শিরোনাম
মারা গেলেন বাংলা একাডেমির সভাপতি শামসুজ্জামান খান কাপ্তাই হ্রদে মাছ ধরা বন্ধকালীন দশ উপজেলায় এক হাজার মেট্রিক টন চাল বরাদ্ধ মানসিক স্বাস্থ্য সুরক্ষায় ‌‌‌‌‌এক্সপ্রেসিভ সাইকোথেরাপি: বিদ্যায়তনিক পাঠ ও গণ প্রয়োগ কবিতা: আছি সেই সুদিনের অপেক্ষাতে । শ্রাবন্তী বড়ুয়া করোনার চিকিৎসায় পাহাড়তলীতে সিএমপি-বিদ্যানন্দ ফিল্ড হাসপাতাল স্থাপন মাছ আহরণ নিষিদ্ধকালে জেলেদের জন্য ৩১ হাজার মেট্রিক টন ভিজিএফ চাল বরাদ্দ রমজানে রোগবালাই ও স্বাস্থ্য সুরক্ষায় করণীয় হাইকোর্টের আদেশ অমান্য করে উড়িরচরে সীমানা পিলার স্থাপনের প্রতিবাদ সন্দ্বীপবাসীর মাউন্টেন ভ্যালির আইভেক্টোসল ও আইভোমেকের প্রথম ধাপের ট্রায়াল শুরু এল রহমতের মাস মাহে রমজান
বৃহস্পতিবার, ১৫ এপ্রিল ২০২১, ০১:৪৩ পূর্বাহ্ন

আনকাট সেন্সর পেল ‘রূপসা নদীর বাঁকে’, ১০ ডিসেম্বর প্রিমিয়ার, রিলিজ পরের দিন

নুরুন্নবী নুর / ১৫১ বার এই সংবাদটি পড়া হয়েছে
প্রকাশের সময় : বুধবার, ২ ডিসেম্বর, ২০২০

বাণিজ্যিক ধারার সিনেমার প্রচারণা নিয়ে মিডিয়া যখন ব্যস্ত, সবখানে ‘বিশ্বসুন্দরী’, ‘নবাব এলএলবি’ ও ‘প্রিয় কমলা’ নিয়ে সামাজিক মাধ্যম যখন প্রচার ও প্রসারে উঠে পড়ে লেগেছে, সেখানে বিকল্প ধারার সিনেমা কেন পিছনে পড়ে থাকবে? আমরা যাঁরা সিনেমা প্রেমী, ভালো সিনেমার গুণগান করি, তাঁরা যদি বিকল্প ধারার সিনেমার খবর জনসম্মুখে না আনি, তাহলে দেশে সুস্থ ধারার সিনেমার চর্চা কিভাবে হবে, বলতে পারেন?

বলছিলাম, আসছে ১১ ডিসেম্বর মুক্তি পেতে যাওয়া, চলচ্চিত্রকার তানভীর মোকাম্মেলের ‘রূপসা নদীর বাঁকে’ চলচ্চিত্রের কথা। নির্মাতা তানভীর মোকাম্মেল স্বাধীনতার স্বপক্ষের একজন মানুষ। যাঁর চলচ্চিত্রে সব সময় বিষয়বস্তু হিসেবে দেশ, দেশের মাটি ও মানুষের কথা উঠে আসে, উঠে আসে অন্ধত্ব থেকে আলোতে আসার আহ্বান। তাঁর কাহিনী চিত্রের মধ্যে আমার দেখা ‘লালসালু’, ‘নদীর নাম মধুমতি’, ‘লালন’ ও ‘হুলিয়া’ বেশ সাড়া জাগানো চলচ্চিত্র। আরও অনেকগুলো অদেখা কাহিনী চিত্র রয়ে গেছে, যা আমার দেখা হয়নি।

‘রুপসা নদীর বাঁকে’ চলচ্চিত্রের কাহিনী সম্বন্ধে ওয়াকিবহাল থাকলেও, বলতে নারাজ। কারণ, কিছু বিষয় বলার একটা নির্দিষ্ট সময় আছে। তাছাড়া বলে দিলে, চলচ্চিত্রটি দেখার প্রতি আগ্রহ কমে যাবে। যতটুকু জানি, ‘রূপসা নদীর বাঁকে’ চলচ্চিত্রটি একজন ত্যাগী বামপন্থী নেতার জীবনী নিয়ে নির্মিত যাঁকে রাজাকাররা ১৯৭১ এ হত্যা করেছিল।

চলচ্চিত্রে এক ঝাক নবীন-প্রবীন চলচ্চিত্র অভিনয়শিল্পী অভিনয় করেছেন। আনকাট সেন্সর পেল ‘রূপসা নদীর বাঁকে’। চলচ্চিত্রটি সম্পূর্ণ অকর্তিত বা আনকাট সেন্সর সনদ লাভ করেছে। ছবিটি বাংলাদেশ সরকারের অনুদানপ্রাপ্ত। এর প্রিমিয়ার শো অনুষ্ঠিত হবে আগামী ১০ ডিসেম্বর। ১১ ডিসেম্বর থেকে জনগণের জন্যে চলচ্চিত্রটির প্রদর্শনী শুরু হবে।

দুই ঘন্টা ১৭ মিনিট দৈর্ঘ্যের চলচ্চিত্রটির কাহিনী ও চিত্রনাট্য রচনা করেছেন তানভীর মোকাম্মেল, চিত্রগ্রহণ করেছেন মাহফুজুর রহমান, সম্পাদনায় ছিলেন মহাদেব শী, শিল্প নির্দেশনা ও প্রধান সহকারী পরিচালক উত্তম গুহ, আবহসঙ্গীতে ছিলেন সৈয়দ সাবাব আলী আরজু, পোশাকে চিত্রলেখা গুহ ও মেক আপে মোহাম্মদ আলী বাবুল। ছবিটির সহকারী পরিচালক ছিলেন রানা মাসুদ, সৈয়দ সাবাব আলী আরজু ও সগীর মোস্তফা।

খুশির খবর, ‘রূপসা নদীর বাঁকে’ চলচ্চিত্রের ঢাকার বসুন্ধরা সিনেপ্লেক্সে শুভ মুক্তি চলতি মাসের ১১ ডিসেম্বর।

শুভ কামনা থাকলো ‘রূপসা নদীর বাঁকে’ এবং জাতীয় ও একুশে পদক প্রাপ্ত চলচ্চিত্র নির্মাতা প্রিয় তানভীর মোকাম্মেল স্যারের জন্য।

add

আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই ক্যাটাগরির আরো সংবাদ