজিস্ট্রেট সুরাইয়া ইয়াসমিনের অভিযানে ২২, ৩০ ও ৩১ নম্বর ওয়ার্ডে এবং রেজওয়ানা আফরিনের অভিযানে ৯, ১০ ও ১৩ নম্বর সাধারণ ওয়ার্ডে নির্বাচনী আচরণ বিধি ভঙ্গ করে লাগানো ব্যানার ও পোস্টার পুলিশ ও স্থানীয়দের সহযোগিতায় নামিয়ে ফেলা হয় এবং প্রার্থীদের টেলিফোনে মৌখিকভাবে সতর্ক করা হয়।

add

আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই ক্যাটাগরির আরো সংবাদ