মঙ্গলবার, ০৫ জুলাই ২০২২, ০৪:২৯ অপরাহ্ন

চট্টগ্রাম সিটিতে তিন দিনের মধ্যে বাংলায় সাইনবোর্ড টানানোর হুকুম জেলা প্রশাসনের

নিজস্ব প্রতিবেদক
  • প্রকাশ : শনিবার, ২০ ফেব্রুয়ারী, ২০২১
  • ৩৬৫ Time View

চট্টগ্রাম: সর্বস্তরে বাংলা ভাষা প্রচলন নিশ্চিতকরণে সতর্কতামূলক অভিযান চালিয়েছেন চট্টগ্রাম জেলা প্রশাসনের ভ্রাম্যমাণ আদালত।

শনিবার (২০ ফেব্রুয়ারি) সকাল ১১টা থেকে জেলা প্রশাসনের তিন জন নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেটের নেতৃত্বে চট্টগ্রাম সিটির জিইসি মোড়, কাজির দেউড়ি, এমএ আজিজ স্টেডিয়াম, জামাল খান ও চকবাজারে এ অভিযান পরিচালিত হয়।

নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট উমর ফারুক জিইসি মোড়ে বিভিন্ন দোকান, বিপনি বিতান ও প্রতিষ্ঠানে অভিযানে প্রায় ২০টি দোকান ও প্রতিষ্ঠানকে বাংলা ভাষায় সাইনবোর্ড টাঙানোর জন্যে সতর্ক করেন। তিনি ওয়েল ফুড, সুগার বান, সেন্ট্রাল শপিং কমপ্লেক্স, মিষ্টি বিতান, ডিয়ারলি আইসস্ক্রিম, ফ্লেভারস, জামান রেস্টুরেন্ট মেজবানি এন্ড কাবাব, নভোএয়ার লিমিটেড, রয়েল পার্ক রেসিডেন্সিয়াল হোটেল, মিনিসো, বি-টু, ঢাকা বুট বার্ন, হোসাইন লাইটিং, ভিআইপি অপটিকসনাকে সাইনবোর্ড বাংলায় টাঙানোর জন্যে সতর্ক করেন। একই সঙ্গে আগামী তিন দিনের মধ্যে বাংলায় সাইনবোর্ড টানানোর নির্দেশনা দেন।

অন্যদিকে, নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মিজানুর রহমান চকবাজার, কাজির দেউড়ি ও এমএ আজিজ স্টেডিয়াম এলাকায় অভিযান পরিচালনা করে প্রায় ২০টি প্রতিষ্ঠানকে সতর্ক করেন। তিনি সবাইকে ইংরেজিতে লিখিত সব সাইনবোর্ড উঠিয়ে ফেলার জন্য নির্দেশ দেন।

জামাল খান এলাকায় অভিযান চালান নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট রেজওয়ানা আফরিন।

নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট উমর ফারুক বলেন, ‘নাম ফলকে (সাইনবোর্ড) বিজাতীয় ভাষা সরিয়ে বাংলা লেখার নির্দেশ জানিয়ে নগরীর গুরুত্বপূর্ণ পয়েন্টে অভিযান চালানো হয়। বাংলাদেশের সংবিধান, আইন ও আদালতের নির্দেশনার প্রতি সন্মান প্রদর্শন করে সব প্রতিষ্ঠানকে নামফলক বাংলায় লেখার নির্দেশ দেয়া হয়। আগামী ২৪ ফেব্রুয়ারির পর্যন্ত সময় সীমা নির্ধারণ করে দেওয়া হয়েছে। নির্দেশনা অমান্য করলে এরপর থেকে আইনের আওয়তায় আনা হবে।’

অভিযানে বাংলাদেশের মুক্তি সংগ্রাম ও মুক্তিযুদ্ধ গবেষনা কেন্দ্র ট্রাস্টের চেয়ারম্যান ও বিজয়’৭১ উপদেষ্টা ডাক্তার মাহফুজুর রহমান, গণ অধিকার চর্চা কেন্দ্রের সুযশময় চৌধুরী, সোলমান খান, মশিউর রহমান খান, আবদুল মাবুদ, সম্মিলিত মুক্তিযোদ্ধা সন্তান কমান্ডের কেন্দ্রীয় সভাপতি লায়ন ডাক্তার আরকে রুবেল, বিজয়’৭১ সভাপতি সজল চৌধুরী, মুক্তিযোদ্ধা সংসদ সন্তান কমান্ডের কাজী রাজেশ ইমরান, জয়নুদ্দীন জয় প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

Share This Post

আরও পড়ুন