শিরোনাম
সিভাসুর বিভিন্ন সেমিস্টারের ফাইনাল পরীক্ষা ১৫ জুন থেকে অনলাইনে কবিতা: আমার আমি । ইমতিয়াজ মাহমুদ নাঈম পরিকল্পিতভাবে ভাইকে ফাঁসানোর আগেই র‌্যাবের হাতে ধরা করোনাকালে ঈদুল ফিতরে স্বাস্থ্য সুরক্ষায় আমাদের করনীয় মোমেনবাগ ক্লাবের উদ্যোগে দুস্থ পথচারীদের মাঝে ঈদ উপহার বিতরণ মুরাদপুরে রক্তাক্ত গন্ডামারা: এক । শুরু থেকেই স্থানীয়রা এস আলম গ্রুপকে অবিশ্বাস করতে থাকে সিএমপির সন্ত্রাসী তালিকায় আবুল হাসেম বক্কর ও হাসান মুরাদ; যুবদলের নিন্দা ও প্রতিবাদ ফেনীতে ইসলামী হোমিওরিসার্চ সেন্টারের ৪১ দিন ব্যাপী প্রশিক্ষণ কর্মশালা সম্পন্ন করোনা: দেশে ২৪ ঘণ্টায় মৃত ৩৩; নতুন সনাক্ত এক হাজার ২৩০ জনের উপায়-এ সবচেয়ে কম খরচে এটিএম ক্যাশ আউট
বুধবার, ১২ মে ২০২১, ০৪:৫৩ অপরাহ্ন

ধারাবাহিক গল্প: হঠাৎ দেখা । পর্ব তিন

শাশ্বতী ভট্টাচার্য / ৭২ বার এই সংবাদটি পড়া হয়েছে
প্রকাশের সময় : শনিবার, ২০ মার্চ, ২০২১

আগন্তুকের কাছে দ্বিতীয় বার এমন প্রশ্ন আমায় বিভ্রান্ত করে তুলেছে।
অদ্ভুত ব্যাপার..! আমি মনে মনে যা ভাবছি বা কল্পনা করছি, তা খুব সহজেই আগন্তুক বুঝে যাচ্ছে। এ ও কি সম্ভব..!

এতটা কি করে অদ্ভুতভাবে কেউ কারোর অন্তরের কথা হুবুহু মিলিয়ে জানতে পারে!

প্রথম দিক থেকেই একে সাধারণ ব্যক্তি বলে আমার মনেই হয় নি এক বারের জন্যও। এর পোশাক দেখে যদি একে কেউ সাধারণ ভেবে যাচাই করতে চায় তবে সেটা তার নিতান্ত ভুল ছাড়া আর কিছুই হবে না।

লোকটার চোখে মুখে অদ্ভুত একটা মায়া লেগে আছে যদিও অবয়বে বেশ কাঠিন্য একটা ছাপ ধরে রাখার প্রবল ইচ্ছাশক্তি তার মাঝে দেখা যাচ্ছে। অনিচ্ছা থাকার সত্বেও বার বার লোকটাকে নিয়ে হাজারো ভাবনা নিজের মনের মধ্যে কাজ করছে। যদিও লোকটার অদ্ভুত প্রশ্ন তার উপর রাগিয়ে দেয়ার যথেষ্ট হেতু হতে পারত। তবুও কেন জানি না তার উপর রেগে থাকার ইচ্ছে বিন্দুমাত্র নিজের মধ্যে খুঁজে পাচ্ছি না। বরং যত বার আগন্তুকের চোখে চোখ পড়ছে, ঠিক ততবার গভীর সমুদ্রে তলিয়ে যাবার মত এক অজানা অনুভূতি সৃষ্টি হচ্ছে মনের কোণে……। যার পরিসীমা পরিমাপ করা কেবল বৃথা চেষ্টার সমতুল্য।

-আমার দিকে তাকিয়ে দৃষ্টিতে ক্ষীণতা এনে কি লাভ? (গম্ভীর গলায় প্রশ্নের তীর ছুঁড়ে বসল আগন্তুক)

কিছুক্ষণ চুপ থেকে কিছু ভেবে না পেয়ে বললাম, লাভ না হলেও তাকিয়ে থাকলে তাহার মাঝে ক্ষতি কি আছে?

আগন্তুক অদ্ভুতভাবে মুচকী হেসে চোখে চোখ রেখে বলল, অহেতুকী ভাবনা…।

প্রশ্নের উওরগুলো আমার জানা নেই, ঢুক গিলে নিয়ে বললাম, সবকিছু কি হেতু নিয়ে হয়?

হা হা হা হা হা হা হা হা (জোরালো গলায় আগন্তকের হাসির শব্দ রাত্রির নীরবতায় ভাঙ্গন দিচ্ছে)। প্রশ্নের উত্তরে বলল, হা। তারপর মুচকি হেসে বলল, ওয়াইন খাবেন?

আচমকা এমন প্রশ্ন শুনে মনে হল- কোন ঘোর কাটিয়ে উঠেছি। আমি ঠিক শুনেছি কিনা সেটাও নিয়ে দ্বিধায় আছি।

আগন্তক তার সাথে করে আনা কালো রঙের থলের ভিতর থেকে কাচের বোতল আর একটা হোয়াইট গ্লাস বের করলো। খুব যত্ন নিয়ে বোতলের ছিপ খুলে ঘ্রাণ নিল। তারপর গ্লাসে ঢেলে প্রতিটি চুমুক খুব তৃপ্তির সাথে নিতে লাগল।

আমি আগন্তকের দিকে হা করে তাকিয়ে আছি…….। হুট করে আগন্তুক বলল, চানাচুর খাবেন?

আমি ভ্যাবাচেকা খেয়ে বললাম, জ্বি….? কিন্তু মাঝরাতে ঝাল কিছু পাব কোথায়?

এমন সময় হঠাৎ করে তিনি একটা ঝালমুড়ির প্যাকেট বাড়িয়ে বললেন, রাতে ঘুম না আসার জন্য এটা খুব উপকারী ও উপাদেয় বটে। একবার টেস্ট করবেন নাকি?

অবাক পানে তার দিকে তাকিয়ে, হাতে থেকে চানাচুর প্যাকেট নিয়ে প্রশ্ন করলাম, কে আপনি?
আগন্তুক এক চুমুক রেড ওয়াইন নিয়ে বলল, তা জানা কি বেশি প্রয়োজন?

কিছুক্ষণ আগে পর্যন্ত তা প্রয়োজন ছিল না। কিন্তু এ মুহূর্তে জানা প্রয়োজন বোধ করছি।

বেশ রহস্য করে তাকিয়ে উচ্চস্বরে তিনি হেসে উঠে বললেন, অধিক আগ্রহ ভাল নয়।

এবার বেশ রেগে গিয়ে বললাম, প্রশ্নের উত্তরে প্রশ্ন করা পছন্দ নয়……।

(চলবে…..)

add

আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই ক্যাটাগরির আরো সংবাদ