বুধবার, ২২ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০৭:৫৭ পূর্বাহ্ন

নগরীর ডেকোরেটার্স মালিক-শ্রমিকদের ত্রাণ দিল চট্টগ্রাম জেলা প্রশাসন

নিজস্ব প্রতিবেদক
  • প্রকাশ : রবিবার, ৪ জুলাই, ২০২১
  • ২৪ Time View

চট্টগ্রাম: করোনা ভাইরাসজনিত উদ্ভূত পরিস্থিতিতে কঠোর বিধি-নিষেধের সময়ে চট্টগ্রাম সিটির ডেকোরেটার্স মালিক-শ্রমিক সংগঠনের অস্বচ্ছল ৩০০ সদস্যের মধ্যে ত্রাণ বিতরণ করেছে চট্টগ্রাম জেলা প্রশাসন। প্রতি প্যাকেট ত্রাণের মধ্যে ছিল দশ কেজি চাল, এক কেজি ডাল, এক কেজি চিনি, এক কেজি লবণ, এক লিটার সয়াবিন তেল ও একটি সাবান।

রোববার (৪ জুলাই) সকালে নগরীর এমএ আজিজ স্টেডিয়াম সংলগ্ন জিমনেসিয়াম হলে তাণ বিতরণ করেন চট্টগ্রাম বিভাগীয় কমিশনার মো. কামরুল হাসান।

চট্টগ্রামের জেলা প্রশাসক (ডিসি) মোহাম্মদ মমিনুর রহমানের সভাপতিত্বে ত্রাণ সামগ্রী বিতরণ অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন চট্টগ্রাম মহানগর মুক্তিযোদ্ধা সংসদের ইউনিট কমান্ডার বীর মুক্তিযোদ্ধা মোজাফফর আহমদ, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) এসএম জাকারিয়া, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (রাজস্ব) মোহাম্মদ নাজমুল আহসান, বিভাগীয় কমিশনারের পিএস ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট খন্দকার মো. ইখতিয়ার উদ্দিন আরাফাত, এনডিসি ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মাসুদ রানা, নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট নুর জাহান আক্তার সাথী, নাঈমা ইসলাম, জিল্লুর রহমান, আশরাফুল ইসলাম, প্রতীক দত্ত, জেলা ত্রাণ কর্মকর্তা সজীব কুমার চক্রবর্তী, জেলা নাজির মো. জামাল উদ্দিন প্রমূখ।
স্বেচ্ছাসেবক টিম সার্ক বাংলাদেশ ফাউন্ডেশন ত্রাণ বিতরণ কাজে সহযোগিতা করেন।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে মো. কামরুল হাসান বলেন, করোনা ভাইরাস প্রতিরোধে মন্ত্রীপরিষদ ঘোষিত বিধি-নিষেধ চলাকালীন কর্মহীন হয়ে পড়া কোন অসহায় মানুষ খাদ্য সংকটে থাকবে না। সরকারের নির্দেশনায় সমাজের দুস্থ, হতদরিদ্র ও অস্বচ্ছল মানুষের হাতে সরকারের উপহার সামগ্রী পৌঁছে দেয়া হচ্ছে। কর্মহীন কোন মানুষ যাতে সরকারী সহযোগিতা থেকে বাদ না যায়, তা কঠোরভাবে তদারকি করা হচ্ছে।’

করোনা মোকাবেলায় সচেতনতা, শারীরিক দুরত্ব বজায় রাখা ও মাস্ক পরিধানসহ শতভাগ স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলার জন্য সবার কাছ আহ্বান জানান তিনি।

বিভাগীয় কমিশনার আরো বলেন, নিম্নবিত্ত ও মধ্যবিত্তদের মধ্যে যারা প্রকাশ্যে সাহায্য নিতে সংকোচবোধ করছে বা সাহায্য চেয়ে সরকারী ৩৩৩ নম্বরে ফোন ও আমাদের কাছে এসএমএস করছেন, প্রতি রাতে তাদের বাসা-বাড়িতে গিয়ে উপহার সামগ্রী পৌঁছে দেয়া হচ্ছে।’

মোহাম্মদ মমিনুর রহমান বলেন, ‘সরকারি বিধি-নিষেধের মধ্যে যারা অতি কষ্টে দিন যাপন করছেন, তাদের প্রত্যেককে সরকারী ত্রাণের আওতায় আনা হবে।’

একেবারে কর্মহীন হয়ে পড়া মানুষের সহায়তায় সরকারের পাশাপাশি সমাজের ধনার্ঢ্য ব্যক্তি ও প্রতিষ্ঠানকে এগিয়ে আসার আহ্বান জানান তিনি।

Share This Post

আরও পড়ুন