শিরোনাম
প্রধানমন্ত্রীর সহায়তা তহবিলে এক কোটি টাকা অনুদান দিল চট্টগ্রাম চেম্বার প্রাথমিক বিদ্যালয় ও কিন্ডারগার্টেনের ছুটি বাড়ল ৩০ জুন পর্যন্ত নিষিদ্ধ জঙ্গি সংগঠন আনসার আল ইসলাম’র আইটি বিশেষজ্ঞ গ্রেফতার চট্টগ্রামে সাদার্ন ইউনিভার্সিটিতে দুই মাসব্যাপী আন্তঃবিভাগ বির্তক প্রতিযোগিতা শুরু নাভানাসহ সীতাকুণ্ডের সব কারখানায় ঈদুল আজহার আগে শ্রমিকদের বেতন-বোনাস দাবি পরিবেশ বিষয়ক গল্প : মন পড়ে রয় । নাজিম হোসেন শেখ পিএইচপি অটো মোবাইলসের তৈরি অ্যাম্বুলেন্স উপহার পেল চট্টগ্রাম জেনারেল হাসপাতাল সোতোকান কারাতে স্কুল চট্টগ্রামের কারাতে বেল্ট প্রতিযোগিতা সম্পন্ন চট্টগ্রামের পাহাড় অপরাজনীতি, অপেশাদার আমলাগিরির শিকার হাটহাজারী নাজিরহাট কলেজে বৃক্ষ রোপণ কর্মসূচির উদ্বোধন
রবিবার, ১৩ জুন ২০২১, ০৭:৩৭ পূর্বাহ্ন

নকল সোনার বার, লোভী নারী ও প্রতারক রিক্সা চালকের উপাখ্যান

নিজস্ব প্রতিবেদক / ১৭৩ বার এই সংবাদটি পড়া হয়েছে
প্রকাশের সময় : শনিবার, ১ মে, ২০২১

চট্টগ্রাম: শুক্লা দে (৪০) ও গোপী বিশ্বাস (৪০) দামপাড়া ওয়াসা মোড়ের চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনের স্বাস্থ্য কর্মী। তারা দুইজন বৃহস্পতিবার (২৯ এপ্রিল) সকাল সাড়ে দশটার দিকে কোতোয়ালী মোড় হতে মো. জালাল মিয়ার (২৮) রিক্সায় ৭০ টাকায় ভাড়া করে চকবাজারের গোল পাহাড় মোড়ের ডাচ বাংলা ব্যাংকের উদ্দেশ্যে রওয়ানা দেন। পথে সিডিএ বিল্ডিংয়ের গেইটের একটু সামনে পৌঁছামাত্র রিক্সার সামনে রাস্তার উপর প্যাকেটে মোড়ানো একটি স্বর্ণের বার পেয়ে রিকশাচালক পকেটে নেয়। কোতোয়ালী থানার নন্দনকানন ডিসি হিলের বন সংরক্ষণ কার্যালয়ের গেইটে সামনে রিক্সাটি পৌঁছালে রিক্সাচালক তার রিক্সার চেইন নষ্ট হয়ে গিয়েছে বলে শুক্লা দে ও গোপী বিশ্বাসকে তাদের পিছনে থাকা আরেকটি রিক্সা ঠিক করে দেয়। রিক্সা ঠিক করে দেওয়ার সময় রিকশাচালক দুইজন বলে, ‘আমরা গরিব মানুষ! এত ওজনের সোনা দিয়ে কি করব? দিদি, আমাদের কিছু টাকা-পয়সা অথবা স্বর্ণালংকার দিয়ে আপনারা এ সোনার বারটি রেখে দেন। শুক্লা দে লোভে পড়ে তাদের কথায় রাজি হয়ে সাথে থাকা এক জোড়া তিন আনা ওজনের কানের দুল, একটি চার আনা ওজনের আংটি ও নগদ ৪০০ টাকা দিয়ে প্যাকেট করা সোনার বারটি নিয়ে নেয়। সে সময় প্রথম রিকশার চালক মো. জালাল মিয়া ৭০ টাকা ভাড়ার মধ্যে ২০ টাকা নেয়। পরবর্তী শুক্লা দে ও গোপী বিশ্বাস রিক্সা করে কোতোয়ালীর মোমিন রোডের সাহাবুদ্দিন ডেকোরেটর্সের সামনে পৌঁছালে রিকশাচালক রিক্সার চেইন নষ্ট হয়ে গেছে বলে তাদেরকে রিক্সা হতে নামিয়ে দেয়। রিক্সা ভাড়া বাবদ ৫০ টাকা দিয়ে রিক্সা হতে নামার সাথে সাথে চোখের পলকের মধ্যে রিকশাচালক মো. কবির হোসেন (৩২) তার রিক্সা নিয়া উধাও হয়ে যায়। এতে সন্দেহ হলে শুক্লা দে ও গোপী বিশ্বাস অন্য একটি রিক্সা নিয়ে ফের একই পথে কোতোয়ালীর নন্দন কানন ডিসি হিল বন সংরক্ষণ কার্যালয়ের সামনে আসলে মো. জালাল মিয়াকে সেখানে দেখতে পান। তাকে তাদের দেওয়া সোনার বিষয়ে জিজ্ঞাসা করলে সে এলোমেলো কথাবার্তা বলতে থাকে। তার আচরণ সন্দেহজনক হওয়ায় স্বর্ণালংকার ও নগদ টাকা ফেরত চাইলে জালাল মিয়া বিভিন্নভাবে ছলচাতুরী করে স্বর্ণগুলো এনে দেওয়ার কথা বলে রিক্সা নিয়ে কৌশলে পালিয়ে যায়।

এভাবে দুই রিক্সাওয়ালা পরস্পর যোগসাজশে নকল সোনার বারের লোভ দেখিয়ে খাঁটি স্বর্ণ ও নগদ টাকা প্রতারণার মাধ্যমে আত্মসাৎ করে।

পরবর্তী শুক্লা দে শুক্রবার (৩০ এপ্রিল) বিকাল তিনটার দিকে দুই রিক্সাওয়ালাকে সিনেমা প্যালেস মোড়ে দেখতে পেয়ে কোতোয়ালী থানা পুলিশকে খবর দেন। এসআই মো. মোমিনুল হাসান টিমসহ ওই স্থানে গিয়ে রিক্সা চালক দুইজনকে আটক করে। জিজ্ঞাসাবাদে তারা তাদের নাম ঠিকানাসহ ঘটনার কথা স্বীকার করে। তাদের হেফাজত হতে একটি রিক্সা ও একটি মোটরসাইকেল জব্দ করে পুলিশ। পরে তাদের দেওয়া তথ্য মতে, মুধুসুদন চৌধুরীর (৬৫) হেফাজত হতে ওই স্বর্ণালংকারগুলো উদ্ধার করা হয়।

এ ঘটনায় বাাদি হয়ে শুক্লা দে মামলা করলে রিক্সা চালক মো. জালাল মিয়া ও মো. কবির হোসেন এবং ক্রেতা মুধুসুদন চৌধুরীকে গ্রেফতার করে কোতোয়ালী থানা পুলিশ।

add

আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই ক্যাটাগরির আরো সংবাদ