বৃহস্পতিবার, ২৯ জুলাই ২০২১, ০৩:৪১ অপরাহ্ন

গণহত্যা দিবস ও স্বাধীনতা দিবস উপলক্ষে চসিকের নানা কর্মসূচি

পরম বাংলাদেশ ডেস্ক
  • প্রকাশ : বুধবার, ২৪ মার্চ, ২০২১
  • ২৯ Time View

চট্টগ্রাম: ২৫ মার্চ গণহত্যা দিবস ও ২৬ মার্চ মহান স্বাধীনতা ও জাতীয় দিবস ২০২১ উদযাপন এবং স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তী পালন উপলক্ষে চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশন (চসিক) দুই দিনের কর্মসূচি গ্রহণ করেছে। কর্মসূচির প্রথম দিন ২৫ মার্চ সকাল দশটায় চসিকের মেয়র মো. রেজাউল করিম চৌধুরী পাহাড়তলী বধ্যভূমির স্মৃতিসম্ভ পুস্পস্তবক অর্পণ করবেন। সকাল সাড়ে দশটায় থাকছে কর্পোরেশনের টাইগারপাসস্থ নগর ভবনে গণহত্যা দিবস উপলক্ষে বিশেষ মোনাজাত ও আলোচনা সভার আয়োজন। এতে প্রধান অতিথি থাকবেন মেয়র রেজাউল করিম চৌধুরী। একই দিনে চসিক পরিচালিত মাদ্রাসা এবং ধর্মীয় প্রতিষ্ঠানগুলোতে মিলাদ ও বিশেষ মোনাজাতের পাশাপাশি রাত নয়টা থেকে নয়টা এক মিনিট পর্যন্ত এক মিনিটের জন্য নির্ধারিত স্থানে প্রতিকী ব্ল্যাক-আউট করা হবে। ৯টা ৫ মিনিটে গণহত্যা দিবস ও শহীদদের স্মরণে পাহাড়তলী বধ্যভূমিতে আলোক প্রজ্জ্বলন করা হবে।

দ্বিতীয় দিন ২৬ মার্চ সূর্যোদয়ের সাথে কর্পোরেশনের টাইগার পাসস্থ নগর ভবন, আন্দরকিল্লাস্থ আঞ্চলিক কার্যালয়, জোন-ছয়, ওয়ার্ড অফিস ও কর্পোরেশন আওতাভুক্ত প্রতিষ্ঠানে জাতীয় পতাকা ও কর্পোরেশনের পতাকা উত্তোলন। একই দিনে সূর্যোদয়ের সাথে সাথে কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে পুস্পস্তবক ও সকাল আটটায় বাটালি হিল টাইগার পাস নগর ভবনে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের প্রতিকৃতিতে পুস্পস্তবক অর্পণ করবেন মেয়র রেজাউল করিম চৌধুরী। সকাল নয়টায় অপর্ণাচরণ সিটি কর্পোরেশন বালিকা উচ্চ বিদ্যালয় ও কলেজ ক্যাম্পাসে থাকছে চিত্রাংকন প্রতিযোগীতার আয়োজন। শিক্ষা প্রতিষ্ঠানসমূহে স্থাপিত বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে পুস্পস্তবক অর্পণ করা হবে। সকাল সাড়ে দশটায় নগরীর থিয়েটার ইনস্টিটিউট চট্টগ্রামে (টিআইসি) ‘জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ঐতিহাসিক নেতৃত্ব এবং সুবর্ণজয়ন্তীতে দেশের উন্নয়ন’ বিষয়ক আলোচনা সভা (স্বাস্থ্যবিধি অনুসরণ পূর্বক) অনুষ্ঠিত হবে।

একই সময়ে জাতির শান্তি ও অগ্রগতি এবং মুক্তিযুদ্ধে শহীদদের আত্মার শান্তি কামনায় কর্পোরেশনভুক্ত মসজিদ-মাদ্রাসায় মিলাদ ও বিশেষ মোনাজাত, মন্দির, প্যাগোডা ও গীর্জায় বিশেষ প্রার্থনা (স্বাস্থ্যবিধি অনুসরণ পূর্বক) করা হবে। এ ছাড়া জাতীয় দিবস উপলক্ষে চসিকের গুরুত্বপূর্ণ স্থাপনাসমূহে দশ দিনব্যাপী আলোক সজ্জা ও ফোয়ারা সচল থাকবে। কর্পোরেশনভুক্ত হাসপাতালে সব বহিঃবিভাগে ও ওয়ার্ড স্বাস্থ্য কেন্দ্রে ফ্রি চিকিৎসার ব্যবস্থা থাকবে।

প্রেস বার্তা

Share This Post

আরও পড়ুন