ঢাকাশুক্রবার, ৯ই ডিসেম্বর, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ
আজকের সর্বশেষ সবখবর

ওয়াজ মাহফিল এখন ওয়াজ ব্যবসায়ে পরিণত হয়েছে

নূরুল আজিম রনি
ডিসেম্বর ৩, ২০২০ ৯:১২ পূর্বাহ্ণ
Link Copied!

শহরে জন্মগ্রহণ করার কারণে গ্রামের ওয়াজ মাহফিলে তেমন একটা যাওয়া হয়নি। তবে শহরের নিজ এলাকায়, বাসার পাশে ছোটকালে কত ওয়াজ মাহফিলে গেলাম। মাহফিলে হুজুরদের মুখে তখন শুনতাম ‘নামাজ রোজার ফযিলত, পিতা-মাতার প্রতি সন্তানের কর্তব্য, সততা-ন্যায় পরয়নতার বয়ান’।

মাহফিলে হুজুরদের মুখে জাহান্নামের কঠিন শাস্তির কথা শুনে বাসায় এসে একা ঘুমাতেও ভয় করতো।

আজকাল সেই দিন আর নাই। ওয়াজ মাহফিল এখন ওয়াজ ব্যবসায়ে পরিণত হয়েছে। আগের দিনে মানুষ ওয়াজ শুনে কাঁদতে কাঁদতে বাড়ি ফিরলেও বর্তমান সময়ের ওয়াজ শুনে হাসতে-হাসতে, নাচতে-নাচতে বাড়ি ফিরে লোকজন। কারণ ধর্মপ্রাণ মাওলানাদের এখন আর কেউ ডাকে না। যারা মাহফিলে আসেন তাদের অধিকাংশ ধর্ম ব্যবসায়ী।

এ সব ধর্ম ব্যবসায়ীরা সহজে জনপ্রিয় হওয়ার জন্য ‘তু চিজ বাড়ি হে মাস্তে মাস্তে’ গানের সুরে মাহফিলে বয়ান করেন। কেউ সংসদ সদস্য হওয়ার জন্য গরম রাজনৈতিক গাল-গল্প মারেন।

এ সব ধর্ম ব্যবসায়ীদের চটকদার বয়ানে কিছু অন্ধ ও বদ ধার্মিক তৈরি হয়েছে। আঠোরো- কুড়ি-পঁচিশ বয়সের একটা প্রজন্মও ধর্ম ব্যবসায়ীদের খপ্পরে পড়েছেন। এদের কেউ সত্যিকারের ওয়াজ মাহফিলে যায় নি কখনো বা যাওয়ার সুযোগ হয় নি। তথ্য প্রযুক্তির সহজলভ্যতায় এরা ইউটিউবে বিনোদনের সন্ধানে নেমে দেখেছে তুমুল জনপ্রিয় ইসলামিক বক্তা অমুক। ইউটিউব চ্যানেলে লেখা আছে লাখ লাখ লোকের সমাগম! আকাশ চুম্বি জনপ্রিয়তা! এরা গানের সুরে সুরে বয়ান করে মাহফিল মাতিয়ে রেখেছে।

ইউটিউবে বিনোদন খুঁজতে আসা এ প্রজন্মটি যখন দেখছে-মাহফিলে বয়ান হচ্ছে ‘আমায় ঘুম ভাঙাইয়া গেল রে……..’। অথবা দেখছে হুজুর হিন্দি গানের সুরে বয়ান করছে ‘আছি আমরা এ কোন জমানায়, দিদি তেরা দেবর দিওয়ানা, হাম আপকে হ্যায় কন’! তখন তাদের মাহফিলের তাৎপর্য জানার সুযোগ কোথায়?

লেখক: সাবেক সাধারণ সম্পাদক, বাংলাদেশ ছাত্রলীগ, চট্টগ্রাম মহানগর।
ফেসবুক পোস্ট, কিছুটা পরিমার্জিত ও সংশোধিত।

Facebook Comments Box