মঙ্গলবার, ১৩ এপ্রিল ২০২১, ০১:০৯ অপরাহ্ন

ঠান্ডা মাথার খুনি জিয়ার মরনোত্তর ফাঁসি চাইলো চট্টগ্রামের জাসদ

রিপোর্টারের নাম / ১৫০ বার এই সংবাদটি পড়া হয়েছে
প্রকাশের সময় : রবিবার, ৮ নভেম্বর, ২০২০

চট্টগ্রাম : ১৯৭৫ সালের ৭ নভেম্বর ঐতিহাসিক ঘটনায় মহানায়ক কর্নেল তাহের আর মেজর জিয়া বিশ্বাসঘাতক ও খলনায়ক ছিল দাবি করে জিয়ার মরনোত্তর ফাঁসির চাইলেন জাসদ চট্টগ্রামের নেতৃবৃন্দ।

শনিবার (৭ নভেম্বর) বিকাল তিনটায় লালদীঘির পাড়ে জাসদ কার্যালয়ে ৭ নভেম্বরের সিপাহী-জনতার অভ্যূত্থানের মহানায়ক, মুক্তিযুদ্ধের ১১ নম্বর সেক্টরের কমান্ডার কর্নেল আবু তাহের বীরোত্তমের প্রতিকৃতিতে পুষ্পস্তবক অর্পণ শেষে আলোচনা সভায় নেতৃবৃন্দরা এ সব কথা বলেন।

সভায় বক্তারা আরো বলেন, ‘১৯৭৫ সালের ৭ নভেম্বর কর্নেল তাহের ও জাসদের নেতৃত্ব সিপাহী-জনতার অভ্যূত্থান, বঙ্গবন্ধু ও জাতীয় চার নেতা হত্যা, অবৈধ ক্ষমতা দখল ও সংবিধান লংঘন, ব্যক্তি ও গোষ্ঠী স্বার্থে সেনাবাহিনীকে ব্যবহার, হত্যা-ষড়যন্ত্রের রাজনীতি এবং ঔপনিবৈশিক রাষ্ট্রকাঠামো অবসানের লক্ষ্যে সংগঠিত একটি ঐতিহাসিক মহান ঘটনা। এ ঘটনা প্রবাহে কর্নেল আবু তাহেরের নেতৃত্বে এবং জাসদের সহযোগিতায় সিপাহি-জনতার অভ্যুত্থান হয়েছিল। এ অভ্যুত্থানের উদ্দেশ্য ছিল দেশে গনতন্ত্র প্রতিষ্ঠা, ছয় মাসের মধ্যে নির্বাচন, রাজবন্দী মুক্তি, প্রতিরক্ষা বাহিনীর সংস্কার প্রভৃতি বাস্তবায়ন। কিন্তু অত্যন্ত দুঃখজনক হলেও সত্য যে, ঠান্ডা মাথার খুনি জিয়াউর রহমানের ষড়যন্ত্রের কারণে কর্নেল তাহের এ অভ্যুত্থানের বিজয় ধরে রাখতে ব্যর্থ হয়েছিলেন।’

জাসদ নেতৃবৃন্দ বলেন, ‘জিয়াউর রাহমান ক্ষমতা কুক্ষিগত করে, পরে সাজানো মামলা দিয়ে কর্নেল আবু তাহেরকে ফাঁসি দিয়ে হত্যা করেন। এ সত্য আজ প্রতিষ্ঠিত এবং সর্বোচ্চ আদাল কর্তৃক স্বীকৃত যে, জিয়াউর রহমান ঠান্ডা মাথায় কর্নেল আবু তাহেরকে প্রহসনের বিচারের মাধ্যমে হত্যা করে সিপাহি-জনতার অভ্যুত্থান কুলষিত করেছিল।’

সভায় ঠান্ডা মাথার খুনি জিয়াউর রহমানের মরনোত্তর বিচার দাবি করেন জাসদ নেতৃবৃন্দরা।

জেলা জাসদ সভাপতি নঈমুল হক চৌধুরী টুটুলের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত
সভায় অন্যদেরর মধ্যে বক্তব্য রাখেন সাধারণ সম্পাদক আবুল কালাম আজাদ, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মো. হোসাইন মাসু, সাংগঠনিক সম্পাদক রফিক উদ্দিন চৌধুরী, দপ্তর সম্পাদক ও জাতীয় যুব জোট কক্সবাজার জেলা সভাপতি অজিত কুমার দাশ হিমু, শিল্প-বাণিজ্য বিষয়ক সম্পাদক ও জাতীয় শ্রমিক জোট কক্সবাজার জেলা সভাপতি আবদুল জব্বার, শ্রমিক-কৃষি বিষয়ক সম্পাদক ও জাতীয় শ্রমিক জোট, কক্সবাজার জেলা সাধারণ সম্পাদক আসাদুল হক আসাদ, শিক্ষা বিষয়ক সম্পাদক প্রবাল পাল, স্বাস্থ্য ও জনসংখ্যা বিষয়ক সম্পাদক ও মহেশখালী উপজেলা জাসদ সভাপতি আশরাফুল করিম সিকদার নোমান, সহ-সম্পাদক খোরশেদ আলম অদুদ, কার্য নির্বাহী সদস্য ও জাতীয় যুবজোট, কক্সবাজার জেলা সহ-সভাপতি মো. জাকের হোসেন, বাংলাদেশ ছাত্রলীগ (জাসদ) সভাপতি আবদুর রহমান প্রমুখ।

সংবাদ বিজ্ঞপ্তি

add

আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই ক্যাটাগরির আরো সংবাদ