শিরোনাম
এস আলম গ্রুপের বিদ্যুৎ কেন্দ্রে পুলিশের গুলিতে শ্রমিক হত্যার প্রতিবাদে বিক্ষোভ সমাবেশ গ্যালাক্সি এম০২ হ্যান্ডসেটে ১০০ দিনের রিপ্লেসমেন্ট ওয়্যারেন্টি দিচ্ছে স্যামসাং বাঁশখালীতে গুলি করে শ্রমিক হত্যা; সমাজতান্ত্রিক ছাত্র ফ্রন্ট চট্টগ্রামের তীব্র নিন্দা আন্তর্জাতিক ফ্লাইট স্থগিতকরণ প্রভাব ফেলছে পদ্মা সেতু রেল সংযোগ ও অন্য মেগা প্রকল্পে বাঁশখালীতে এস আলম গ্রুপের কয়লা বিদ্যুৎ কেন্দ্রে শ্রমিক নিহতে খেলাফত মজলিসের নিন্দা বীমা খাতে প্রথম ‘তিন ঘন্টায় কোভিড ক্লেইম ডিসিশন’ সার্ভিস চালু মেটলাইফের মুজিবনগর সরকারের ৪০০ টাকার চাকুরে জিয়ার বিএনপি ইতিহাসকে অস্বীকার করতে চায় ধারাবাহিক ছোট গল্প: পতিতার আলাপচারিতা । পর্ব পাঁচ এস আলম গ্রুপের কয়লা বিদ্যুৎকেন্দ্রে পুলিশের গুলিতে শ্রমিক হত্যার নিন্দা ও বিচার দাবি সাতকানিয়ায় সোয়া কোটি টাকার ৩৮ হাজার ইয়াবাসহ ট্রাক চালক ও হেলপার গ্রেফতার
রবিবার, ১৮ এপ্রিল ২০২১, ০৮:২২ পূর্বাহ্ন

ওয়াজ মাহফিল এখন ওয়াজ ব্যবসায়ে পরিণত হয়েছে

নূরুল আজিম রনি / ১২৫ বার এই সংবাদটি পড়া হয়েছে
প্রকাশের সময় : বৃহস্পতিবার, ৩ ডিসেম্বর, ২০২০

শহরে জন্মগ্রহণ করার কারণে গ্রামের ওয়াজ মাহফিলে তেমন একটা যাওয়া হয়নি। তবে শহরের নিজ এলাকায়, বাসার পাশে ছোটকালে কত ওয়াজ মাহফিলে গেলাম। মাহফিলে হুজুরদের মুখে তখন শুনতাম ‘নামাজ রোজার ফযিলত, পিতা-মাতার প্রতি সন্তানের কর্তব্য, সততা-ন্যায় পরয়নতার বয়ান’।

মাহফিলে হুজুরদের মুখে জাহান্নামের কঠিন শাস্তির কথা শুনে বাসায় এসে একা ঘুমাতেও ভয় করতো।

আজকাল সেই দিন আর নাই। ওয়াজ মাহফিল এখন ওয়াজ ব্যবসায়ে পরিণত হয়েছে। আগের দিনে মানুষ ওয়াজ শুনে কাঁদতে কাঁদতে বাড়ি ফিরলেও বর্তমান সময়ের ওয়াজ শুনে হাসতে-হাসতে, নাচতে-নাচতে বাড়ি ফিরে লোকজন। কারণ ধর্মপ্রাণ মাওলানাদের এখন আর কেউ ডাকে না। যারা মাহফিলে আসেন তাদের অধিকাংশ ধর্ম ব্যবসায়ী।

এ সব ধর্ম ব্যবসায়ীরা সহজে জনপ্রিয় হওয়ার জন্য ‘তু চিজ বাড়ি হে মাস্তে মাস্তে’ গানের সুরে মাহফিলে বয়ান করেন। কেউ সংসদ সদস্য হওয়ার জন্য গরম রাজনৈতিক গাল-গল্প মারেন।

এ সব ধর্ম ব্যবসায়ীদের চটকদার বয়ানে কিছু অন্ধ ও বদ ধার্মিক তৈরি হয়েছে। আঠোরো- কুড়ি-পঁচিশ বয়সের একটা প্রজন্মও ধর্ম ব্যবসায়ীদের খপ্পরে পড়েছেন। এদের কেউ সত্যিকারের ওয়াজ মাহফিলে যায় নি কখনো বা যাওয়ার সুযোগ হয় নি। তথ্য প্রযুক্তির সহজলভ্যতায় এরা ইউটিউবে বিনোদনের সন্ধানে নেমে দেখেছে তুমুল জনপ্রিয় ইসলামিক বক্তা অমুক। ইউটিউব চ্যানেলে লেখা আছে লাখ লাখ লোকের সমাগম! আকাশ চুম্বি জনপ্রিয়তা! এরা গানের সুরে সুরে বয়ান করে মাহফিল মাতিয়ে রেখেছে।

ইউটিউবে বিনোদন খুঁজতে আসা এ প্রজন্মটি যখন দেখছে-মাহফিলে বয়ান হচ্ছে ‘আমায় ঘুম ভাঙাইয়া গেল রে……..’। অথবা দেখছে হুজুর হিন্দি গানের সুরে বয়ান করছে ‘আছি আমরা এ কোন জমানায়, দিদি তেরা দেবর দিওয়ানা, হাম আপকে হ্যায় কন’! তখন তাদের মাহফিলের তাৎপর্য জানার সুযোগ কোথায়?

লেখক: সাবেক সাধারণ সম্পাদক, বাংলাদেশ ছাত্রলীগ, চট্টগ্রাম মহানগর।
ফেসবুক পোস্ট, কিছুটা পরিমার্জিত ও সংশোধিত।

add

আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই ক্যাটাগরির আরো সংবাদ