বুধবার, ২২ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০৮:০৩ পূর্বাহ্ন

এলিভেটর এক্সপ্রেসওয়ে টাইগারপাস ওভার ব্রীজের ওপার থেকে শুরু হোক

নিজস্ব প্রতিবেদক
  • প্রকাশ : বৃহস্পতিবার, ৮ জুলাই, ২০২১
  • ৩২ Time View
মো. রেজাউল করিম চৌধুরী

চট্টগ্রাম: বাস্তবায়ণাধীন এলিভেটর এক্সপ্রেসওয়ে প্রকল্পকে স্বাগত জানিয়ে চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশনের (চসিক) মো. রেজাউল করিম চৌধুরী বলেছেন, ‘এটা বাস্তবায়ন হলে যানজট নিরসন হবে এবং মাত্র আধ ঘন্টায় নগরের কেন্দ্রস্থল থেকে বিমান বন্দরে যাওয়া যাবে। তবে আমি আশা করব, নগীর এ প্রান্তটা টাইগারপাস ওভার ব্রীজের ওপার থেকে শুরু হোক। ফলে টাইগারপাস ও ওভারব্রীজের নয়নাভিরাম যে প্রাকৃতিক সৌন্দর্য রয়েছে, তা সুরক্ষিত হবে এবং এর উপর কোন আঁচড় পরবে না।’

তিনি বৃহস্পতিবার (৮ জুলাই) সকালে নগরীর দক্ষিণ বাকলিয়া ইসহাকের পুল সংলগ্ন এলাকায় চসিকের খাল পরিষ্কার ও আবর্জনা অপসারণ কার্যক্রম পরিদর্শনকালে এসব কথা বলেন।

রেজাউল করিম আরো বলেন, ‘ইদানিং ফ্লাইওভারগুলোতে অপরাধজনিত ঘটনা ঘটছে। চলামান যানবহানকে ছিনতাই ও অপরাধমূলক দুর্ঘটনার শিকার হতে হচ্ছে। এ ব্যাপারে আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীকে সতর্ক দৃষ্টি রাতে হবে।’

এ সময় মেয়র স্পষ্ট হুশিয়ারী উচ্চারণ করে বলেন, ‘নগরীর পানি চলাচলের প্রধান গতিপথ খালগুলোর এক ইঞ্চি পরিমাণ অংশের উপর থেকেও অবৈধ দখলদারীত্ব ও স্থাপনা উচ্ছেদ করা হবে। যে যত বড়ই প্রভাব-প্রতিপত্বিবান হোক-না কেন, এ ক্ষেত্রে কাউকে তিল পরিমাণ ছাড় দেয়া হবে না। সিএস এবং আরএস জরীপের নকশা অনুযায়ী খালগুলোর সীমা-রেখা যেভাবে নির্ধারিত রয়েছে, সেই অবস্থান অবশ্যই নিশ্চিত করা হবে। নগরীর ভেতর দিয়ে প্রবহমান অনেকগুলো খাল ভূমি দস্যুদের আগ্রাসনে বিলুপ্ত হয়ে গেছে। যেগুলো এখনো প্রবহমান, সেগুলোর দুই পাশের ৮-১০ ফুটের বেশি অংশ বেদখল হয়েছে, অবৈধ স্থাপনা গড়ে উঠেছে। এর বিরূপ প্রভাবে নাগরিক স্বস্তি ওষ্ঠাগত। এ নগরীর স্বার্থেই যে কোন দামে খালের দেই পাশ থেকে অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ ও বেদখল মুক্ত করে নাগরিক স্বস্তি নিশ্চিত করব।

এ সময় উপস্থিত ছিলেন ওয়ার্ড কাউন্সিল মো. শহিদুল আলম, মো. নুরুল আলম, সংরক্ষিত কাউন্সিলর শাহীন আক্তার রোজী, প্রধান প্রকৌশলী রফিকুল ইসলাম মানিক, মেয়রের একান্ত সচিব মুহাম্মদ আবুল হাশেম, উপ-প্রধান পরিচ্ছন্ন কর্মকর্তা মোর্শেদুল আলম চৌধুরী প্রমুখ।

Share This Post

আরও পড়ুন