শুক্রবার, ২০ মে ২০২২, ০৮:২৬ অপরাহ্ন

আমেরিকার কথায় হুয়াওয়েকে নিষিদ্ধ করে যুক্তরাজ্য

পরম বাংলাদেশ ডেস্ক
  • প্রকাশ : বৃহস্পতিবার, ২০ জানুয়ারী, ২০২২
  • ৫১ Time View

যুক্তরাজ্যে হুয়াওয়ের ফাইভজি সরঞ্জাম ও সেবা নিষিদ্ধ করার সিদ্ধান্ত যুক্তরাজ্যের জাতীয় সুরক্ষার সাথে মোটেই সম্পর্কিত নয়, বরং এর পেছনে আমেরিকার চাপ দায়ী বলে জানিয়েছেন প্রাক্তন বাণিজ্য ও শিল্প মন্ত্রী ভিন্স কেবল।

ডেভিড ক্যামেরনের নেতৃত্বাধীন জোট সরকারের আমলে পাঁচ বছর ধরে ব্যবসায় ও শিল্প মন্ত্রী হিসেবে দায়িত্বরত ভিন্স কেবল সোমবার (১৭ জানুয়ারি) এক অনুষ্ঠানে বলেন, ‘চীনা প্রযুক্তি জায়ান্টের বিরুদ্ধে এমন সিদ্ধান্ত নেয়া হয় ‘কারণ আমেরিকানরা আমাদের বলেছিল, আমাদের এটি করা উচিত।’

২০২০ সালের জুলাইয়ে বরিস জনসন সরকার ন্যাশনাল সাইবার সিকিউরিটি সেন্টারের (এনসিএসসি) দেয়া নতুন পরামর্শের উদ্ধৃতি দিয়ে ঘোষণা করেন যে, ২০২৭ সালের শেষ নাগাদ হুয়াওয়ের পণ্য যুক্তরাজ্যের ফাইভজি নেটওয়ার্ক থেকে সম্পূর্ণরূপে সরিয়ে দেয়া হবে।

মার্কিন জাতীয় নিরাপত্তা বা পররাষ্ট্র নীতির স্বার্থের পরিপন্থী হিসেবে কাজ করছে, এমন ধারণায় মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র হুয়াওয়ের বিরুদ্ধে নিষেধাজ্ঞা আরোপ করে এবং এর কয়েক মাস পরে এ পদক্ষেপ গ্রহণ করা হয়। মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র হুয়াওয়েকে মাইক্রোচিপের মত গুরুত্বপূর্ণ জিনিস ক্রয়ে বাঁধা দেয় ও প্রতিষ্ঠানটিকে নিজস্ব অপারেটিং সিস্টেম তৈরিতে বাধ্য করে।

যুক্তরাজ্যের অনেক কর্মকর্তার তুলনায় চীনের প্রতি অধিক সহানুভূতিশীল হিসেবে পরিচিত ভিন্স কেবল আরো জানিয়েছেন, মন্ত্রী হিসেবে তার মেয়াদকালে গোয়েন্দা ও নিরাপত্তা সেবাদাতারা বার বার আশ্বাস দিয়েছিল যে, হুয়াওয়ের সেবা ব্যবহার করে কোনরূপ ঝুঁকি তৈরি হয়নি।

কেবল বলেন, ‘ব্রিটেন যদি ফাইভজির এ সুবিধা গ্রহণ করত, তাহলে আমরা এখন সবচেয়ে উন্নত প্রযুক্তি ব্যবহার করে এমন দেশগুলোর মধ্যে সবার আগে থাকতাম। কিন্তু এখন আমরা সে অবস্থানে নেই।’

প্রেস বার্তা

Share This Post

আরও পড়ুন