শিরোনাম
সোমবার, ১২ এপ্রিল ২০২১, ১২:৫৬ অপরাহ্ন

করোনা মোকাবেলায় বিশ্ব ব্যাংকের কাছে ৫০০ মিলিয়ন ডলার চাইলেন অর্থমন্ত্রী

পরম বাংলাদেশ ডেস্ক / ২৬ বার এই সংবাদটি পড়া হয়েছে
প্রকাশের সময় : মঙ্গলবার, ৬ এপ্রিল, ২০২১

ঢাকা: বিশ্ব ব্যাংক-আইএমএফেরর চলমান স্প্রিং মিটিং ২০২১ এর অংশ হিসেবে অর্থ মন্ত্রী আ হ ম মু্স্তফা কামালের নেতৃত্বে বাংলাদেশ প্রতিনিধি দল ও বিশ্ব ব্যাংকের দক্ষিণ এশিয়া অঞ্চলের ভাইস প্রেসিডেন্ট হার্টউইগ শ্যেফার এর নেতৃত্বে বিশ্ব ব্যাংকের প্রতিনিধি দলের মধ্যে সোমবার (৫ এপ্রিল) সন্ধ্যায় এক ভার্চুয়াল সভা অনুষ্ঠিত হয়।

সভায় বাংলাদেশ প্রতিনিধি দলের সদস্য অর্থ মন্ত্রী, অর্থ সচিব ও অর্থনৈতিক সম্পর্ক বিভাগের সচিব অংশগ্রহণ করেন। অন্য দিকে, বিশ্ব ব্যাংকের পক্ষে হার্টউইগ শ্যেফার ও মার্সি মিয়া টেম্বন অংশগ্রহণ করেন।

সভার শুরুতে অর্থ মন্ত্রী আ হ ম মোস্তফা কামাল বাংলাদেশের সামগ্রিক উন্নয়নের ক্ষেত্রে বিশ্ব ব্যাংকের অব্যাহত সহযোগীতার জন্য কৃতজ্ঞতা জানান। অর্থ মন্ত্রী কোভিড-১৯ মহামারি মোকাবিলার লক্ষ্যে বিশ্ব ব্যাংকের গৃহীত দ্রুত ও সময়োযোগী বিভিন্ন উদ্যোগেরও প্রশংসা করেন। চলমান করোনা মহামারির কারণে দেশের ক্ষতিগ্রস্ত শ্রম বাজার, আর্থিক ও সামাজিক খাত সচল রাখবার লক্ষ্যে বর্তমান বিশ্ব ব্যাংকের প্রোগ্রামেটিক জবস ডেভেলপমেন্ট পলিসি ক্রেডিট (ডিপিসি) প্রকল্পের আওতায় সাপোর্ট এবং কভিড-১৯ ভ্যাকসিনের জন্য ৫০০ মিলিয়ন মার্কিন ডলার অর্থায়নের জন্য বিশ্ব ব্যাংকের প্রতি ধন্যবাদ জ্ঞাপন করেন।

করোনা মহামারির কারণে বিশ্বের অন্য দেশের মত ক্ষতিগ্রস্ত হলেও প্রধান মন্ত্রী শেখ হাসিনার বিচক্ষণ দূরদৃষ্টিসম্পন্ন নেতৃত্বে বাংলাদেশের অর্থনীতি এখন ভালো অবস্থানে রয়েছে উল্লেখ করে অর্থমন্ত্রী বলেন, ‘এ সঙ্কটময় পরিস্থিতির ভয়াবহতা প্রধান মন্ত্রী শুরুতেই অনুধাবন করতে পেরে দেশের সব ধরনের অর্থনৈতিক স্তরের মানুষের জন্য এক লাখ ২৪ হাজার ৫৩ কোটি টাকার মোট ২৩টি প্রণোদনা প্যাকেজ ঘোষণা করেন, যা একটি বিরল সাহসী পদক্ষেপ।

অর্থ মন্ত্রী বাংলাদেশের সব নাগরিকের জন্য বিনামূল্যে কোভিড-১৯ এ টিকা প্রদানের কার্যক্রম শুরুর বিষয়টিও উল্লেখ করেন। তিনি পরিবেশগত উন্নয়ন ও সুরক্ষা নিশ্চিতকরণের জন্য প্রস্তাবিত ‘ইকোলজিকেল রেস্টুরেশন সাপোর্ট টু রিভার্স অ্যান্ড কানালস এরাউন্ড ডাকা’ প্রকল্পে পানি সরবরাহ ও স্যানিটেশন; পরিবহন; নদী কেন্দ্রিক পর্যটনের উন্নয়নে টেকসই পরিবেশ-বান্ধব অবকাঠামো তৈরি এবং সুশাসন প্রতিষ্ঠায় সহযোগীতার জন্য বিশ্ব ব্যাংকের প্রতি অনুরোধ জানান। পাশাপাশি কর্মক্ষেত্রে নারীদের অংশগ্রহণ আরো বৃদ্ধিকরণের লক্ষ্যে ছাত্রীদের জন্য প্রযুক্তিগত ও বৃত্তিমূলক শিক্ষা প্রকল্পে এবং করোনার প্রভাব মোকাবেলায় বাজেট সাপোর্ট হিসেবে ৫০০ মিলিয়ন মার্কিন ডলার সহযোগীতার আহ্ববান জানান। বিশ্ব ব্যাংকও এ বিষয়গুলো ইতিবাচকভাবে দেখা হবে বলে সভায় অভিমত প্রকাশ করে।

খবর পিআইডির

add

আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই ক্যাটাগরির আরো সংবাদ