মঙ্গলবার, ০৫ জুলাই ২০২২, ০৪:২০ অপরাহ্ন

এশিয়ান গ্রুপের ফরচুন এ্যাপারেলসে কথায় কথায় শোকজ; শ্রমিকদের বিক্ষোভ সমাবেশ

পরম বাংলাদেশ প্রতিবেদন
  • প্রকাশ : শনিবার, ২৭ ফেব্রুয়ারী, ২০২১
  • ৩৪৬ Time View

চট্টগ্রাম: এশিয়ান গ্রুপের মালিকানাধীন নাসিরাবাদ শিল্প এলাকায় অবস্থিত ফরচুন এ্যাপারেলস লিমিটেডের ব্যবস্থাপনা কর্তৃপক্ষের অসৎ শ্রম আচরণ বন্ধ, গণহারে শোকজ, সাসপেন্ড বন্ধ, ট্রেড ইউনিয়ন কর্মকান্ডে বাধা, চাকুরিচ্যুত শ্রমিকদের চাকুরি পুনর্বহাল, প্রোডাকশন টার্গেটের নামে জোরপূর্বক কাজ আদায় বন্ধ, রিজেইনকৃত শ্রমিকদের আইনগত পাওনা পরিশোধের দাবীতে শ্রমিকেরা বিক্ষোভ সমাবেশ করেছে।

বাংলাদেশ ট্রেড ইউনিয়ন সংঘ চট্টগ্রাম জেলা কমিটির উদ্যোগে মাসব্যাপী কর্মসূচীর অংশ হিসাবে শুক্রবার (২৬ ফেব্রুয়ারি) বিকাল তিনটায় চট্টগ্রাম সিটির সাগরিকা মোড়ে এ শ্রমিক সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়।

সমাবেশে বক্তারা বলেন, ‘এশিয়ান গ্রুপের মালিক পরিকল্পিতভাবে শিল্প ও শিল্প অঞ্চলে বিশৃঙ্খলা সৃষ্টির লক্ষ্যে ট্রেড ইউনিয়ন নেতৃবৃন্দ ও সদস্যদের চাকুরিচ্যুতির এক ঘৃণ্য প্রচেষ্টায় লিপ্ত। তারই ধারাবাহিকতায় গতগত ১০ সেপ্টেম্বর ফরচুন এ্যাপারেলসের দ্বিতীয় তলায় মালিকের অনুগত এক শ্রমিক দিয়ে কর্মরত শ্রমিকদের মারধর করেন। শ্রমিকরা মারধরের বিচার চাইলে মালিক বিচারের আশ্বাস দিয়েও গত ১২ সেপ্টেম্বর ইউনিয়নের নেতৃবৃন্দসহ ২৮ শ্রমিককে সাময়িক বরখাস্ত করেন। ঘটনা ঘটে দ্বিতীয় তলায়, শোকজ-সাসপেন্ড করা হয় অন্যান্য ফ্লোরের শ্রমিকদেরকে। ওই ঘটনার প্রেক্ষিতে সরকারসহ সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষকে মালিক পক্ষের অসৎ শ্রম আচরণ বন্ধের জন্য প্রতিকার চাইলে প্রতিকার পাওয়া যায় নাই। বরং নিরপরাধ ২৮ জন শ্রমিককে স্থায়ীভাবে চাকুরিচ্যুত করা হয়। চাকুরিচ্যুত শ্রমিকরা নিয়মতান্ত্রিক আন্দোলন অব্যাহত রেখে প্রতিকার পাওয়ার জন্য শ্রম আদালতে আশ্রয় নিয়ে শিল্প ও শিল্প অঞ্চলে শান্তি প্রতিষ্ঠায় অগ্রণী ভূমিকা পালন করে আসছে। এ অবস্থায় ফরচুন এ্যাপারেলস শ্রমিক ইউনিয়নের (রেজি: নং- ২৮৯৬) দ্বি-বার্ষিক নির্বাচনের মধ্যে নতুন কার্যকরী কমিটি গঠিত হলে নব-নির্বাচিত নেতৃবৃন্দকে চাকুরিচ্যুত করার লক্ষ্যে আবারো অসৎ শ্রম আচরণ শুরুর এক পর্যায়ে নির্বাচিত নেতাদের শোকজ-সাসপেন্ড এবং জোরপূর্বক বদলি করে নেতৃবৃন্দকে চাকুরিচ্যুত করেন।’

