ঢাকাসোমবার, ১৫ই আগস্ট, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ

ক্যাম্পের রোহিঙ্গারা এখন অবদান রাখছে ইয়াবার ব্যবসায়-বাণিজ্যে!

নিজস্ব প্রতিবেদক
ডিসেম্বর ১৫, ২০২০ ১২:৫৭ অপরাহ্ণ
Link Copied!

উকিয়া, কক্সবাজার: মায়ানমার থেকে পালিয়ে এসে বাংলাদেশের ইয়াবা বাণিজ্যে এখন ভূমিকা রাখছে রোহিঙ্গারা! প্রশাসনকে বোকা বানিয়ে কক্সবাজারের ক্যাম্প থেকে বের হয়ে তারা চট্টগ্রামসহ সারাদেশে সাপ্লাই দিচ্ছে যুব সমাজ বিধ্বংসী মাদকদ্রব্য ইয়াবা ট্যাবলেট।

কক্সবাজার জেলার উখিয়া থানাধীন কুতুপালং এলাকা থেকে ইয়াবাসহ এমন তিন জন রোহিঙ্গাসহ পাঁচজন মাদকব্যবসায়ীকে গ্রেফতার করে র‌্যাব ৭।

প্রায় ৬৯ লাখ টাকার ১৩ হাজার ৮০০ পিস ইয়াবা ট্যাবলেটসহ সোমবার (১৪ ডিসেম্বর) সকাল সোয়া ১১টার দিকে তাদেরকে গ্রেফতার করা হয়।

গ্রেফতারকৃত তিনজন রোহিঙ্গাই কক্সবাজার উখিয়ার ১৩ নাম্বার ক্যাম্পের। তারা হলেন মো. জহির আহমেদের পুত্র মো. ইলিয়াস (২৪), মো. হাছু মিয়ার পুত্র মো. নূর আলম (২০) ও রশিদ আহম্মদের পুত্র আবু তাহের (৩৮)।

বাকি দুইজন হলেন কক্সবাজার রামুর গর্জনিয়ার মৃত মনিন্দ্র দেবনাথের পুত্র লিটন দেবনাথ (৪০) ও চট্টগ্রাম নগরীর মৃত সাধন দেবনাথের পুত্র রাজীব দেবনাথ (২৫)।

র‌্যাব-৭ এর সহকারী পরিচালক (মিডিয়া) মো. নূরুল আবছার জানান, মাদকদ্রব্য ক্রয়-বিক্রয়ের জন্য অবস্থান করছে এমন গোপন তথ্যের ভিত্তিতে কক্সবাজারের উখিয়ার কুতুপালং বাজারের ছমিউদ্দিন উকিলের মালিকানাধীন লিটন দেবনাথের ভাড়া বাসায় অভিযান চালানো হয়। এতে র‌্যাবের উপস্থিতি টের পেয়ে পালিয়ে যাওয়ার চেষ্টাকালে ধাওয়া করে পাঁচজনকে আটক করে র‌্যাব সদস্যরা। পরে উপস্থিত সাক্ষীদের সামনে জিজ্ঞাসাবাদ ও দেহ তল্লাশী করে তাদের হাতে থাকা প্লাস্টিকের ব্যাগ হতে ১৩ হাজারর ৮০০ পিস ইয়াবা ট্যাবলেট উদ্ধারসহ আসামিদের গ্রেফতার করা হয়।

গ্রেফতারকৃতদের জিজ্ঞাসাবাদে র‌্যাব জানতে পারে, তারা দীর্ঘ দিন যাবৎ কক্সবাজার জেলার সীমান্তবর্তী এলাকা হতে মাদকদ্রব্য সংগ্রহ করে পরবর্তী বিভিন্ন কৌশলে চট্টগ্রামসহ দেশের বিভিন্ন অঞ্চলের মাদক ব্যবসায়ী ও মাদক সেবনকারীদের নিকট বিক্রি করে আসছে।

গ্রেফতারকৃত আসামি এবং উদ্ধারকৃত মাদকদ্রব্য কক্সবাজারের উখিয়া থানায় হস্তান্তর করা হয়েছে বলে জানান নূরুল আবছার।

Facebook Comments Box