বৃহস্পতিবার, ০৬ মে ২০২১, ১০:৩৪ অপরাহ্ন

চট্টগ্রাম বন্দরে ডক শ্রমিকদের কাছ থেকে চাঁদা আদায় বন্ধের দাবি

পরম বাংলাদেশ ডেস্ক / ৬৮ বার এই সংবাদটি পড়া হয়েছে
প্রকাশের সময় : রবিবার, ২১ মার্চ, ২০২১

চট্টগ্রাম: ডক বন্দর শ্রমিকদের কাছ থেকে চাঁদা আদায় বন্ধ করার দাবি জানিয়েছেন ডক বন্দর শ্রমিক কর্মচারী ফেডারেশনের নেতৃবৃন্দ।

রোববার (২১ মার্চ) তিন নম্বর ফকির হাটস্থ ডক শ্রমিক ইউনিয়ন কার্যালয়ে অনুষ্ঠিত হয় ফেডারেশনের এক সভায় এ দাবি জানানো হয়।

সংগঠনের সভাপতি কাউন্সিলর গোলাম মোহাম্মদ চৌধুরীর সভাপতিত্বে সভায় বক্তব্য রাখেন ফেডারেশনের সাধারণ সম্পাদক বীর মুক্তিযোদ্ধা মোহাম্মদ মাহফুজুর রহমান খান, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক আব্দুল আহাদ, মার্চেন্ট শ্রমিক ইউনিয়নের সাধারণ সম্পাদক বজলুর রহমান বাবুল, ষ্টিভিডোরিং স্টাফ ইউনিয়নের কার্যকরী সভাপতি আব্দুর রশিদ, ওয়াচম্যান কল্যাণ সমিতি সাধারণ সম্পাদক মনির আহমদ, স্টাফ ইউনিয়নের সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক মো. শাহজাহান, ডক শ্রমিক ইউনিয়নের সাংগঠনিক সম্পাদক নুরুল আলম, উইন্ডসম্যান কল্যাণ সমিতির সভাপতি মোঃ বেলাল হোসেন, ডক শ্রমিক ইউনিয়ন নেতা মো. সফি প্রমুখ নেতৃবৃন্দ।

সভায় বক্তারা বলেন, ‘ডক বন্দর শ্রমিক কর্মচারী ফেডারেশনের সাথে সরকার ও বন্দর কর্তৃপক্ষের চুক্তি মোতাবেক শ্রমিক কর্মচারীদের বেতন-ভাতা, বোনাস, পূর্বের চুক্তিকৃত দাবি-দাওয়া পুনরায় চালু ও বিভিন্ন কল্যাণমূলক সুযোগ সুবিধা চালু করা হয়। সে অনুযায়ী বন্দরে শ্রমিক কর্মচারীদের প্রতি বছর ১০ শতাংশ হারে বেতন-ভাতা বৃদ্ধি চালু হয়ে আসছে। গত ১৩ মার্চ থেকে শ্রমিক কর্মচারীদের ১০ শতাংশ বেতন ভাতা চালু করা হয়। কিন্তু অত্যন্ত দুঃখের বিষয় চট্টগ্রাম বন্দরে ডেলিভারির কাজে নিয়োজিত শ্রমিকদের কাছ থেকে একটি মহল জোর করে চাঁদা বাবদ তাদের প্রতি কনটেনারের মজুরী থেকে ৫০ টাকা মজুরী কেটে নিচ্ছে। এতে শ্রমিকরা প্রতিবাদ করলে ওই মহলের সদস্যরা চাঁদা না দিলে চাকরী বন্ধ করে দিবে, জেটিতে ঢুকতে দিবে না, মেরে লাশ গুম করে ফেলবে বলে হুমকি দিতে থাকে। তারা জোর করে শ্রমিকদের কাছ থেকে ওই টাকা কেটে রেখে প্রতি কনটেইনারের সম্পূর্ণ মজুরীর বিলের উপর সই নিতে বাধ্য করছে। নিরীহ ও অসহায় শ্রমিকরা উপায় না দেখে চাকরী ও জীবনের ভয়ে ওই বিলে স্বাক্ষর দিতে বাধ্য হচ্ছে।;

সভায় দ্রুত শ্রমিকদের মজুরী থেকে বে-আইনিভাবে ও জোরপূর্বক চাঁদা নেওয়া বন্ধ করার জন্য বন্দর কর্তৃপক্ষ ও সংশ্লিষ্ট আইন শৃঙ্খলা বাহিনীর প্রতি আহ্বান জানানো হয়।

বক্তারা আরো বলেন, ‘বন্দরের যাচাই-বাছাইকৃত শ্রমিকদের বাদ দিয়ে লাখ টাকার বিনিময়ে বহিরাগত লোক নিয়োগ, জাহাজে চাকরীতে যাওয়ার পূর্বে স্থায়ী শ্রমিকদের কাছ থেকে ওই সিন্ডিকেটের সদস্যরা চাঁদা দাবি করতে থাকে, চাঁদা না দিলে টাকা নিয়ে বহিরাগত লোকদেরকে জাহাজে উঠিয়ে দেন। এতে করে এক দিকে যেমন শ্রমিকদের অধিকার হরণ হচ্ছে, অপর দিকে বন্দরের নিরাপত্তা বিঘ্নিতসহ অবৈধ চাঁদাবাজির প্রভাব বিস্তার লাভ করছে।’

সভায় দ্রুত এ সব অপকর্ম বন্ধ করার জন্য সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের নিকট আহ্বান জানানো হয়।

নিউজ রিলিজ

add

আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই ক্যাটাগরির আরো সংবাদ