রবিবার, ২৩ জানুয়ারী ২০২২, ০১:৫২ পূর্বাহ্ন

গোলাম হায়দার মিন্টুর মৃত্যুতে এক্স কাউন্সিলর ফোরামের শোক

পরম বাংলাদেশ ডেস্ক
  • প্রকাশ : বৃহস্পতিবার, ১৮ মার্চ, ২০২১
  • ১৪১ Time View
সাইয়্যেদ গোলাম হায়দার মিন্টু

চট্টগ্রাম : ১৯৯৪ সালে চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনের (চসিক) প্রথম নির্বাচনে কাউন্সিলর নির্বাচিত হন সাইয়্যেদ গোলাম হায়দার মিন্টু। এর আগে ১৯৭৭ সালে চট্টগ্রাম পৌরসভার কমিশনার নির্বাচিত হন তিনি। মাঝখানে হুসেইন মুহাম্মদ এরশাদের আমলে নির্বাচন বর্জন করেন।

১৯৯৪ সাল থেকে ২০১০ সাল পর্যন্ত প্রয়াত মেয়র মহিউদ্দিন চৌধুরীর সাথে, ২০১০ সাল হতে ২০১৫ সাল পর্যন্ত সাবেক মেয়র মনজুর আলমের সাথে, ২০১৫ সাল হতে ২০২০ সাল পর্যন্ত সাবেক মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দিনের সাথে নির্বাচিত কাউন্সিলর হিসাবে দায়িত্ব পালন করেন।

এবার ২০২১ সালের নির্বাচিত হয়ে কাউন্সিলর হিসাবে দায়িত্ব পালন করে আসছিলেন।

গত এক সপ্তাহ ধরে জটিল রোগে আক্রান্ত হয়ে ঢাকার একটি বেসসরকারী হাসপাতালে ভর্তি হলে বৃহস্পতিবার (১৮ মার্চ) ভোরে ইন্তেকাল করেন। (ইন্না লিল্লাহি ওয়া ইন্না ইলাইহি রাজেউন)। মৃত্যুকালে স্ত্রী মেহেরুন্নেসা ও পুত্র সাইয়িদ সদরুল হায়দারসহ ভাইবোন আত্মীয় স্বজন রেখে যান তিনি।

সাইয়্যেদ গোলাম হায়দার মিন্টু চসিকের বিভিন্ন স্ট্যান্ডিং কমিটির দায়িত্বে ছিলেন। তিনি একজন দক্ষ অভিজ্ঞ কাউন্সিলর ও সমাজ সেবক হিসাবে নিজেকে প্রতিষ্ঠিত করেছিলেন। জনপ্রিয়তার দিক দিয়ে এগিয়ে থাকা মিন্টুর বৃহত্তর চট্টগ্রাম বাক ও শ্রবণ প্রতিবন্ধী সংগঠন ও সেচ্চায় রক্তদান সংগঠনের সফল প্রধান উদ্যোক্তা হিসাবে নিজেকে প্রতিষ্ঠিত করেছেন।

তার মৃত্যুতে চট্টগ্রাম একজন নির্ভীক বৃদ্ধিদীপ্ত জনপ্রতিনিধিকে হারাল। চকবাজার ওয়ার্ডের এ শূণ্যতা পুরণ হবার নয়। আমরা চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশন এক্স কাউন্সিলর ফোরাম তার মৃত্যৃতে গভীর শোক প্রকাশ করছি এবং শোকাহত পরিবারবর্গের প্রতি সমবেদনা জ্ঞাপন করছি।

গোলাম হায়দার মিন্টুর মৃত্যুতে শোক জানিয়েছেন চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশন এক্স কাউন্সিলর ফোরামের সভাপতি জালাল উদ্দিন ইকবাল, সাধারণ সম্পাদক মুহাম্মদ জামাল হোসেন।

শোক প্রকাশ করেছেন ফোরামের হাসিনা জাফর, রেহানা বেগম রানু, এমএ নাসের, নাজিম উদ্দিন আহমদ, নিয়াজ মোহাম্মদ খান, মোহাম্মদ তৈয়ব, এএসএম জাফর, পেয়ার মোহাম্মদ, নুরুল হুদা লালু, আনোয়ার হোসেন, জাবেদ নজরুল ইসলাম, আলী বক্স, এমএ মালেক, রফিকুল আলম, এসএম ইকবাল, জসিম উদ্দিন, বিজয় কৃষাণ চৌধুরী।

প্রেস বার্তা

Share This Post

আরও পড়ুন