শনিবার, ১৭ এপ্রিল ২০২১, ০৮:১২ পূর্বাহ্ন

ইস্ট ডেল্টা ইউনিভার্সিটিতে ৬০ শতাংশই নারী

পরম বাংলাদেশ / ৩৬ বার এই সংবাদটি পড়া হয়েছে
প্রকাশের সময় : মঙ্গলবার, ৯ মার্চ, ২০২১

চট্টগ্রাম: ইস্ট ডেল্টা ইউনিভার্সিটির (ইডিইউ) প্রতিষ্ঠাতা ভাইস চেয়ারম্যান সাঈদ আল নোমান বলেছেন, ‘ইডিইউ ৬০ শতাংশ নারীর বিশ্ববিদ্যালয়। শিক্ষার্থীর সংখ্যায় নারীর আধিক্য যেমন রয়েছে, তেমনই পাঠদান ও প্রশাসনিক পর্যায়েও কাজ করছেন অনেকে। তাদের এ এগিয়ে আসা অনুপ্রাণিত করছে শিক্ষার্থীদের। পুরুষ শিক্ষার্থীরাও নিজের আশপাশের নারীদের মর্যাদা রক্ষা এবং ভবিষ্যৎ কর্মজীবনে নারী সহকর্মীদের সম্মানের বিষয়ে সচেতন হয়ে উঠছে।’

৮ মার্চ আন্তর্জাতিক নারী দিবস উপলক্ষে আয়োজিত এক অনুষ্ঠানে এসব কথা বলেন তিনি। এ সময় কেক কেটে এবং একে অপরকে খাইয়ে দেয়ার মাধ্যমে আন্তর্জাতিক নারী দিবস উদ্যাপন করেছেন ইডিইউতে কর্মরত নারীরা।
দেশের আর্থ-সামাজিক উন্নয়নে নারীর

অংশগ্রহণের গুরুত্ব সম্পর্কে সচেতন ইডিইউ। তাই প্রতিষ্ঠালগ্ন থেকেই নারীর অংশগ্রহণ বৃদ্ধির লক্ষ্যে উন্নত পরিবেশ নিশ্চিতের পাশাপাশি নানা সুযোগ-সুবিধাও দিয়ে আসছে এ বিশ্ববিদ্যালয়। এর ফলে ইডিইউতে বর্তমান শিক্ষার্থীদের মাঝে ছেলের তুলনায় মেয়ের সংখ্যাই বেশি।

কর্মরতদের সংখ্যাও পুরুষের প্রায় সমান, যাদের অনেকেই নিজ নিজ বিভাগের নেতৃত্বে আসীন। এছাড়া এক্সেস একাডেমি, যেখানে নতুন ভর্তি হওয়া শিক্ষার্থীদের দুর্বলতা ও তারতম্য কাটিয়ে তোলা হয়, তার ইনস্ট্রাক্টর প্রত্যেকেই নারী। তারা ইংরেজি ও গণিতে শিক্ষার্থীদের দুর্বলতা কাটিয়ে তোলা এবং নৈতিক-যৌক্তিক চিন্তায় পারদর্শী করে সামাজিক নানা ইস্যুতে সচেতন করে তুলতে কাজ করছেন।

এছাড়া করোনা অতিমারীর শুরু থেকে বর্তমান সময় পর্যন্ত বিশ্ববিদ্যালয়ের নিয়মিত দায়িত্বের বাইরে এসে নেতৃত্বমূলক ও দায়িত্বশীল ভূমিকা রাখায় ইডিইউ কর্তৃপক্ষ শিক্ষক-কর্মকর্তাকে সম্প্রতি যে সম্মাননা প্রদান করেছে, তার মাঝে অসাধারণ কর্মদক্ষতা ও ভূমিকা রাখার মাধ্যমে স্থান করে নিয়েছেন সাত জন নারী।

ইডিইউর প্রাক্তন ও বাংলাদেশের প্রথম নারী প্রক্টর অনন্যা নন্দী বলেন, ‘নারীদের হয়রানি রোধে ইস্ট ডেল্টা ইউনিভার্সিটি জিরো টলারেন্স নীতি গ্রহণ করেছে। শুধু ক্যাম্পাসে সীমাবদ্ধ না থেকে সোশ্যাল মিডিয়ায় সংঘটিত হয়রানি রোধেও ইডিইউ সচেষ্ট। প্রয়োজনীয় সচেতনতা সৃষ্টি ও কার্যকর নীতি অনুসরণের ফলে এ ধরনের হয়রানিও বর্তমানে শূন্যের কোঠায়।’

প্রেস বার্তা

add

আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই ক্যাটাগরির আরো সংবাদ