বৃহস্পতিবার, ২৯ জুলাই ২০২১, ০২:১৫ অপরাহ্ন

চবিতে বঙ্গবন্ধুর ১০১তম জন্মদিন ও ‘জাতীয় শিশু দিবস’ উদযাপিত

পরম বাংলাদেশ ডেস্ক
  • প্রকাশ : বুধবার, ১৭ মার্চ, ২০২১
  • ৩৮ Time View

চট্টগ্রাম : জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ১০১তম জন্মদিন ও ‘জাতীয় শিশু দিবস’ চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় (চবি) উদ্যোগে যথাযোগ্য মর্যাদায় বর্ণিল আয়োজনে উদযাপিত হয়েছে।

এ উপলক্ষে চবি বঙ্গবন্ধু চত্বরে বুধবার (১৭ মার্চ) সকালে উপাচার্য প্রফেসর ড. শিরীণ আখতার শেখ মুজিবুর রহমানের প্রতিকৃতিতে পুস্পস্তবক অর্পণ করে শ্রদ্ধা নিবেদন করেন। এরপর চবি উপাচার্য দপ্তরের সম্মেলন কক্ষে উপাচার্য কেক কাটেন। তারপর আলোচনা সভায় অনুষ্ঠিত হয়।

এত সভাপতির বক্তব্যে উপাচার্য বাঙালি জাতির অবিসংবাদিত নেতা জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের স্মৃতির প্রতি গভীর শ্রদ্ধা নিবেদন করেন। তিনি জাতীয় চারনেতা, মহান মুক্তিযুদ্ধে ত্রিশ লাখ শহীদ, ’৭৫ এর ১৫ আগস্ট ঘাতক হায়েনাদের হাতে নির্মমভাবে নিহত বঙ্গবন্ধু পরিবারের সদস্যদের বিনম্র চিত্তে শ্রদ্ধাভরে স্মরণ করেন এবং মহান মুক্তিযুদ্ধে নির্যাতিত দুই লাখ জায়া-জননী-কন্যার প্রতি সম্মান প্রদর্শন করেন।

তিনি বলেন, ‘করোনাভাইরাসের এ মহামারীতে সীমিত পরিসরের মধ্যেও জাতির পিতার জন্মদিনে বিশ্ববিদ্যালয় পরিবারের সদস্যবৃন্দের স্বতঃস্ফূর্ত উপস্থিতি জাতির পিতা বঙ্গবন্ধুর প্রতি অকুন্ঠ ভালোবাসার বহিপ্রকাশ’।

উপাচার্য অত্যন্ত আনন্দচিত্তে উপস্থিত সকলকে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধুর জন্ম বার্ষিকীর  শুভেচ্ছা জানান।

তিনি জাতির পিতার বর্ণাঢ্য জীবন আলোকপাত করে বলেন, সর্বকালের সফল নেতা, বাঙালি জাতির পথ প্রদর্শক, মহান স্বাধীনতার স্বপ্নদ্রষ্টা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান। বঙ্গবন্ধু শুধু জাতির পিতাই নন; তিনি বিশ্বনেতা শেখ মুজিব। তিনি মা, মাটি ও মানুষকে ভালোবাসতেন বলেই নিজের জীবন উৎসর্গ করে বাঙালি জাতিকে বিশ্ব দরবারে প্রতিষ্ঠা করে গেছেন।’

উপাচার্য সকলের উদ্দেশ্যে বিশেষভাবে উল্লেখ করে বলেন, ‌‌‌‌জাতির পিতার প্রতি প্রকৃত সম্মান প্রদর্শন করতে চাইলে তাঁকে নিয়ে অধিকতর গবেষণা ও গবেষণাধর্মী লেখা, বই, প্রবন্ধ রচনার মাধ্যমে বিশ্ব দরবারে বঙ্গবন্ধুকে তুলে ধরতে হবে এবং বঙ্গবন্ধুর আদর্শে অনুপ্রাণিত হয়ে প্রসারিত হৃদয়ে মানুষকে ভালোবাসতে হবে।’

উপাচার্য বঙ্গবন্ধুর স্বপ্নের সোনার বাংলা বিনির্মাণে বঙ্গবন্ধু কন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে ঐক্যবদ্ধ প্রয়াসে দেশের চলমান উন্নয়ন-অগ্রগতিতে সম্পৃক্ত হয়ে কাঙ্খিত ভূমিকা রাখার আহ্বান জানান।

চবি রেজিস্ট্রার (ভারপ্রাপ্ত) প্রফেসর এসএম মনিরুল হাসানের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখেন অনুষ্ঠান উদযাপন কমিটির সদস্য-সচিব চবি চারুকলা ইনস্টিটিউটের পরিচালক প্রণব মিত্র চৌধুরী এবং চবি প্রক্টর ড. রবিউল হাসান ভূঁইয়া।

কর্মসূচির অংশ হিসেবে প্রত্যুষে বিশ্ববিদ্যালয়ে ভবনসগুলোতে জাতীয় পতাকা উত্তোলন করা হয়।

ফজরের নামাজের পর বিশ্ববিদ্যালয়ের কেন্দ্রীয় জামে মসজিদ ও ক্যাম্পাসস্থ সকল মসজিদে বিশেষ মোনাজাত এবং কেন্দ্রীয় মন্দির ও প্যাগোডাসহ অন্যান্য ধর্মীয় উপাসনালয়ে বিশেষ প্রার্থনা করা হয়। দুপুর বারোটায় চবি কেন্দ্রীয় মন্দিরে ১৯৭৫ এর ১৫ আগষ্ট ঘাতকদের হাতে নির্মমভাবে নিহত বঙ্গবন্ধু ও তাঁর পরিবারের সদস্যদের, শহীদ মুক্তিযোদ্ধা ও জাতীয় চার নেতার আত্মার চিরশান্তি এবং দেশের অব্যাহত অগ্রগতি ও মঙ্গল কামনায় গীতাপাঠ অনুষ্ঠিত হয়। চবি প্রশাসনিক ভবন, হলসমূহ ও অন্যান্য গুরুত্বপূর্ণ ভবনসমূহে দৃষ্টিনন্দন আলোকসজ্জায় সজ্জিত করা হয়। এছাড়াও জাতীয় শিশু দিবস উপলক্ষে চিত্রাংকন প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত হয়েছে।

চবি ক্যাম্পাসে এক নাম্বার গেইট ‘স্মরণ’ চত্বর, দুই নাম্বার গেইট, শহীদ বুদ্ধিজীবী চত্বর এবং বঙ্গবন্ধু চত্বরে দিনব্যাপি জাতির পিতার ভাষণ এবং দেশাত্মবোধক গান পরিবেশন করা হয়।

প্রেস বার্তা

Share This Post

আরও পড়ুন