বৃহস্পতিবার, ১৯ মে ২০২২, ০৯:৩১ অপরাহ্ন

চট্টগ্রাম সিঅ্যান্ডএফ এজেন্টস এসোসিয়েশনের নির্বাচনে সম্মিলিত-সমমনা ঐক্যজোটের গঠন

পরম বাংলাদেশ ডেস্ক
  • প্রকাশ : সোমবার, ১৩ ডিসেম্বর, ২০২১
  • ৫৬ Time View

চট্টগ্রাম: চট্টগ্রাম সিঅ্যান্ডএফ এজেন্টস অ্যাসোসিয়েশন ২০২২-২০২৪ নির্বাচনে সম্মিলিতভাবে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করার লক্ষে চারটি দলের সমন্বয়ে ‘সম্মিলিত-সমমনা ঐক্যজোট’ আত্মপ্রকাশ করেছে। সম্মিলিত পরিষদ, সচেতন ফোরাম, সমন্বয় পরিষদ ও সমমনা কল্যাণ পরিষদ মিলে এ জোট করা হয়েছে।

চট্টগ্রাম সিটির একটি কমিউনিটি সেন্টারে গত বুধবার (৭ ডিসেম্বর) জাকজমপূর্ণ অনুষ্ঠানের মাধ্যমে এ জোটের আত্মপ্রকাশ ঘটে। অনুষ্ঠানের উদ্বোধন ও সভাপতিত্ব করেন জোটের দল নেতা সায়েদুজ্জামান খান।

গিয়াস উদ্দিন ভুইয়ার সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে বক্তব্য দেন জোটের পৃষ্টপোষক সিরাজুল মনোয়ার, জাহিদ হাসান, প্রধান সমন্বয় খন্দকার লতিফুর রহমান আজিম, আহ্বায়ক মো. সাইফুদ্দিন, যুগ্ম আহ্বায়ক নরুল আবছার (ইডেন), সদস্য সচিব গোলাম ফারুক ডলার, উপদেষ্টা এটিএম তারেক, সেলিম খাঁন, সাংগঠনিক সম্পাদক ডিসিএএ শাহিন মাহমুদ, বন্দর সম্পাদক জসিম উদ্দিন, নির্বাহী সদস্য এমএ আমান প্রমুখ।

অনুষ্ঠানে বক্তারা চিটাগাং সিঅ্যান্ডএফ অজেন্টস এসোসিয়েংশনের ভাবমূর্তি পূনরুদ্ধারে এবং চট্টগ্রাম কাস্টমস হাউসে সিএন্ডএফদের ব্যবসায় বান্ধব পরিবেশ ফিরিয়ে আনার লক্ষ্যে আগামী নির্বাচনে সম্মিলিত-সমমনা ঐক্যজোটের পাশে থাকার সমর্থন ব্যক্ত করেন।

নেতৃবৃন্দ বলেন, ‘বর্তমান পরিষদ নির্বাচনী ইশতেহারে যে অঙ্গীকার করেছে, তা পুরণে পুরোপুরি ব্যর্থ হয়েছে। নির্বাচনের প্রথম বার্ষিক সাধারণ সভায় (এজিএম) সংঘবিধিকে বৃদ্ধাঙ্গুলি দেখিয়ে অগঠনতান্ত্রিকভাবে এজেন্ডা পাশ করেছে। লাইসেন্স বিধিমালা ২০০৯ সংশোধনী ২০১৬-২০ কালো আইনগুলো সংশোধনে তারা ব্যর্থ হয়েছে। জাতীয় রাজস্ব বোর্ড, কাস্টমস কমিশনারের অফিস আদেশ/সিদ্ধান্ত বাস্তবায়নে বর্তমান পরিষদ ব্যর্থ হয়েছে। এছাড়াও কাস্টমস হাউসের ল্যাবরেটরির হয়রানি, ভ্যাট রিটার্ন দাখিল থেকে সদস্যদের মুক্তি দিতে পারেনি। বিল অব এন্ট্রির মাধ্যমে সিঅ্যান্ডএফ এজেন্টসদের কমিশন আদায় ও ২০ বছরে বন্দরে পরীক্ষণ শেডের ব্যবস্থা গ্রহণ করতে ব্যর্থতার প্রমাণ দিয়েছে। তাই আসুন, বর্তমান ব্যর্থ পরিষদকে বর্জন করে সাধারণ সদস্যদের কল্যাণে সম্মিলিত ঐক্যজোটের নেতৃত্বে আমরা একতাবদ্ধ হয়ে সিঅ্যান্ডএফদের অধিকার আদায়ে সোচ্চার হয়।’

অনুষ্ঠানে করোনাকালীন সিঅ্যান্ডএফ পরিবারের যারা মৃত্যুবরণ করেছেন, তাদের আত্মার মাগফেরাত কামনা করে মোনাজাত করা হয়। এছাড়া অসুস্থ সিঅ্যান্ডএফ মালিক ও পরিবারের সদস্যদের সুস্থতার জন্য কোরান খতম, মিলাদ ও দোয়া করা হয়।

পবা/এমএ

Share This Post

আরও পড়ুন