বৃহস্পতিবার, ১৯ মে ২০২২, ০৯:১০ অপরাহ্ন

নিকুঞ্জ-১ এ চিটাগাং স্টক এক্সচেঞ্জের অফিস উদ্বোধন

পরম বাংলাদেশ
  • প্রকাশ : বৃহস্পতিবার, ১১ মার্চ, ২০২১
  • ১০৭ Time View

ঢাকা: নিকুঞ্জ-১ এ অবিস্থত চিটাগাং স্টক এক্সচেঞ্জের (সিএসই) ঢাকা অফিসের উদ্বোধন করা হয়েছে।

বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ এন্ড এক্সচেঞ্জ কমিশনের (বিএসইসি) চেয়ারম্যান প্রফেসর শিবলী রুবাইয়াত-উল-ইসলাম বৃহস্পতিবার (১১ মার্চ) এটি উদ্বোধন করেন।

অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন বিএসইসির কমিশনার খন্দকার কামালুজ্জামান, ড. শেখ শামসুদ্দিন আহমেদ, প্রফেসর ড. মো. মিজানুর রহমান এবং মো. আব্দুল হালিম। অতিথি ছিলেন ডিএসই এর চেয়ারম্যান মো. ইউনুসুর রহমান এবং বিশেষ অতিথি ছিলেন সিএসই এর চেয়ারম্যান আসিফ ইব্রাহীম।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে শিবলী রুবাইয়াত উল ইসলাম বলেন, ‘আমাদের অর্থনীতিতে অনেক কিছু করার আছে। আমরা দায়িত্ব নেয়ার পরে চেষ্টা করছি, ক্যাপিটাল মার্কেট যেন আামাদের অর্থনীতিতে আরো অবদান রাখতে পারে, সে জন্য কি করে নতুন নতুন এভিনিউ খোলা যায়। এর মধ্যে উল্লেখযোগ্য হল- যেখানে ঠিক ঠাক করা সম্ভব সেখানে সেটা করা হচ্ছে, যেখানে সম্ভব হচ্ছে না সেখানে এক্সিট পলিসি করছি , প্রসিকিউশন করছি। কমিশনের সদস্যরা নিরলসভাবে কাজ করে যাচ্ছি এবং জেনে অবাক হবেন যে, গত বছরের ১৭ মে থেকে দায়িত্ব নেয়ার পর থেকে এখন পর্যন্ত কমিশনের কেউই একদিনও ছুটি নেননি এবং ঝুঁকি নিয়ে কাজ করে যাচ্ছি।’

তিনি আরো বলেন, ‘মানি মার্কেটে নন-পারফরমিং লোনের পরিমাণ যা কাগজে কলমে রয়েছে, তার চাইতে আসল পরিমাণ অনেক বেশী। গত ৭-৮ মাসের মধ্যে ব্যাকিং সেক্টরের ক্ষেত্রে যে এক্সপোজার এবং ইরোশন ছিল তা অনেকখানি কমে গেছে। তারা শেষ কোর্য়াটারে বেশ প্রফিট করেছে এবং যে প্রফিট তারা করেছে তাতে তাদের ক্ষতি পুষিয়ে লাভের মুখ দেখছেন। আমি সব ব্যাংকের সাথে নিয়মিত খোঁজখবর রাখি এবং আপনারা যদি খোঁজ নেন দেখবেন, তাদের ইনভেস্টমেন্ট, রিটার্ন, প্রফিট গত ৩ মাসে অনেক লাভ করেছে। আমরা যদি আরেকটু বেশী কাজ করি, রেগুলেটর, স্টক এক্সচেঞ্জ এবং ইন্টারমিডিয়ারী সবাই মিলে, তাহলে আমরা যে লক্ষ্যে কাজ করে যাচ্ছি তা অর্জিত হবে এবং বছরের শেষে সবাই যারা (ব্যাংক, ইনস্টিটিউশন) ইনভেস্টমেন্ট করেছে তারা লাভবান হবেন।’

বিএসইসির চেয়ারম্যান বলেন, ‘যদি আমরা আমাদের লক্ষ্যে পৌছাঁতে পারি তবে ক্যাপিটাল মার্কেটকে নিয়ে কোন কথা বলার কিছু থাকবে না এবং কোন দোষ থাকবে না। কিন্তু ব্যাংকিং সেক্টরের ক্ষেত্রে সে সুযোগ কম। আমাদের অনেক কাজ করতে হবে এবং অনেক কষ্ট করতে হবে। করোনার মধ্যেও যে কাজ করে যাচ্ছি তার ফলও আমরা পাচ্ছি। আমরা খবর পেয়েছি যে, ডিএসই এর যে নতুন অফিস উদ্ভোবন করেছে, সেখানে কর্মচাঞ্চল্য এসেছে। শুধু বেতনই পর্যাপ্ত নয়, কাজ করার জন্য এর পরিবেশ একটি গুরুত্বপূর্ণ এবং সেটি কর্মকর্তাদের দিতে হবে। কর্মকর্তাদের বুুদ্ধি বিবেচনা, দক্ষতার সঠিক ব্যবহার পেতে হলে সুন্দর পরিবেশও দরকার।’

অনুষ্ঠানে সিএসই এর ব্যবস্থাপনা পরিচালক মামুন-উর-রশিদ সমাপনী বক্তব্য রাখেন।

এ সময় সিএসই এর বোর্ড সদস্য প্রফেসর এসএম সালামত ঊল্লাহ ভূঁইয়া, এসএম আবু তায়েব, সোহেল মোহাম্মদ শাকুর, মো. লিয়াকত হোসেন চেীধুরী, আনিতা গাজী ইসলাম, সাইদ মোহাম্মদ তানভীর, মো. ছায়াদুর রহমান, মো. সিদ্দিকুর রহমান, মো. মোহাম্মদ মহিউদ্দিন উপস্থিত ছিলেন।

প্রেস বার্তা

Share This Post

আরও পড়ুন