রবিবার, ১৭ অক্টোবর ২০২১, ১২:০৬ পূর্বাহ্ন

চট্টগ্রামে পোশাক শিল্প: কাস্টমস্ বন্ড কার্যক্রমে জটিলতা ও দীর্ঘসূত্রিতা কাম্য নয়

পরম বাংলাদেশ ডেস্ক
  • প্রকাশ : বুধবার, ২৮ এপ্রিল, ২০২১
  • ১১৭ Time View

চট্টগ্রাম: বর্তমানে বিশ্বব্যাপী করোনা ভাইরাসজনিত উদ্ভুত পরিস্থিতিতে বাংলাদেশের তৈরি পোশাক শিল্পে চরম বিপর্যয়ের মুখে বন্ধ হয়ে গেছে অনেক কারখানা, ক্রেতারা অর্ডার বাতিল/স্থগিত করেছেন। জাতীয় অর্থনীতিতে এর ব্যাপক নেতিবাচক প্রতিক্রিয়া ইতিমধ্যে দৃশ্যমান। পোশাক শিল্পের ভবিষ্যত সুরক্ষা ও শ্রমিকদের মজুরী দেওয়ার লক্ষ্যে প্রধান মন্ত্রীর সহযোগিতায় পোশাক শিল্প বর্তমানে ঘুরে দাঁড়ানোর চেষ্টা করছে। সময়োপযোগী ও দ্রুত সাহসী সিদ্ধান্ত গ্রহণের জন্য প্রধান মন্ত্রীকে পোশাক শিল্প পরিবারের পক্ষ থেকে ধন্যবাদ ও কৃতজ্ঞতা। চট্টগ্রামে বন্দর এবং কাস্টমস সুবিধা থাকায় তুলনামূলকভাবে পরিবহন খরচ কম হলেও অন্য অবকাঠামোগত সমস্যার কারণে চট্টগ্রামের পোশাক শিল্প বর্তমানে খুবই নাজুক অবস্থায় রয়েছে। এ ক্ষেত্রে চলমান মন্দাবস্থা উত্তরণে পোশাক শিল্প সংশ্লিষ্ট কাস্টমস্ বন্ড কমিশনারেটের কার্যক্রমে জটিলতা ও দীর্ঘসূত্রিতার সৃষ্টি হলে চট্টগ্রামে পোশাক শিল্প চরমভাবে ক্ষতিগ্রস্থ হয়ে বন্ধের তালিকা আরো দীর্ঘ হবে। যা এ মুহুর্তে কোন ভাবেই কাম্য নয়।

বন্ড সংশ্লিষ্ট পোশাক শিল্পের বিরাজমান সমস্যাগুলো দ্রুত সূরাহার জন্য বিজিএমইএ বন্ডের সাথে সহযোগিতার ভিত্তিতে যৌথভাবে কাজ করতে আগ্রহী। এ ক্ষেত্রে বন্ডে বিদ্যমান বিভিন্ন ষ্টেক হোল্ডারদের নিয়ে গঠিত টেকনিক্যাল কমিটির কার্যক্রম সচল করা জরুরী।

মিরসরাই ও আনোয়ারায় অর্থনৈতিক অঞ্চল, কর্ণফুলি টানেলসহ বর্তমান সরকারের ব্যাপক উন্নয়ন কর্মকান্ডে ধারাবাহিকতায় বিদেশী বিনিয়োগসহ নতুন নতুন শিল্প কারখানা গড়ে উঠছে। এ ক্ষেত্রে চলমান মন্দা অবস্থা উত্তরণে পোশাক শিল্প সংশ্লিষ্ট বন্ডের কার্যক্রম সহজীকরণ করে দ্রুত সম্পাদন করে চট্টগ্রামে বিদেশী বিনিয়োগ ও রপ্তানী বৃদ্ধিকল্পে চট্টগ্রাম কাস্টমস্ বন্ড কমিশনারেট গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করতে পারে।

বুধবার (২৮ এপ্রিল) চট্টগ্রাম কাস্টমস্ বন্ড কমিশনারেটের কমিশনার একেএম মাহবুবুর রহমানের সাথে তাঁর কার্যালয়ে বিজিএমইএ’র নব-নির্বাচিত পরিচালনা পর্ষদের সৌজন্য সাক্ষাতে এসব আশা প্রকাশ করেন বিজিএমইএ’র প্রথম সহ-সভাপতি সৈয়দ নজরুল ইসলাম।

এ সময় একেএম. মাহবুবুর রহমান বলেন, ‘জাতীয় অর্থনীতি ও আর্থসামাজিক উন্নয়নসহ ব্যাপক কর্মসংস্থানে পোশাক শিল্পের অবদান অনস্বীকার্য।’

তিনি দেশীয় শিল্প হিসেবে পোশাক শিল্পে বর্তমান মন্দাবস্থা উত্তরণে বন্ড সংশ্লিষ্ট কার্যক্রম সহজীকরণ করে দ্রুত অনুমোদন দেওয়া হবে বলে শ্বস্থ করেন। এছাড়াও পারস্পরিক আলোচনা ও সহযোগিতার ভিত্তিতে চট্টগ্রাম কাস্টমস বন্ড কমিশনারেট ও বিজিএমইএ ঐক্যবদ্ধভাবে বিরাজমানগুলো দ্রুত নিরসনে কাজ করা হবে বলে তিনি আশা প্রকাশ করেন।

সাক্ষাৎ পর্বে বক্তব্য রাখেন- বিজিএমইএর পরিচালক মোহাম্মদ আবদুস সালাম, প্রাক্তন প্রথম সহ-সভাপতি এরশাদ উল্ল্যাহ, এসএম. আবু তৈয়ব, নাসিরউদ্দিন চৌধুরী, প্রাক্তন সহ-সভাপতি এএম চৌধুরী সেলিম, প্রাক্তন পরিচালক হেলাল উদ্দিন চৌধুরী, অঞ্জন শেখর দাশ।

অন্যদের মধ্যে বিজিএমইএর সহ-সভাপতি রাকিবুল আলম চৌধুরী, পরিচালক এমডিএম মহিউদ্দিন, তানভীর হাবিব, এএম শফিউল করিম (খোকন), মো. হাসান (জেকি), এম এহসানুল হক, মিরাজ-ই-মোস্তফা (কায়সার), প্রাক্তন পরিচালক লিয়াকত আলী চৌধুরী ও মোহাম্মদ মুসা, কাস্টমস বন্ড কমিশনারেটের অতিরিক্ত কমিশনার মাহফুজুল হক ভূঁইয়া, সহকারী কমিশনার কামরুল ইসলাম এ সময় উপস্থিত ছিলেন।

প্রেস বার্তা

Share This Post

আরও পড়ুন