বক্তারা আরো বলেন, ‘ফরচুন এ্যাপারেলসের যৌথ দর কষাকষি বা সিবিএ নির্ধারনী প্রক্রিয়া শ্রম দপ্তর থেকে চলমান থাকা অবস্থায় গত ১৫ ফেব্রুয়ারি মালিকের অনুগত শ্রমিক দিয়ে সাধারণ শ্রমিকদেরকে কর্মরত অবস্থায় মারধর করে। শ্রমিকরা এর প্রতিবাদ ও বিচার দাবী করলে শ্রম পরিচালকের আদেশ অমান্য করে শত শত শ্রমিককে বে-আইনীভাবে শোকজ-সাসপেন্ড করেন। শ্রমিকদেরকে চাকুরিচ্যুত করার জন্য মালিকগোষ্ঠীর এ নতুন খেলা বন্ধ করতে হবে।’

সব শ্রমিকদের চাকুরি দিতে হবে বলে সমাবেশে জোর দাবী জানানো হয়। সাথে সাথে দাবী আদায়ের লক্ষ্যে ঐক্যবদ্ধ শ্রমিক আন্দোলন গড়ে তোলার জন্য শ্রমিকদের আহ্বান জানানো হয়।

সমাবেশ শেষে এক বিক্ষোভ মিছিল সাগরিকা মোড় থেকে শুরু হয়ে একে খাঁন গেইট এসে শেষ হয়।

বাংলাদেশ ট্রেড ইউনিয়ন সংঘ চট্টগ্রাম জেলার সহ-সভাপতি আবদুর রাজ্জাকের সভাপতিত্বে এতে বক্তব্য রাখেন সংঘের চট্টগ্রাম জেলার সাধারণ সম্পাদক মো. মামুন, বাংলাদেশ ওএসকে গার্মেন্টস এন্ড টেক্সটাইল শ্রমিক ফেডারেশনের চট্টগ্রাম বিভাগীয় কমিটির সাধারণ সম্পাদক মো. শাহ আলম, চট্টগ্রাম জেলা হোটেল রেস্টুরেন্ট শ্রমিক-কর্মচারী ইউনিয়নের সভাপতি মো. সোহেল, এ্যারো জিন্স (প্রা.) লিমিটেডের শ্রমিক কর্মচারী ইউনিয়নের সাধারণ সম্পাদিকা রোকেয়া বেগম, ফরচুন এ্যাপারেলস শ্রমিক ইউনিয়নের সাধারণ সম্পাদক বিধান শীল প্রমুখ।

উল্লেখ্য, এশিয়ান গ্রুপ বাংলাদেশের একটি শিল্প প্রতিষ্ঠান। ১৯৯২ সালের ১ জানুয়ারি এ গ্রুপটির যাত্রা শুরু হয়। বিজিএমইএ এর প্রথম সহ সভাপতি এমএ সালাম ব্যবস্থাপনা পরিচালক এবং এ গ্রুপের ডেপুটি ম্যানেজিং ডিরেক্টর সাকিফ আহমেদ সালাম। এটি বাংলাদেশের একটি বিশিষ্ট শিল্প গ্রুপ। এখানে ৩৫ হাজারের বেশি লোক কাজে নিয়োজিত আছে এবং এটি পোশাক, টেক্সটাইল, আনুষাঙ্গিক, কাগজ শিল্প, প্যাকেজিং শিল্প, অ্যালুমিনিয়াম শিল্প, ইলেকট্রনিক্স, শিক্ষা, চিকিৎসা এবং হোটেলের ব্যবসায় করছে।

নিউজ রিলিজ

Share This Post

আরও পড়ুন